প্রবাস | The Daily Ittefaq

কর্মস্থলেই ভোটার হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন প্রবাসীরা

কর্মস্থলেই ভোটার হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন প্রবাসীরা
আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাপাকে নিয়ে ইসির সেমিনার আজ
সাইদুর রহমান১৯ এপ্রিল, ২০১৮ ইং ০১:৪৪ মিঃ
কর্মস্থলেই ভোটার হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন প্রবাসীরা

শিগগিরই স্ব স্ব কর্মস্থলেই ভোটার হবেন প্রবাসে থাকা বাংলাদেশিরা। তবে, ভোটার হলেও কবেনাগাদ পছন্দের দল ও প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন এখনো তা নিশ্চিত হয়নি। নির্বাচন কমিশন (ইসি) বলছে, ভোটাধিকার প্রয়োগ করা নয়, প্রবাসীদের হাতে এনআইডি কার্ড তুলে দেওয়ায়ই তাদের প্রধান লক্ষ্য। প্রবাসীদের ভোটার করায় সম্মতি রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। এদিকে, প্রবাসী বাঙালিদের ভোটার করতে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ হাতে নিয়েছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। প্রবাসী অধ্যুষিত রাষ্ট্রের বাংলাদেশি দূতাবাসসমূহের রাষ্ট্রদূত ও হাই-কমিশনারসহ এ সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে সেমিনার করা হচ্ছে। আজ ১৯ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, সংসদের বাইরে থাকা বিএনপি এবং দশম জাতীয় সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির প্রতিনিধি, প্রবাসে থাকা বাংলাদেশের বিভিন্ন রাষ্ট্রদূত, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি এবং প্রবাসীদের নিয়ে কাজ করা সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিরা এ সেমিনারে অংশ নিচ্ছেন।

জানা যায়, ১৯৯৮ সালে দেশের উচ্চ আদালত প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোটাধিকার সংবিধান স্বীকৃত বলে ঘোষণা দেন। দীর্ঘ ১৯ বছরেও সেই ঘোষণা বাস্তবায়নের মুখ দেখেনি। বিশ্বের ১৫৭টি দেশে কোটির উপরে প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন। বর্তমান কমিশনের এই উদ্যোগে তাদের দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত ক্ষোভের অবসান হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্ট নীতি-নির্ধারকরা। এর আগে ড. শামসুল হুদা কমিশনের দু’জন কমিশনার এ বিষয়ে অভিজ্ঞতা নিতে যুক্তরাজ্য সফর করেছিলেন। এর পেছনে কয়েক লাখ টাকা ব্যয় হয়েছিল। কিন্তু প্রবাসীদের ভোটার করা সম্ভব হয়নি।

প্রাথমিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সারাবিশ্বের বাঙালি অধ্যুষিত ১৫৭টি রাষ্ট্রের মধ্যে জনবহুল তিনটি দেশ অর্থাত্ সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মালয়েশিয়ায় গিয়ে সেখানকার বাংলাদেশি দূতাবাসের সহায়তা নিয়ে ছবিসহ ভোটার তালিকায় নাম উঠানো হবে প্রবাসীদের; এটা নির্ধারিত করা হলেও এখানেও কাটছাঁট করা হয়েছে। বিদ্যমান প্রস্তাবে শুধুমাত্র সৌদি আরবকে অগ্রাধিকার তালিকায় রাখা হয়েছে। এই দেশে ৪টি টেকনিক্যাল টিম পাঠিয়ে স্ব স্ব কর্মস্থলেই ভোটার করা হবে। এর আগে এ তালিকায় ছিল সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মালয়েশিয়া। এর জন্য আগামী ২০১৭-১৮ সংশোধিত অর্থ বছরের বাজেটে বরাদ্দ রাখতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। ধাপে ধাপে কাতার, মালয়েশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ ও আমেরিকা অঞ্চলে কমিশনের টেকনিক্যাল টিম পাঠিয়ে সেখানে বসবাসরতদের নাম ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

ইসির কর্মকর্তারা বলেন, বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশের দূতাবাসসমূহের প্রস্তাব, অর্থমন্ত্রীর তাগিদ, গত বছরে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে মুক্ত আলোচনায় বিভাগীয় কমিশনার ও ডিসিদের প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীর সানুগ্রহ অনুশাসন, সংলাপে রাজনৈতিক দলগুলোর প্রস্তাব এবং গাজীপুরের  কাপাসিয়ায় আইডি কার্ড প্রদান সংক্রান্ত অনুষ্ঠানে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) সম্মতি প্রবাসীদের ভোটার করার বিষয়টি আগেই নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। এমনকি কোন প্রক্রিয়ায় তাদের নাম তালিকাভুক্ত করা হবে সেটিও অনেকটা চূড়ান্ত। কিন্তু ভালো এই উদ্যোগটি কমিশন গ্রহণ করার পর যাতে সংশ্লিষ্ট অর্থাত্ স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র, প্রবাসী ও বৈদেশিক কল্যাণ মন্ত্রণালয়, পাসপোর্ট অফিস, বোয়েসেল, রামরু, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক, এনজিও প্রতিনিধি, প্রবাসে বর্তমান কর্মরত প্রথম সচিব ও কনসাল জেনারেলসহ কোনো পক্ষই দায় এড়াতে না পারে মূলত সে কারণে ওই সেমিনারের আয়োজন করতে যাচ্ছে কমিশন। পাশাপাশি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সৌদি আরব, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইটালি, কুয়েত, সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশি দূতাবাসসমূহের রাষ্ট্রদূত ও হাই-কমিশনারদের সেমিনারে উপস্থিতি নিশ্চিতে সমন্বয় করছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইসি সচিব পত্র দিয়ে পররাষ্ট্র সচিবকে এ বিষয়ে সমন্বয় করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ ইত্তেফাককে বলেন, প্রবাসীদের প্রবাসে ভোটার করার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর জন্য রাজনৈতিক দল, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সুশীল সমাজ ও ইসির অংশীজনদের নিয়ে সেমিনার আয়োজন করা হয়েছে।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের (এনআইডি) মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম ইত্তেফাককে বলেন, মধ্যপ্রাচ্যে, ইউরোপ এবং আমেরিকাসহ বিশ্বের অনেক দেশে বহুসংখ্যক বাংলাদেশি নাগরিক অবস্থান করছে। স্বাধীনতার এতো বছর পরও তারা দেশে আসার সুযোগ পান না। ফলে ভোটার তালিকায় তাদের নাম যেমন অন্তর্ভুক্ত হয় না, তেমনি তারা জাতীয় পরিচয়পত্র থেকে বঞ্চিত। রাষ্ট্রের পরিচিতি পত্র না থাকায় নানা সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন তারা। এজন্য তাদের ভোটার করার ব্যাপারে বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশন ইতিবাচক।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৪
মাগরিব৫:৫৮
এশা৭:১১
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৩