প্রবাস | The Daily Ittefaq

নিউইয়র্কে রমা চৌধুরীকে স্মরণ

নিউইয়র্কে রমা চৌধুরীকে স্মরণ
বিশেষ প্রতিনিধি, যুক্তরাষ্ট্র১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ২২:০৫ মিঃ
নিউইয়র্কে রমা চৌধুরীকে স্মরণ
একাত্তরের জননী খ্যাত মুক্তিযোদ্ধা রমা চৌধুরীকে স্মরণ করেছেন নিউইয়র্কের প্রবাসীরা। স্থানীয় সময় রবিবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের উডসাইডে সূত্র মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার নামে একটি সংগঠন আয়োজিত এই স্মরণসভায় মুক্তিযুদ্ধে রমা চৌধুরীর অবদান, তার জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা হয়। 
 
স্মরণসভার শুরুতে রমা চৌধুরীর জীবনী ইংরেজিতে পাঠ করেন নতুন প্রজন্মের আলিফ আলম। সদ্য প্রয়াত এই মহান জননীর ছবি উন্মোচন ও মোমের আলো জ্বালিয়ে এক মিনিট নীরবতার পর্বটি পরিচালনা করেন নারী নেত্রী অধ্যাপিকা হুসনে আরা বেগম।
 
বৈতালিক গানের মাধ্যমে তাঁকে স্মরণ করেন গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক আল আমিন বাবু ও ত্রিনিয়া হাসান। বাংলাদেশ চারুশিল্পী সংসদের সাধারণ সম্পাদক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও গণজাগরল মঞ্চের অন্যতম প্রধান সংগঠক কামাল পাশা চৌধুরী রমা চৌধুরীর জীবনের জানা-অজানা অনেক ঘটানাপঞ্জির চিত্র উন্মোচন করেন, যা শুনে উপস্থিত সবার হৃদয় ছুঁয়ে যায়। 
 
তিনি বলেন, মূলত রমা চৌধুরী তার জীবনের শেষদিনটি পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধই করে গেছেন। তিনি তার শহীদ সন্তানদের রক্তেস্নাত এই বাংলার মাটিতে ৭১-এর পর থেকে কখনোই জুতো পায়ে দেননি। তিনি সারা জীবন খালি পায়েই হেঁটেছেন। নিজে বই লিখে, সেই বই বিক্রি করে তার তৈরী একটি স্কুল চালিয়েছেন। নতুন প্রজন্মের হৃদয়ে বাংলাদেশ ও তার সৃষ্টির লাখো শহীদের ত্যাগের ইতিহাস গেঁথে দিয়ে তাদেরকে এক সত্যিকারের দেশপ্রেমিক জাতি হিসেবে গড়ে তুলতে আমৃত্যু কাজ করে গেছেন। সাধারণ মানুষের অর্থনৈতিক সামাজিক ও সাংস্কৃতির সার্বিক মুক্তিআন্দোলনই ছিল তার জীবনের অভিপ্রায়। 
 
স্মরণসভায় মুমু আনসারী ও মিথুন আহমেদের অনবদ্য কবিতা পাঠ স্মরনসভায় এক শোকের আবহ সৃষ্টি করে। পিনপতন নীরবতায় তাদের অসাধারণ পরিবেশনা সবাইকেই যেন ৭১-এর দিনগুলির কাছে টেনে নিয়ে যায়। আবারো আল আমিন বাবু ও ত্রিনিয়া তাদের গানের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা রমা চৌধুরীকে স্মরণ করেন। আল আমিন বাবু তাঁর স্মরণে তার নিজের লেখা ও সুরে ‘বীরাঙ্গণা’ গানটি প্রথমবারের মতো পরিবেশন করেন। 
 
স্মরণসভার সঞ্চালক একুশে চেতনা পরিষদের আহবায়ক ও ভাষা আন্দোলনের গবেষক ওবায়দুল্লাহ মামুন রমা চৌধুরীর সারাজীবনের কর্মযজ্ঞ উল্লেখ করে সবাইকে তাঁর ‘একাত্তরের জননী’ বইটি পড়তে অনুরোধ করেন। 
 
ইত্তেফাক/জেডএইচ
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৯
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪