ঢাকা বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
২১ °সে

বাংলাদেশ-তুরস্ক বাণিজ্য বিষয়ক সেমিনার

বাংলাদেশ-তুরস্ক বাণিজ্য বিষয়ক সেমিনার
ইস্তাম্বুলে “বাংলাদেশ-তুরস্ক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্পর্কঃ ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা” শীর্ষক একটি সেমিনার

আঙ্কারাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এবং তুরস্কের বৈদেশিক অর্থনৈতিক সম্পর্কবিষয়ক বোর্ড (উঊওক/ডেইক) যৌথভাবে গত বৃহস্পতিবার ইস্তাম্বুলে “বাংলাদেশ-তুরস্ক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্পর্কঃ ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা” শীর্ষক একটি সেমিনারের আয়োজন করে। উক্ত অনুষ্ঠানে তুরস্ক এবং বাংলাদেশের ৭০ জন ব্যবসায়ী প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। তারা অবকাঠামো, জ্বালানী, তথ্য প্রযুক্তিখাত হতে শুরু করে আমদানি রপ্তানীর বিভিন্ন পর্যায়ে নিয়োজিত রয়েছেন। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের এফবিসিসিআই-এর একটি প্রতিনিধি দল বর্তমানে ইস্তাম্বুলে এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশসমূহের শীর্ষ চেম্বারগুলোর বার্ষিক সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য ইস্তাম্বুলে রয়েছেন। তাদের এই সফরের সাথে মিলিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস আংকারা এ সেমিনারের আয়োজন করে।

তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম. আল্লামা সিদ্দীকী তার উপস্থাপনায় বাংলাদেশের ঐতিহাসিক অভ্যূদয়ের বিভিন্ন পর্যায় অংশগ্রহণকারীদের কাছে তুলে ধরেন। স্বাধীন রাষ্ট্র হিসাবে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠা এবং তার পেছনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর অবিসংবাদিত ভূমিকা সম্পর্কে তিনি আলোকপাত করেন। রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের ভৌগলিক কৌশলগত গুরুত্ব, সাম্প্রতিক সময়ে সংঘটিত আর্থ-সামাজিক অর্জন এবং আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশের স্বীকৃতি সম্পর্কে বিশদ আলোচনা করেন। তিনি বাংলাদেশ ও তুরস্কের মাঝে বিদ্যমান উষ্ণ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক সম্প্রসারণের জন্য উভয় পক্ষের ব্যবসায়িদের প্রতি আহ্বান জানান। ইস্তাম্বুলে নিযুক্ত কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম তার উপস্থাপনায় বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সাফল্য বিশেষত: দারিদ্র্য দুরীকরণ, নারীর ক্ষমতায়ন, দূর্যোগ ব্যস্থাপনা ও প্রযুক্তির ব্যবহারের বিকাশ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। তিনি অন্যান্য উদীয়মান অর্থনীতির সাথে বিনিয়োগ-সুবিধা ও প্রনোদনার আলোকে বাংলাদেশের অগ্রগামিতার কথা তুলে ধরেন। তিনি দুদেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্ভাবনার খাতগুলো চিহ্নিত করেন।

বাংলাদেশ-তুরস্ক বিজনেস কাউন্সিল-এর চেয়ারপার্সন লরা গোক তার স্বাগতিক বক্তব্যে প্রত্যক্ষ দর্শন ও অভিজ্ঞতার আলোকে বাংলাদেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগের উজ্জ্বল দিকগুলো সবিস্তার আলোচনা করেন। এফবিসিসিআই এর পরিচালক ও বাণিজ্য প্রতিনিধি দলের নেতা শাহিদ রেজা তার সমাপনী বক্তব্যে বাংলাদেশের চলমান উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত হয়ে বিদ্যমান বাণিজ্য বান্ধব পরিবেশের সুযোগ নেবার জন্য তুর্কি ব্যবসায়ীদের আহ্বান জানান।

আশা করা যায় এই সেমিনার বাংলাদেশের দ্রুতবর্ধনশীল বাজার ও অর্থনীতির বিষয়ে তুরস্কের বেসরকারি খাতের মনোযোগ আকর্ষণে সহায়ক হবে।

উল্লেখ্য, সেমিনারের বিভিন্ন পর্বে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, সাম্প্রতিক অর্জন ও অর্থনৈতিক সফলতার উপর নির্মিত তিনটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এটা বলা প্রয়োজন যে, বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে আগামী কয়েক সপ্তাহে তুরস্কের বিভিন্ন শহরে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে যা ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সালে ডেইক প্রতিনিধি দলের গুরুত্বপূর্ণ বাংলাদেশ সফরের ভিত্তি রচনা করবে।

ইত্তেফাক/আরকেজি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১২ ডিসেম্বর, ২০১৮
আর্কাইভ
 
বেটা
ভার্সন