ঢাকা সোমবার, ১৮ মার্চ ২০১৯, ৪ চৈত্র ১৪২৫
২৪ °সে

গাড়িতে নয়, হেঁটে বইমেলায় গেলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ

গাড়িতে নয়, হেঁটে বইমেলায় গেলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ
পায়ে হেঁটে বইমেলায় প্রবেশ করেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী। ছবি সংগৃহীত

পরিচিত লেখক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীলের ‘এখনই সময় বাংলাদেশ’ বইটির মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে অংশ নিতে বইমেলায় গিয়েছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। কিন্তু তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হবে বিষয়টি হয়ত জানতেন না তিনি। রবিবার মেলার গেট থেকে পায়ে হেঁটে নির্দিষ্ট স্টলে গেলেও তার বিরুদ্ধে গাড়ি নিয়ে মেলায় প্রবেশের অভিযোগ করা হয় একটি গণমাধ্যমে।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর আপত্তি জানান স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীকে চেনেন এমন অনেকে। গণমাধ্যমে এই সংবাদ পড়ার পর প্রত্যক্ষদর্শী উপস্থিত ডা. মোহাম্মাদ কামরুজ্জামান সরকার বলেন, ‘গণমাধ্যমের তথ্য সংগ্রহ ও উপস্থাপনে আরো আন্তরিক এবং যত্নশীল হওয়া উচিত। প্রকৃত দোষীকে খুঁজে বের করার জন্য তাড়াহুড়ো না করে তাদের অপেক্ষা করা উচিত। যা এখানে করা হয়নি বলেই আমার ধারণা। আমি এবং আমার সঙ্গে উপস্থিত আরো অনেকে মেলায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীকে প্রবেশ করতে দেখেছি। আমরা প্রত্যেকে তাকে হেঁটে মেলায় প্রবেশ করতে ও বের হতে দেখেছি। যেই ব্যক্তি হেঁটে মেলায় প্রবেশ ও প্রস্থান করেছেন তিনি কেনো তার গাড়ি মেলার অভ্যন্তরে প্রবেশ করার নির্দেশ দেবেন। আমার ধারণা, বিষয়টা নিছক ভুল বোঝাবুঝি ছাড়া আর কিছু নয়।’

এদিকে, মেলায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীকে চেনেন এমন আরেক প্রত্যক্ষদর্শী ডা. শাফায়াত মুহাম্মদ শান্তনু জানান, ‘গণমাধ্যমে সংবাদটির বিষয়ে জানার পর আমি বেশ অবাক হয়েছি। কেননা, মেলা গেট থেকে তিনি হেঁটে এসেছেন। এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত আমরা অনেকেই ছবি তুলেছি। আমার সঙ্গে তার ছবিও আছে, যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাবেন আপনারা। কিন্তু কেন এমনভাবে সংবাদ উপস্থাপন করা হলো ভেবে অবাক হচ্ছি। এটি কি উদ্দেশ্য প্রণোদিত।’

আরও পড়ুন: অভিজিৎ রায় হত্যাকাণ্ড: ৬ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট

সেখানে উপস্থিত অপর একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘ভাষার মাসে আয়োজিত এই বই মেলার ভাবগাম্ভীর্য এবং গুরুত্ব কী তা আমরা সবােই জানি। আর এই বই মেলায় গাড়ি নিয়ে প্রবেশ করা উচিত নয় জেনেই মেলার গেট থেকে হেঁটে নির্দিষ্ট স্টলে আসেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী। কিন্তু তার ড্রাইভার নিজ উদ্যোগে গাড়ি নিয়ে মেলায় প্রবেশ করেন। সরকারি গাড়ি হওয়ায় তাকে কেউ আটকায়নি। কিন্তু বিষয়টি জানার পরপর স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী আবারও মেলার বাহিরে নিয়ে যেতে বলেন গাড়িটিকে। আর তিনিও মেলা থেকে হেঁটে বের হয়ে গাড়িতে ওঠেন। যিনি বা যারা তার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গাড়ি নিয়ে প্রবেশের অভিযোগ তুলেছেন তারা মেলায় উপস্থিত থেকে কাজটি করেছে কিনা সন্দেহ হচ্ছে। কেননা, মেলায় উপস্থিত থাকলে সরাসরি স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর কাছে জিজ্ঞাসা করতে পারতেন বিষয়টি নিয়ে। কিন্তু তা না করে কোন নির্দিষ্ট ব্যক্তিবর্গের ইন্ধনে শুধু গাড়ির ছবি ব্যবহার করে ইচ্ছাকৃতভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আর গণমাধ্যমও তা সূত্র হিসেবে ধরে সংবাদ তৈরি করেছে। এটা উচিত নয়।’

ইত্তেফাক/কেকে

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৮ মার্চ, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন