রাজধানী | The Daily Ittefaq

তথ্যপ্রযুক্তির সম্ভাবনা নির্ণয়ে অর্থনীতিবিদ ফিন কিডল্যান্ড ঢাকায়

তথ্যপ্রযুক্তির সম্ভাবনা নির্ণয়ে অর্থনীতিবিদ ফিন কিডল্যান্ড ঢাকায়
অনলাইন ডেস্ক০৯ মে, ২০১৬ ইং ১২:১৮ মিঃ
তথ্যপ্রযুক্তির সম্ভাবনা নির্ণয়ে অর্থনীতিবিদ ফিন কিডল্যান্ড ঢাকায়
রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বাংলাদেশের অগ্রাধিকার নির্ণয়ে একবছর ধরে কাজ করছে কোপেনহেগেন কনসেনসাস সেন্টার। বিশেষত আইসিটিসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে প্রতি এক টাকা ব্যয়ের বিপরীতে কতখানি অর্জন সম্ভব এবং দীর্ঘমেয়াদে বাংলাদেশে তা কতখানি লাভজনক হতে পারে তা নির্ধারণে কাজ করছে সংস্থাটি। 
 
রবিবার সন্ধ্যা ৭ টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের করবী হলে তাদের গবেষণালব্ধ তথ্যের ভিত্তিতে রূপকল্প ২০২১ অর্জনে বাংলাদেশের করণীয় শীর্ষক সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ২০০৪ সালে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ প্রফেসর ফিন কিডল্যান্ড এবং কোপেনহেগেন কনসেনসাস সেন্টারের সভাপতি ড. বিয়র্ন লোমবর্গ।
 
“নোবেল নাইটঃ ওপেনিং অফ বাংলাদেশ প্রায়োরিটিস” শিরোনামে এই সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।
 
বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে সম্ভাব্যতা নির্ণয়ে ২০১৫ এর মে মাস থেকে একসঙ্গে কাজ করছে কোপেনহেগেন কনসেনসাস এবং ব্র্যাক। ইতোমধ্যে এটুআই প্রকল্প পরিচালিত ডিজিটাল সেন্টারগুলোতে প্রতি ১ টাকা ব্যয় করে ২২ টাকার রিটার্ন পাওয়া সম্ভব এবং ভূমির রেকর্ড পদ্ধতি ডিজিটাইজ করা হলে ব্যয়িত প্রতিটি টাকার বিপরীতে ৬১৯ টাকার সুফল পাওয়া সম্ভব বলে মন্তব্য করেছে কোপেনহেগেন কনসেনসাস সেন্টার।
 
অনুষ্ঠানে তথ্য প্রযুক্তিতে পারস্পরিক সহায়তার জন্য ডেনমার্কের কোপেনহেগেন কনসেনসাস এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন প্রোগ্রাম (এটুআই’র) মধ্যে এক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। 
 
সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এটুআই’র প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার এবং কোপেনহেগেন কনসেনসাস সেন্টারের সভাপতি ড. বিয়র্ন লোমবর্গ। এই সমঝোতা স্মারকের আওতায় বিভিন্ন গবেষণা এবং প্রকাশনাসহ অর্থনৈতিক উন্নয়নমূলক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে একসঙ্গে কাজ করবে একসেস টু ইনফরমেশন প্রোগ্রাম এবং কোপেনহেগেন কনসেনসাস সেন্টার।
 
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব  আবুল কালাম আজাদ। এছাড়া এটুআই’র পলিসি এডভাইজর আনীর চৌধুরী, বাংলাদেশ ওম্যান চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি সেলিমা আহমেদ, বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অফ ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের মহাপরিচালক ড. কে এ এস মুর্শিদ, ব্র্যাকের সহ-সভাপতি ড. মুশতাক চৌধুরীসহ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব, গণমাধ্যমের বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং এটুআই’র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৯ আগষ্ট, ২০১৮ ইং
ফজর৪:১৬
যোহর১২:০৩
আসর৪:৩৭
মাগরিব৬:৩২
এশা৭:৪৮
সূর্যোদয় - ৫:৩৫সূর্যাস্ত - ০৬:২৭