রাজধানী | The Daily Ittefaq

স্ত্রীসহ ফরহাদ মজহারের বিরুদ্ধে মামলার অনুমতি

অপহরণের নাটক সাজানোর অভিযোগ
স্ত্রীসহ ফরহাদ মজহারের বিরুদ্ধে মামলার অনুমতি
ইত্তেফাক রিপোর্ট০৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং ২১:৩৪ মিঃ
স্ত্রীসহ ফরহাদ মজহারের বিরুদ্ধে মামলার অনুমতি
 
অপহরণের ঘটনা সাজিয়ে ‘মামলা দায়েরের’অভিযোগে স্ত্রীসহ লেখক ও কলামিস্ট ফরহাদ মজহারের বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম খুরশীদ আলম এ আদেশ দেন। এর আগে মামলার বাদী ফরহাদ মজহারের স্ত্রী ফরিদা আক্তার নারাজি আবেদন দাখিলের জন্য সময় আবেদন করলে বিচারক তা নাকচ করে দেয়।
 
এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার আনিসুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মাহবুবুল হক গত ১৪ নভেম্বর আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়ার পাশাপাশি মিথ্যা মামলা দায়েরের অভিযোগে মজহার দম্পতির বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করার অনুমতি চান। শুনানি শেষে বিচারক নারাজি আবেদন নাকচ করে এবং পাল্টা মামলা করার অনুমতি দেন। তদন্ত প্রতিবেদনে পুলিশ বলেছে, মামলায় অপহরণের যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা ‘পুরোপুরি ভুয়া’এ কারণে ফৌজদারি দণ্ডবিধির  ২১১ ও ১০৯ ধারায় ব্যবস্থা নিতে আদালতে আবেদন করা হয়েছে, যাতে তাদের এবং সহযোগীদের বিচারের আওতায় আনা হয়। 
 
ফৌজদারি আইন বিশেষজ্ঞ এবং সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোশতাক আহম্মেদ জানান, ফৌজদারি দণ্ডবিধির ২১১ ধারায় মিথ্যা মামলা দায়েরের শাস্তির বিষয়ে বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি করার উদ্দেশ্যে কেউ কোনো অভিযোগ দায়ের করলে অথবা কোনো অপরাধ করেছে বলে মিথ্যা মামলা দায়ের করলে মামলা দায়েরকারীকে দুই বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড কিংবা উভয় দণ্ড দেয়া যাবে। তবে অভিযোগের বিষয় যদি মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন বা সাত বছরের বেশি সাজার যোগ্য হয়, আর সেই অভিযোগ যদি মিথ্যা প্রমাণিত হয়, তাহলে মিথ্যা অভিযোগকারীর সর্বোচ্চ সাত বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডসহ অর্থদণ্ড হবে। আর ১০৯ ধারায় অপরাধ সংঘটনের ষড়যন্ত্রে অংশ নেয়া, উসকানি দেয়া বা সহযোগিতার বিষয়ে বলা হয়েছে। এ ধরনের ক্ষেত্রে আসামি যে অপরাধ করার ষড়যন্ত্র করেছেন বলে প্রমাণিত হবে, তার ক্ষেত্রে  সেই অপরাধের শাস্তিই প্রযোজ্য হবে।
 
মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ৩ জুলাই সকালে রাজধানীর শ্যামলীর বাসা থেকে বেরিয়ে লেখক ও কলামিস্ট ফরহাদ মজহারের নিখোঁজ হওয়ার খবর আসে। ওইদিনই ফরিদা আখতার তার স্বামীকে অপহরণের অভিযোগ এনে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন, যা পরে মামলা হিসেবে নথিভূক্ত হয়। এর ১৮ ঘণ্টা পর গভীর রাতে নাটকীয়ভাবে যশোরে হানিফ পরিবহনের একটি বাস থেকে ফরহাদ মজহারকে উদ্ধার করে র‌্যাব।
 
ইত্তেফাক/ইউবি
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৩ নভেম্বর, ২০১৭ ইং
ফজর৫:১১
যোহর১১:৫৩
আসর৩:৩৮
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৪
সূর্যোদয় - ৬:৩২সূর্যাস্ত - ০৫:১২