রাজধানী | The Daily Ittefaq

শোকে স্তব্ধ নিহতদের পরিবার

শোকে স্তব্ধ নিহতদের পরিবার
ইত্তেফাক ডেস্ক১৪ মার্চ, ২০১৮ ইং ০০:১০ মিঃ
শোকে স্তব্ধ নিহতদের পরিবার

কাঠমান্ডুতে গত সোমবার ইউএস বাংলা বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের বাড়িতে গতকাল মঙ্গলবারও চলেছে শোকের মাতম। ব্যুরো অফিস, প্রতিনিধি ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর-

বিবাহবার্ষিকী উদযাপন হলো না শশীর

রংপুর ও মানিকগঞ্জ: বিবাহ বার্ষিকী উদযাপনের জন্য স্বামীর সঙ্গে নেপালে যাচ্ছিলেন মানিকগঞ্জের তাহিরা তানভিন শশী। বিমান দুর্ঘটনায় তার স্বামী রংপুর মেডিক্যাল কলেজের সার্জারি বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার রেজওয়ানুল হক শাওন মারাত্মক আহত হয়ে নেপালের ওম হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আর শশী পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন। রেজওয়ানুল হকের বাড়ি সাটুরিয়া উপজেলার গোপালপুর গ্রামে। শশীর বাবা রেজা মোহাম্মদ জামান চিকিত্সক। শশী চেয়েছিলেন আইন ও অপরাধ নিয়ে পড়তে।  ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনে অনার্স শেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধ বিজ্ঞান বিভাগে মাস্টার্স করার সুযোগ পান তিনি। স্বপ্ন পূরণ আর বিবাহ বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে নেপাল ভ্রমণের পরিকল্পনা করেন। কিন্তু শশীর মৃত্যুর মধ্যদিয়ে বিষাদে শেষ হলো সেই ইচ্ছা।

নগরকান্দা (ফরিদপুর): বিমান দুর্ঘটনায় নিহত নগরকান্দার এসএম মাহমুদুর রহমান রিমনের (৩২) বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় মা লিলি বেগম বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন। শোকে আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে গোটা গ্রাম। চাচা শাহ মোঃ আফতাব উদ্দিন জানান, রিমন রানার অটোমোবাইলস লিমিটেড কোম্পানিতে প্রধান কার্যালয়ে সিনিয়র ম্যানেজার পদে কর্মরত ছিল। প্রতিষ্ঠানের কাজে রিমন নেপাল যাচ্ছিল।

রাগীব-রাবেয়া মেডিক্যাল কলেজে ৩ দিনের শোক

সিলেট: বিমান দুর্ঘটনায় জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিক্যাল কলেজের ১১ শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় কলেজের পক্ষ থেকে তিনদিনের শোক কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। গতকাল কলেজের ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ ছিল।

আলোর মিছিল: এদিকে গত সোমবার রাতে সিলেটে আলোর মিছিল করেছে নগরীর পার্কভিউ মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীরা। কলেজটির নেপালের অন্য শিক্ষার্থীরা এই আলোর মিছিলের আয়োজন করে। দুর্ঘটনা নিহতদের স্মরণে সোমবার রাত ৯টায় হাতে মোমবাতি নিয়ে আলোর মিছিল করে শিক্ষার্থীরা।

হানিমুন হলো না আঁখি-মেহেদীর

বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া): বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রূপসদী গ্রামের দক্ষিণ পাড়ার মো. রফিকুল ইসলামের (পেশকার) মেয়ে আঁখি মনি (২৫) হানিমুন করতে গিয়ে স্বামীসহ বিমান দুর্ঘটনায় মারা যান। তাদের দাম্পত্য জীবন ছিল মাত্র ১০ দিনের। চলতি মাসের ৩ তারিখে ধানমন্ডিতে বসবাসরত কুমিল্লা জেলার তিতাস উপজেলার বাতাকান্দি গ্রামের মেহেদী হাসানের (৩০) সঙ্গে আঁখি মনির  বিয়ে হয় । আঁখি মনির পিতা পরিবার পরিজনসহ ঢাকার রামপুরায় বসবাস করে ।

মেডিক্যাল ছাত্র পিয়াসের জন্য প্রদীপ প্রজ্বালন

গোপালগঞ্জ: গোপালগঞ্জ শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজের শেষ বর্ষের ছাত্র ভ্রমণ পিপাসু পিয়াস রায় শাখা ছাত্রলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন। সন্ধ্যায় পিয়াস স্মরণে ক্যাম্পাসে প্রদীপ প্রজ্বালন করা হয়। গত ৫ মার্চ পিয়াসের ফাইনাল পরীক্ষা শেষ হয়েছে। বরিশাল অফিস জানায়, পিয়াসের মৃত্যুতে তার গ্রামের বাড়ি বাকেরগঞ্জ উপজেলার দাড়িয়াল ইউনিয়নের মধুকাঠি গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে। তার বাবা সুখেন্দু বিকাশ রায় ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার চন্দ্রকান্দা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও মা পূর্ণা রানি মিস্ত্রি বরিশাল সরকারি পলিটেকনিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। তারা বরিশাল নগরের নতুন বাজারস্থ মথুরানাথাত পাবলিক স্কুল সংলগ্ন বহুতল একটি ভবনের চতুর্থতলার একটি ফ্লাটে বসবাস করেন।

বিমানে চড়তে ভয় পেতেন বিলকিস

রাজশাহী: রাজশাহীর শিরোইলের বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত যুগ্ম সচিব হাসান ইমাম ও তার স্ত্রী সাবেক শিক্ষিকা নাহার বিলকিস বানু দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। বিলকিসের ভাই রাজশাহী বরেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ আলমগীর মালেক জানান, তাদের দুই ছেলেই কানাডা থাকে। তার বোন উড়োজাহাজে চড়তে ভয় পেতেন। এ কারণে তিনি কখোনই কানাডায় যাননি। এবারই প্রথম তিনি উড়োজাহাজে চড়ে নেপাল বেড়াতে যাচ্ছিলেন। প্রকৌশলী রকিবুলের গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার বাঘুটিয়া গ্রামে। তার স্ত্রী হাসির বাড়ি টাঙ্গাইলে। রুয়েটের কম্পিউটার সায়েন্স থেকে পাশ করে সেখানেই শিক্ষক হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন হাসি। তার স্বামী একই বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। রকিবুল ঢাকায় একটি বেসরকারি সফটওয়ার কোম্পানিতে চাকরি করতেন।

অবসরপ্রাপ্ত দম্পতির ছিল প্রথম বিদেশ ভ্রমণ

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ): বিমান দুর্ঘটনায় নিহত নজরুল ইসলাম (৬৫) ও আক্তারা বেগম (৬০) দম্পতি সমপ্রতি অবসরে যান। গোমস্তাপুর উপজেলার বাঙ্গাবাড়ি ইউনিয়নের নজরুল  রাজশাহীর উপশহরে বাস করতেন। মুক্তিযোদ্ধা নজরুল বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক, রাজশাহীর আঞ্চলিক শাখার ব্যবস্থাপক ছিলেন। তার স্ত্রী ছিলেন রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজের শারীরিক শিক্ষা বিষয়ক শিক্ষক।

ছেলে-নাতনি হারানোর আশঙ্কায়

মূর্ছা যাচ্ছেন ফিরোজা বেগম

শ্রীপুর (গাজীপুর): ফারুক হোসেন ও তার তিন বছর বয়সী কন্যা প্রিয়ংময়ী তামাররার এখন পর্যন্ত কোনো খোঁজ মেলেনি। পরিবারের একমাত্র বেঁচে থাকা সদস্য ফারুকের মা ফিরোজা বেগম। বুকের একমাত্র ধন হারানো আশঙ্কায় বার বার মূর্ছা যাচ্ছেন।

আলিফকে নিয়ে উদ্বিগ্ন স্বজনরা

খুলনা: কখন ফিরবে আলিফ সে অপেক্ষায় রয়েছে তার স্বজনরা। বিমান দুর্ঘটনার খবর পেয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৮টার ফ্লাইটে তার খালু শাহাবুর রহমান নেপালের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। আলিফের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা এখনো তারা জানতে পারেননি। রূপসা উপজেলার আইচগাতী গ্রামের বারো পূণ্যের মোড়ের বাড়ির সামনে আলিফের জন্য অপেক্ষা করছেন তার আত্মীয়-স্বজন ও এলাকাবাসী। গতকাল রাত ৮টা পর্যন্ত তার কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৯ জুন, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১২:০০
আসর৪:৪০
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৬
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬