রাজধানী | The Daily Ittefaq

ইস্কাটনে ফ্ল্যাট থেকে ১০ কোটি টাকা উদ্ধার, মালিক লাপাত্তা

ইস্কাটনে ফ্ল্যাট থেকে ১০ কোটি টাকা উদ্ধার, মালিক লাপাত্তা
ইত্তেফাক রিপোর্ট২৬ এপ্রিল, ২০১৮ ইং ১৮:৫৬ মিঃ
ইস্কাটনে ফ্ল্যাট থেকে ১০ কোটি টাকা উদ্ধার, মালিক  লাপাত্তা
রাজধানীর ইস্কাটনের একটি ফ্ল্যাট থেকে গত বুধবার ১০ কোটি টাকা উদ্ধারের পর এখন এই টাকার উৎস খুঁজছে র‌্যাব। পাশাপাশি টাকা উদ্ধারের আগ থেকেই মালিক মোরারফ হোসেন লাপাত্তা। তাকেও খোঁজা হচ্ছে। 
 
গার্মেন্ট ব্যবসায়ী মোশারফ এতো টাকা কেন বাসায় রেখেছিলেন সে প্রশ্নের কোনো জবাব দিতে পারেনি তার পরিবার। র‌্যাব বলছে, এই টাকা সন্ত্রাসীদের অর্থায়নের জন্য মজুদ করে রাখা হয়েছিল। আপাতত এমন তথ্যই গোয়েন্দা মাধ্যমে পাওয়া গেছে। 
 
র‌্যাব-২ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল আনোয়ারুজ্জামান ইত্তেফাককে বলেন, ‘গোয়েন্দাদের মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে আমরা খবর পাই ইস্কাটনের একটি বাসায় কিছু টাকা মজুদ করা হচ্ছে। টাকা পরিমাণ এবং কেন এই টাকা মজুদ করা হচ্ছে সে বিষয়ে আমরা কিছু জানতে পারিনি। এভাবে কয়েকদিন নজরদারি করার পর মঙ্গলবার গভীররাতে (বুধবার ভোররাতে) ওই বাসায় যাই আমরা। সেখানে বাসায় মোশারফের পরিবারের লোকজন ছিলেন। তাদের অনুমতি নিয়েই বাসায় তল্লাশি চালানো হয়। বাসার বিভিন্ন জায়গা থেকে ট্রলি ব্যাগে এই টাকা পাওয়া যায়। ১০ কোটি টাকার মধ্যে ৩ কোটি ৩০ লাখ টাকা ১ হাজার টাকার নোট এবং বাকি ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা ৫০০ টাকার নোট। আমরা বিল্ডিংয়ের অন্যান্য লোকজনকে স্বাক্ষী রেখে টাকাটা রমনা থানায় জমা দিয়েছি। এখন মালিক যদি টাকা বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেন তাহলে আদালতের মাধ্যমে তিনি টাকা পেয়ে যাবেন। তবে আমরা জানতে পেরেছি সন্ত্রাসী বা রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডে ব্যবহারের জন্য এই টাকা তারা মজুদ করেছিলেন।’ 
 
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইস্কাটনের ইস্কাটন গার্ডেন এপার্টমেন্টের ১১ তলার ১০০২/৪১ নম্বর ফ্ল্যাটের মালিক মোশারফ হোসেন। তিনি একজন গার্মেন্টস ব্যবসায়ী। ওই এপার্টমেন্টে গেলে কেউ কথা বলতে রাজি হননি। তবে নিরাপত্তাকর্মীরা জানিয়েছেন, মোশারফ হোসেন এখন দেশের বাইরে আছেন। তার কোন রাজনৈতিক পরিচয় জানা যায়নি। 
 
লে. কর্নেল আনোয়ারুজ্জামান বলেন, এতো টাকা তিনি কেন বাসায় রাখলেন সেটা একটা রহস্য। পাশাপাশি টাকা উদ্ধার অভিযানের পর থেকে তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি পলাতক। তার পরিবারের কেউ টাকার উৎস বা তার অবস্থান সম্পর্কেও কিছু বলতে পারছেন না। 
 
টাকা উদ্ধারের পর গত বুধবার র‌্যাব-২ এর পুলিশ পরিদর্শক রুহুল কুদ্দুস বাদি হয়ে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মোশারফ হোসেনের বিরুদ্ধে একটা মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আলামত হিসেবে এই ১০ কোটি টাকা থানায় জমা দেয়া হয়েছে।
 
ইত্তেফাক/ইউবি

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫৩
আসর৪:১৬
মাগরিব৬:০১
এশা৭:১৩
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৬