রাজধানী | The Daily Ittefaq

সড়কে গাড়ির চাপ কিছু স্থানে যানজট

সড়কে গাড়ির চাপ কিছু স্থানে যানজট
ঘরমুখো মানুষের স্রোত কমলাপুরে, বিলম্বে ছাড়ছে ট্রেন
বিশেষ প্রতিনিধি১৯ আগষ্ট, ২০১৮ ইং ০১:৫০ মিঃ
সড়কে গাড়ির চাপ কিছু স্থানে যানজট

ঈদের ছুটি কাটাতে বাস-ট্রেনসহ বিভিন্ন যানবাহনে ঢাকা ছাড়ছেন অগণিত মানুষ। গতকাল শনিবার রাজধানীর বাস টার্মিনালগুলোতে যাত্রীদের চাপ তেমন না থাকলেও মহাসড়কে বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয় যানজট। পরিবহন সংশ্লিস্টরা জানিয়েছেন, আজ থেকে সড়কে গাড়ির চাপ আরো বাড়বে। ফলে যানজট ভয়াবহ আকার ধারণ করার আশঙ্কা রয়েছে। এদিকে ঈদযাত্রার দ্বিতীয় দিনে গতকাল কমলাপুরে ঘরমুখো ট্রেনযাত্রীদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। তবে গতকালও কয়েকটি ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় হয়েছে।

আগামী ২২ আগস্ট সারাদেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। সরকারি ছুটি আগামী মঙ্গলবার থেকে শুরু হবে। মাঝে রবি ও সোমবার অফিস-আদালত খোলা থাকবে। তবে অনেকেই এই দুইদিন ছুটি নিয়ে আগেভাগেই বাড়ির পথ ধরতে শুরু করেছেন।

হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি আতিকুল ইসলাম বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম সড়কে সকালের দিকে যানবাহনের চাপ ছিল বেশি। এটাকে যানজট বলা যাবেনা, গাড়ির গতি ছিল কিছুটা কম। তবে দুপুরের পর থেকে পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়। ঢাকা-সিলেট, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে কোন ধরনের সমস্যা ছিলনা। ঢাকা- টাঙ্গাইল সড়কে দু’একটি স্থানে গাড়ির চাপ বেশি ছিল। তবে গাড়ি চলাচলে কোন সমস্যা হয়নি। দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাটেও গাড়ির চাপ ছিল বেশি। তিনি আরো বলেন, আজ দুপুরের পর থেকে মহসড়কে গাড়ির চাপ বাড়বে। এ কারণে কোন কোন স্থানে যানজট হবার আশঙ্কা রয়েছে।

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর প্রতিনিধি জানান, গতকাল ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গাজীপুরের চন্দ্রায় থেমে থেমে চলেছে যানবাহন। গাজীপুর প্রতিনিধি জানান, ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কের চান্দিনা চৌরাস্তা, বোর্ডবাজারসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় যানজট না থাকলেও গাড়ি চলেছে ধীর গতিতে। গাজীপুর হাইওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফাজ্জাল হোসেন বলেন, গাড়ির বাড়তি চাপ এবং অপ্রশস্ত রাস্তার কারণে সামান্য যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। সিরাজগঞ্জে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কেও যানবাহনের বাড়তি চাপ রয়েছে।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার (এসপি) সঞ্জিত কুমার রায় জানান, ঈদযাত্রায় মহাসড়ক যানজটমুক্ত রাখতে পুলিশ প্রশাসন সার্বক্ষণিক মহাসড়কে অবস্থান করবে। ইতোমধ্যে মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশ সদস্যরা দায়িত্বে রয়েছেন।

কুমিল্লা প্রতিনিধি জানান, গতকাল সকাল দশটার দিকে দাউদকান্দি টোল প্লাজার দুপাশে চট্টগ্রাম অভিমুখী প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকায় যানজট তৈরি হয়। অপরদিকে ঢাকামুখী অংশে ছিল প্রায় আট কিলোমিটার যানজট। তবে দুপুরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও দাউদকান্দির মুন্সিগঞ্জ এলাকায় বিকালে তৈরি হয় যানজট।

হানিফ পরিবহনের জিএম মোশাররফ হোসেন বলেন, রাস্তায় যানজটের কারণেই গাড়ি নির্ধারিত সময়ে আসতে বিলম্ব হচ্ছে।  তিনি বলেন, গতকাল পর্যন্ত টার্মিনালে যাত্রীর চাপ বাড়েনি। আজ থেকে যাত্রীর চাপ বাড়বে। তা সত্বেও ঢাকা-টাঙ্গাইল সড়কে চান্দুরা, নবীনগর, এলেঙ্গা ও হাটুভাঙ্গা এলাকায় গতকাল সকাল থেকেই যানজট তৈরি হয়। তবে দুপুরের পর পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়। তিনি আরও বলেন, আজ থেকে সড়কে গাড়ির চাপ বাড়ার ফলে যানজট তীব্র আকার ধারণ করার আশঙ্কা রয়েছে। দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ফেরি পারাপারে ১৪-১৫টি বাস আটকে আছে তাদের। তবে পর্যাপ্ত বাস থাকায় আধা ঘণ্টা পর পর বাস ছাড়ছে বলে তিনি জানান।

বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও শ্যামলী পরিবহনের এমডি রমেশ চন্দ্র ঘোষ বলেন, চালকের লাইসেন্স ও গাড়ির ফিটনেস তল্লাশির কারণে ঈদের সময় সড়ক-মহাসড়কে পর্যাপ্ত বাস চলাচল নিয়ে পরিবহনে একটা অস্থিরতা ছিল। এর ফলে ঈদের সময় বাসে করে যারা বাড়ি ফিরবেন তাদেরকে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হবে বলে আশঙ্কা ছিল। তবে বিষয়টি নিয়ে মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দ ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। আশা করি বাসযাত্রায় তেমন সমস্যা হবে না।

এদিকে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ), সিটি কর্পোরেশন, পুলিশ ও পরিবহন মালিক সমিতির যৌথ উদ্যোগে প্রতিবছরের নেয় এবারও বাস টার্মিনালগুলোতে যাত্রীদের ভোগান্তি কমাতে ‘ভিজিলেন্স টিম’ কাজ করছে। গাবতলী বাস টার্মিনালের ভিজিলেন্স টিমের পরিদর্শক ফয়সাল হাসান বলেন, এখনো সরকারি ছুটি শুরু হওয়ার একদিন বাকি, তাই যাত্রীদের চাপ বেশ কম। তবে আস্তে আস্তে চাপ বাড়বে।

রাজধানীর কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে বিলম্বে ট্রেন ছেড়ে যাবার বিষয় স্টেশনের ম্যানেজার সীতাংশু চক্রবর্তী বলেন, ঈদে প্রতিটি স্টেশনে অতিরিক্ত যাত্রী ওঠানামা করে, ফলে অতিরিক্ত সময়ের জন্য ট্রেন কিছুটা দেরিতে পৌঁছায়। আর যে ট্রেনগুলো বিলম্বে আসে সেই ট্রেনগুলো বিলম্বেই ছেড়ে যায়। তবে আমরা চেষ্টা করছি সব ট্রেনের শিডিউল ঠিক রাখতে। তিনি আরও বলেন, গতকাল তেজগাঁওয়ে একটি ট্রেনের ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে যাওয়ায় প্রায় ১ ঘণ্টা চলাচল বন্ধ ছিল, যার প্রভাব অন্য ট্রেনগুলোর উপর পড়েছে। ফলে বাকি ট্রেনগুলো কমলাপুর থেকে বিলম্বে ছেড়ে গেছে। গতকাল চারটি বিশেষ ট্রেনসহ ৬৮ টি ট্রেন কমলাপুর ছেড়ে যায় বলে তিনি জানান।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩৪
যোহর১১:৫১
আসর৪:১১
মাগরিব৫:৫৪
এশা৭:০৭
সূর্যোদয় - ৫:৪৮সূর্যাস্ত - ০৫:৪৯