সংস্কৃতি | The Daily Ittefaq

শিল্পকলার মঞ্চে ওড়িশী নৃত্যের মুখর সন্ধ্যা

শিল্পকলার মঞ্চে ওড়িশী নৃত্যের মুখর সন্ধ্যা
ইত্তেফাক রিপোর্ট০৯ এপ্রিল, ২০১৭ ইং ০০:৪৬ মিঃ
শিল্পকলার মঞ্চে ওড়িশী নৃত্যের মুখর সন্ধ্যা

ওড়িশী প্রাচীনতম ভারতীয় নৃত্যকলা। পুরীর জগন্নাথ মন্দির থেকে জন্ম নেওয়া এ নৃত্যশৈলী এখন ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বব্যাপী। স্বনামধন্য শিল্পী প্রমা অবন্তীর গ্রন্থনায় ওড়িশী নাচের পরিবেশনায় মাতাল দর্শকরা। ত্রিভঙ্গি আশ্রিত এ নৃত্যে রয়েছে নানা পর্ব- মঙ্গলাচরণ, শিবন্দনা, বটু আর সবশেষে মোক্ষ। অপূর্ব এ নৃত্যের দারুণ এক পরিবেশনা হয়ে গেল গতকাল শনিবার। চট্টগ্রামের ওড়িশী অ্যান্ড টেগোর ডান্স মুভমেন্ট সেন্টারের ষোড়শ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে শিল্পীরা পরিবেশন করেন ওড়িশী নৃত্য। গ্রন্থনা, ভাবনা ও নৃত্য নির্মিতিতে ছিলেন প্রমা অবন্তী। আয়োজনে সহযোগিতা করছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়, শিল্পকলা একাডেমি ও চট্টগ্রামে ভারতীয় ডেপুটি হাইকমিশন।

শিল্পকলা একাডেমি জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে এ আয়োজনে অতিথি ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী, কলকাতার ‘গুঞ্জনে’র পরিচালক গুরু পৌষালী মুখার্জী ও ইন্ধিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টারের পরিচালক জয়শ্রী কুণ্ডু। সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রামের ওড়িশী অ্যান্ড টেগোর ডান্স মুভমেন্ট সেন্টারের সভাপতি অধ্যাপক ড. অনুপম সেন। এ আয়োজনে বরেণ্য ছয় নৃত্যশিল্পীকে জানানো হয় সম্মাননা। সম্মাননাপ্রাপ্তরা হলেন: আমানুল হক, মীনু হক, সাজু আহমেদ, শর্মিলা বন্দোপাধ্যায়, মুনমুন আহমেদ ও তামান্না রহমান।

আলোচনা ও সম্মাননা শেষে শুরুতেই ওড়িশী নৃত্যকলার রীতি অনুযায়ী ছিল মঙ্গলাচরণ। জগতের মঙ্গল কামনায় শুরু হয়ে মহাদেব শিবের বন্দনায় পরিবেশিত হয় ‘শিব-বন্দনা’। এরপর ছিল বটু, তারপরেই ‘আজি দক্ষিণ পবনে’ শিরোনামে রবীন্দ্রনৃত্য। এরপর রাগ আরবী, তাল একোতালি ও চার মাত্রার পল্লবী। রাগ যুগ্মদণ্ড এবং রাগ সাবেরী ও একোতালি তালে আরেকটি পল্লবী পরিবেশিত হয়। এরপর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পূজা পর্যায়ের ভাঙা গান ‘মন্দিরে মম’র সঙ্গে নৃত্যশিল্পীরা এক তাল ও বারো মাত্রায় নৃত্য পরিবেশন করেন। এরপর ‘কহিগলে মুরালি ফুঁক্ষা’   শিরোনামে ছিল অভিনয় নৃত্য। সবশেষে মোক্ষ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শেষ হয় প্রথম দিনের আয়োজন। পরিবেশনায় অংশ নেওয়া শিল্পীরা হলেন: তন্বী দাশ, নিবিড় দাশগুপ্তা, জয়িতা দত্ত, তুষি শর্মা, দিয়া দাশ গুপ্তা, ময়ূখ সরকার, রিয়া বড়ুয়া, কান্তা দাশ, অর্জিতা সেন চৌধুরী, রাইমা মল্লিক, মৈত্রী চক্রবর্তী, মৃত্তিকা ধর, অজয়িতা বড়ুয়া, জান্নাতুল নাঈম মুক্তা, তাহিয়া তানভীন দিহান, আফসানা ইকবাল হিয়া, সঙ্গীতা ভট্টাচার্য, প্রাচী বড়ুয়া, স্মিতা সিংহ, পারমিতা দাশ ও অভ্র বড়ুয়া।

আজ রবিবার উত্সবের শেষদিন সন্ধ্যায় থাকছে জাতীয় কবি কাজী নজরুলের জীবনভিত্তিক গীতিআলেখ্য ‘বাঁশরী ও তূর্য হাতে কবি’। এরও গ্রন্থনা, পরিকল্পনা ও নির্দেশনায় রয়েছে প্রমা অবন্তী। এ আয়োজনে অতিথি থাকবেন নজরুল গবেষক ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম।

মৌ-এর নৃত্যে আসছে মহুয়া

মৈমনসিহ গীতিকার বিখ্যাত পালা ‘মহুয়া’। নৃত্যলোক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র তাদের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে আগামী ২১ ও ২২ এপ্রিল মহুয়া নৃত্যনাট্য মঞ্চস্থ করবে। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় হবে এ আয়োজন। এই নৃত্যনাট্যের কেন্দ্রীয় চরিত্র রূপায়ন করেছেন নৃত্যশিল্পী সাদিয়া ইসলাম মৌ। খ্যাতিমান সঙ্গীত পরিচালক আলাউদ্দীন আলী এতে সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন। সঙ্গীত আয়োজনে আলী আশরাফ ও গৌতম দাস। কবিরুল ইসলাম রতনের নৃত্য পরিকল্পনা।

এ উপলক্ষে গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে মহুয়া নৃত্যনাটকটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট উপস্থিত ছিলেন নৃত্যশিল্পী জিনাত বরকতউল্লাহ, দীপা খন্দকার, অভিনেতা রহমত আলী, সাদিয়া ইসলাম মৌ, নৃত্যলোক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পরিচালক কবিরুল ইসলাম রতন, কণ্ঠশিল্পী কিরণ চন্দ্র রায়, চন্দনা মজুমদার প্রমুখ।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৭ জুন, ২০১৭ ইং
ফজর৩:৪৫
যোহর১২:০২
আসর৪:৪২
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১৩সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭