সংস্কৃতি | The Daily Ittefaq

শিল্পকলায় রবী-কাদম্বরী আখ্যান

শিল্পকলায় রবী-কাদম্বরী আখ্যান
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৪ মে, ২০১৭ ইং ২৩:৪৩ মিঃ
শিল্পকলায় রবী-কাদম্বরী আখ্যান

পাঠকের মনে রবীন্দ্রনাথ ও কাদম্বরী দেবীর সম্পর্ক রহস্যঘেরা এবং রোমান্টিকতায় আচ্ছন্ন। তাদের দুজনের সম্পর্ক প্রথাগত বউদি-দেবরের ছিলো না। তা বিরাজ করতো অন্য মাত্রায়। ধারণা করা হয়, কাদম্বরী দেবী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নতুন কাব্যচর্চার সন্ধানে আগ্রহী করেছিলেন। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর আধুনিক কবিতা লেখা শুরু করেছিলেন বউদি কাদম্বরী দেবীর সংস্পর্শে এসে।

রহস্যময় এ সম্পর্ককে নতুন করে মঞ্চে এনেছে তুরঙ্গমী রেপার্টরি ড্যান্স থিয়েটার। সঙ্গীতের সঙ্গে নৃত্য, এর সঙ্গে আরও মিলেছে আবৃত্তি, মাইম, চিঠি, চিত্র, মার্শাল আর্টসসহ আরও অনেক কিছু। সবকিছুর সম্মিলনে এ আয়োজনের শিরোনাম ছিল ‘ওয়াটারনেস’। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে ছিল এর প্রদর্শনী।

সেইসঙ্গে উঠে এসেছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবনের ছায়া অবলম্বনে এ গীতিনৃত্যনাট্যের মূল অনুপ্রেরণা কাদম্বরী দেবী। রবীন্দ্রসৃজনে বারবার উঠে এসেছে নদী ও জল। ‘ওয়াটারনেস’- এ রবীন্দ্রনাথের গান, চিঠি, চিত্র ব্যবহারের পাশাপাশি রয়েছে তাঁর জীবনে প্রভাব ফেলা তিন নারী কাদম্বরী, মৃণালিনী ও ইন্দিরা দেবীর ছায়াও। বাংলা ও ইংরেজি দুটি ভাষায় এতে দেখানো হয়েছে জল ও নারীর অন্তর্গত সম্পর্ক।

‘ওয়াটারনেস’র পান্ডুলিপি লিখেছেন ধীমান ভট্টাচার্য। এর মূল ভাবনা, নকশা, নৃত্য পরিচালনা ও নির্দেশনা নৃত্যশিল্পী পূজা সেনগুপ্তের। ওয়াটারনেস পরিবেশনায় অংশ নেন পূজা সেনগুপ্ত, নবনীতা দেব, আতিক রহমান, ইয়াসনা রহমান প্রমুখ।

শওকত ওসমান স্মরণ অনুষ্ঠান:শওকত ওসমান স্মরণে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, শওকত ওসমান যে অসামপ্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখিয়েছেন তা এখনও আমাদের ধরাছোঁয়ার বাইরে। তাঁর সেই অসামপ্রদায়িক, গণতান্ত্রিক এবং ধর্মনিরপেক্ষ বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে আমাদের প্রত্যেকেরই চেষ্টা করে যেতে হবে।

গতকাল রবিবার শওকত ওসমানের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে কথাশিল্পী শওকত ওসমান স্মৃতি পরিষদ জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। আলোচনায় অংশ নেন সাহিত্যিক সাংবাদিক আনিসুল হক, শওকত ওসমানের ছেলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। সভাপতিত্ব করেন ভাষা-সংগ্রামী রবীন্দ্র গবেষক আহমদ রফিক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন স্মৃতি পরিষদের সাধারন সম্পাদক ডা. রাকিবুল ইসলাম লিটু।

আহমদ রফিক বলেন, শওকত ওসমান ছিলেন আমাদের চেতনার বাতিঘর। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে তার আদর্শ ছড়িয়ে দেয়া উচিত্। আমি চাই আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম শওকত ওসমানের সাহিত্য ও শিল্পের ধারা যেন সুষ্ঠুভাবে বহন করে। তার সাহিত্য কর্মের মধ্য দিয়ে তিনি আজীবন বেঁচে থাকবেন।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২১ নভেম্বর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৫৮
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০