সংস্কৃতি | The Daily Ittefaq

শাস্ত্রীয় সংগীতে মুখর ছায়ানট

শাস্ত্রীয় সংগীতে মুখর ছায়ানট
আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস উপলক্ষে সাত দিনের অনুষ্ঠান শুরু
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৯ মে, ২০১৭ ইং ০০:০৯ মিঃ
শাস্ত্রীয় সংগীতে মুখর ছায়ানট

আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস উপলক্ষে জাতীয় জাদুঘরের সাত দিনের অনুষ্ঠানমালা ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন হয় বৃহস্পতিবার সকালে।  জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠানমালা ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

আলোচনা শেষে জাদুঘরে সংরক্ষণের জন্য দাতাদের কাছ থেকে শতাধিক বিভিন্ন নিদর্শন গ্রহণ করেন সংস্কৃতিমন্ত্রী। এর মধ্যে ছিল হযরত উসমানের (রা.) সময়ের হাতে লেখা দুর্লভ কোরআন শরিফ ‘মাসহাফে উসামানি’। বিশ্বে এ ধরনের কোরআনের ৫টি কপি রয়েছে বলে জানা গেছে। এটি এতদিন সংরক্ষিত ছিল ইসলামী ফাউন্ডেশনে। আরো ছিল বাংলা সাময়িকপত্র সওগাত ও বেগম পত্রিকার কপি।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে একই ভেন্যুতে ছিল দিবসের প্রতিপাদ্য ‘জাদুঘরে হতে পারে বিতর্কিত ইতিহাসের অভয়ারণ্য’ শীর্ষক আলোচনা সভা। সন্ধ্যায় কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে ছিল সংগীতসন্ধ্যা। জাদুঘরের নলিনীকান্ত ভট্টশালী প্রদর্শনালয়ে নিদর্শনমালার বিশেষ প্রদর্শনীতে রয়েছে মহাস্থানগড়ের হাজার বছর আগের অনেক পুরাকীর্তি। মহাস্থানের বাসুবিহার এবং ময়নামতির আনন্দবিহার ও ভবদেব বিহারের পোড়ামাটির ফলকে দৈনন্দিন জীবন ও প্রকৃতিনির্ভর শিল্পকর্মের দেখা মিলবে এ প্রদর্শনীতে।

শাস্ত্রীয় সংগীতে মুখর ছায়ানট

সংগীতের ভিত্তি উচ্চাঙ্গ সংগীত। উচ্চাঙ্গ সংগীতে গুরু-শিষ্য পরম্পরা খুব গুরুত্বপূর্ণ। যুগ-যুগ ধরে গুরু-শিষ্য পরম্পরায় এ সংগীতের ধারা এখনো এ দেশে বহমান। এ ধারা অব্যাহত রাখতে হলে নতুন প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ ও সংশ্লিষ্ট করতে হবে উচ্চাঙ্গ সংগীত শিক্ষা ও চর্চায়। বেঙ্গল ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘প্রাণের খেলা’য় উচ্চাঙ্গ সংগীত সন্ধ্যাটি ধ্রুপদী সুরে ভরিয়ে দিলেন শিল্পীরা। ছায়ানট মিলনায়তনে বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের নিয়মিত আয়োজনে গতকাল দলীয় ধ্রুপদ পরিবেশন করেন ড. অসিত রায় ও তার সংগঠন ‘ষড়জ-পঞ্চম’। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে মর্তুজা কবীর মুরাদ ও তার সংগঠন ‘আরোহ’-এর দলীয় বাঁশি বাদনও মন ভরিয়ে দেয় শ্রোতাদের।

ফরিদ কবিরের আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠান

কবি ফরিদ কবিরের আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ ‘আমার গল্প’-এর প্রকাশনা উত্সব অনুষ্ঠিত হলো গতকাল। আগামী প্রকাশনী থেকে বেরিয়েছে গ্রন্থটি। বৃহস্পতিবার বিকালে বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার হলে এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। মূলত বইটিতে যাদের কথা উঠে এসেছে তারা ও লেখকের শুভাকাঙ্ক্ষীরাই  ছিলেন অনুষ্ঠানের অতিথি। তাই প্রচলিত ধারায় প্রকাশনা অনুষ্ঠানে ছিল না কোনো প্রধান বা বিশেষ অতিথি। অনুষ্ঠানে বইটি নিয়ে আলোচনায় অংশ নেন নাঈমুল ইসলাম খান, কবি আবু হাসান শাহরিয়ার, নাসির আহমেদ, ড. মাসুদুজ্জামান, জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশনা সমিতির সভাপতি মাজহারুল ইসলাম, ড. মাসুদ-উজ-জামান, দ্বিজেন রায়, আগামী প্রকাশনীর প্রকাশক ওসমান গনি প্রমুখ। অনুভূতি ব্যক্ত করেন বইটির লেখক ফরিদ কবির। সাইফুল ইসলামের প্রচ্ছদে বিন্যস্ত ৪৩২ পৃষ্ঠার গ্রন্থটির মূল্য ৮০০ টাকা।

অটিস্টিক শিশুদের নৃত্যনাট্যে বাংলাদেশের অভ্যুদয়

যারা পরিবেশনায় অংশ নিয়েছে তারা প্রত্যেকেই বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশু। যাদেরকে অটিস্টিক বলা হয়। সাধারণ আর দশটা শিশুর মতো তারাও যে মেধা দিয়ে জয় করে নিতে পারে সবকিছু তারই দেখা মিলল বৃহস্পতিবার। নৃত্যনাট্য পরিবেশনার মধ্য দিয়ে তারা তুলে ধরেন ১৯৪৭ সালে দেশভাগ থেকে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের প্রতিটি আখ্যান। পিএফডিএ-ভোকেশনাল ট্রেনিং সেন্টারের আয়োজনে এ নৃত্যনাট্যের শিরোনাম—‘মানচিত্রের জন্য’। প্রধান সমন্বকারী ছিলেন সাজিদা রহমান ড্যানি। নির্দেশক ছিলেন মারিয়াম সারাহ এবং সহকারী নির্দেশক ছিলেন মুক্তা রানী ঠাকুর ও শিহাব শাহরিয়ার।
ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৩৩
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৩
মাগরিব৫:৫৭
এশা৭:১০
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫২