সংস্কৃতি | The Daily Ittefaq

সানিডেলে ‘মার্চেন্ট অফ ভেনিস’ মঞ্চায়ন

সানিডেলে ‘মার্চেন্ট অফ ভেনিস’ মঞ্চায়ন
চারুকলায় প্রাচ্যচিত্রের প্রদর্শনী
ইত্তেফাক রিপোর্ট১০ অক্টোবর, ২০১৭ ইং ০০:৪২ মিঃ
সানিডেলে ‘মার্চেন্ট অফ ভেনিস’ মঞ্চায়ন

ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল সানিডেলের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় মঞ্চস্থ হলো উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের সাড়া জাগানো নাটক ‘মার্চেন্ট অফ ভেনিস’। গতকাল শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে এ নাটকের উদ্বোধনী মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হয়। তৌফিকুল আলমের নির্দেশনায় এতে সানিডেল-এর ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা অভিনয় করেছে। উদ্বোধনী মঞ্চায়নে স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের মূল চিত্রনাট্যকে অবলম্বন করে ইংরেজি ভাষায় মঞ্চায়িত হয়েছে নাটকটি। কিশোর অভিনয় শিল্পীরা তাদের অনবদ্য অভিনয় দিয়ে প্রাণবন্ত করে তুলেছিলেন নাটকটি।

এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছে অপ্রতিম মজুমদার, সামাইন ইলহাম আহমেদ, ফারিসা নূর, অনীশ অমর্ত্য সাহা, আকিফুর রহমান সময়, শাতিল মনিরত্নম, অদম্য স্বাপ্নিক মনসুর, নিশাত তাসনিম নোশিন, আনবারিন পারিসা স্বাধীনতা, অনন্য সৈয়দ হক, ইশরাক কবীর        দেশ, রিয়াসাত আয়ান মুখর, সাফওয়ান আজিজ, মাহদিব রহমান, নিয়ার হাসান, সৈয়দ শারবিন সাহা, সাবরিনা জেসিকা হাসান, জায়ানা আশরাফ আকাংখা, রামিনাস সামাদ খান ও মুহতাসিম জামান খান। এছাড়া, নাটকে ব্যবহূত নাচে অংশ নিয়েছেন প্রমিতা রায় চৌধুরী, সপ্তদীপা শ্বাশ্বতী, শ্রেয়াসি চক্রবর্তী, মেরাজ নাহিদ খান, মো: রিফাত জলিল ও রাইয়ান জাফির বারী। সঙ্গীতে কণ্ঠ দিয়েছেন আরিবা আফজাল, রাইদা মানার জোয়ার্দার, সারাফ ইবনাত হাসান, স্নেহা মনীষা, ফাইজা হক ও মাহিবা মুশাররাত।

আজ মঙ্গলবার এ নাটকের দ্বিতীয় প্রদর্শনী একই মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে।

চারুকলায় প্রাচ্যচিত্রের প্রদর্শনী

খুবই সহজবোধ্য চিত্রকর্মটি। ক্যানভাসের উপর কাপড়ের পেস্টের উপর জলরঙে আঁঁকা ফুল গাছের ছবি। ১৯৪৩ সালে শিরোনামহীন এ ছবিটি এঁকেছেন ভারতের প্রখ্যাত চিত্রকর বিনোদ বিহারী মুখোপাধ্যায়। একটু সামনেই একটি ছবি সামিনা জামানের ‘মাইগ্রেশন’; যা আঁঁকা চলতি বছরে।

শিল্পকলায় গতকাল সোমবার শুরু হয়েছে প্রাচ্যকলার চিত্রকর্মের প্রদর্শনী। এতে ভারত ও বাংলাদেশের নবীণ শিল্পীদের পাশাপাশি এ ধারার পুরোধা শিল্পীরাও অংশ নিয়েছেন। এদের চিত্রকর্মে উঠে এসেছে প্রাচ্যচিত্রকলার সমৃদ্ধ ধারা ও ঐতিহ্য। ভারতের ২৬ জন এবং বাংলাদেশের ২৫ জন মোট ৫১জন শিল্পীর প্রাচ্যচিত্রকলার এ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে ওরিয়েন্টাল পেইন্টিং স্টাডি গ্রুপ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের জয়নুল গ্যালারি-১ এ গতকাল থেকে শুরু হওয়া ‘৭ম ওরিয়েন্টাল পেইন্টিং এক্সিবিশন’ শিরোনামের এ আয়োজন চলবে ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত।

গতকাল বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বরেণ্য শিল্পী রফিকুন নবী, কবি নির্মলেন্দু গুণ, ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী, চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন এবং ভারতীয় শিল্পী স্বপন দাস। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ওরিয়েন্টাল পেইন্টিং স্টাডি গ্রুপের কিউরেটর ড. মলয় বালা। আয়োজনের শুরুতেই ‘আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণে’ গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেন চারুকলা অনুষদের প্রাচ্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী নিশাত ফেরদৌস।

প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী শিল্পীদের মধ্যে ১১ জন রয়েছেন ভারতের প্রখ্যাত শিল্পী। যাদের চিত্রকর্ম নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে মাস্টার সিরিজ। এ সিরিজের শিল্পীরা হলেন— বিনোদবিহারী মুখোপাধ্যায়, বীরেন দে, দেবীপ্রসাদ রায় চৌধুরী, গোপাল ঘোষ, ইন্দ্র দুগার, ক্ষিতীন্দ্রনাথ মজুমদার, মানিকলাল ব্যানার্জী, মৃনাল কান্তি দাস, নিখিল বিশ্বাস ও সুধীর খাস্তগীর। সমসাময়িক শিল্পীদের মধ্যে রয়েছেন— অনন্যা রায় চৌধুরী, অনুরাধা গাইন, অপূর্ব সেনগুপ্ত, অর্ঘ দীপ্তকর, বিনয় দেউলি, ইনাক্ষী দাস, মিন্টু নাইয়া, নন্দদুলাল মুখোপাধ্যায়, পরাগ হালদার, রামানন্দ বন্দোপ্যাধায়, রীনা রায়, সোমা মুখোপাধ্যায়, সুকান্ত সাহা, সুস্মিতা সাহা, স্বপন দাস এবং তন্ময় দাসগুপ্ত। বাংলাদেশী শিল্পীদের মধ্যে রয়েছেন- শওকাতুজ্জামান, আব্দুস সাত্তার, অমিত নন্দী, বিকাশ আনন্দ সেতু, ইতি রাজবংশী, ফাহমিদা হক মাহী, হাসুরা আক্তার রুমকী, হরেন্দ্রনাথ রায়, জাঁ-নেসার ওসমান, কান্তিদেব অধিকারী, কাজী নওরীন মিশা, লক্ষণ কুমার সূত্রধর, মলয় বালা, নারগীস পারভীন, নিপা রাণী সরকার, নন্দিতা সুতার, রফিক আহমেদ, সামিনা জামান, শংকর মজুমদার, সুমন কুমার সরকার, সানজিদা আক্তার, সুশান্ত কুমার অধিকারী, তাজুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম এবং জাহিদ মুস্তফা।

প্রদর্শনী আগামী ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত সকাল ১১টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

গঙ্গা-যমুনা নাট্যোত্সবের চতুর্থ দিন

শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার তিন মিলনায়তনে একযোগে চলছে ৭ম গঙ্গা-যমুনা নাট্য ও সাংস্কৃতিক উত্সব। দশ দিনের এ উত্সবের আয়োজন করেছে গঙ্গা-যমুনা নাট্যোত্সব পর্ষদ। গতকাল ছিল এর চতুর্থ দিন। এদিন মুক্তমঞ্চের সাংস্কৃতিক আয়োজনে পথনাটক মঞ্চস্থ করে খেয়ালী নাট্য গোষ্ঠী, দলীয় আবৃত্তি পরিবেশন করে স্বরকল্পন আবৃত্তি চক্র এবং সংবৃতা আবৃত্তি চর্চা ও বিকাশ কেন্দ্র। দলীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে উদীচী ও উজান। দলীয় নৃত্য পরিবেশন করেন বাফার নৃত্যশিল্পীরা।

এর পর জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে ভারতের কলকাতার নাট্যদল গণকৃষ্টি মঞ্চায়ন করে ‘তোমার আমি’ নাটকটি। পরীক্ষণ থিয়েটার হলে আরণ্যক নাট্যদল মঞ্চস্থ করে ‘দি জুবলী হোটেল’ এবং স্টুডিও থিয়েটার হলে নাট্যতীর্থ পরিবেশন করে ‘কমলা সুন্দরী’।

আজ মঙ্গলবার উত্সবের পঞ্চম দিনে জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে বুনন থিয়েটার ‘সিক্রেট অব হিস্ট্রি’, পরীক্ষণ থিয়েটার হলে ঢাকা পদাতিক ‘পাইচো চোরের কিচ্ছা’ এবং স্টুডিও থিয়েটার হলে ম্যাড থেটার পরিবেশন করবে ‘নদ্দিউ নতিম’।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৭ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৪২
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫৩
মাগরিব৫:৩৪
এশা৬:৪৬
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৯