সংস্কৃতি | The Daily Ittefaq

কত্থকের ছন্দময় সন্ধ্যা

কত্থকের ছন্দময় সন্ধ্যা
ইত্তেফাক রিপোর্ট৩০ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং ০০:১৪ মিঃ
কত্থকের ছন্দময় সন্ধ্যা

ছোট্ট শিশুদের নিষ্ঠা ছিল চোখে পড়ার মতো। মাত্র ছয় মাস কত্থক নাচ শিখে মঞ্চে আসাটা যেনতেন বিষয় না। ছোট্ট শিশুরা সেই অসাধ্য সাধনই করেছে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায়। ভারতীয় হাইকমিশনের উদ্যোগে ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টারের পরিচালনায় কত্থক নাচের শিক্ষার্থীরা গতকাল জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে পরিবেশনায় অংশ নেন। খুদে শিক্ষার্থীদের নৃত্যশৈলী মুগ্ধ করে মিলনায়তন ভর্তি দর্শকদের। সে সঙ্গে ছিল তাদের নৃত্যগুরু মুনমুন আহমেদের একক পরিবেশনা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টারের কত্থকের শিক্ষক মুনমুন আহমেদ।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ভাষা নয়, সংস্কৃতির বন্ধনই মানুষকে একীভূত করতে পারে। সংস্কৃতির ভিন্নতার মধ্যেই ঐক্য গড়ে উঠে। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে; কিন্তু এটা দিয়ে তরুণদের বিপথগামিতা থেকে রক্ষা করা যাবে না। তরুণদের সংস্কৃতির প্রতি আকৃষ্ট করার মধ্য দিয়ে জঙ্গিবাদকে প্রতিহত করতে হবে।

হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, সংস্কৃতি সাম্প্রদায়িকতা, মৌলবাদ, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে। কুসংস্কারকে সংস্কৃতির শক্তি দিয়ে পরাজিত করা যায়। ১৯৭১ সালের আন্দোলনে বাংলাদেশে সাংস্কৃতিক জাগরণ প্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে।

কত্থক নৃত্যে প্রধানত রাধা কৃষ্ণের লীলা কাহিনীই রূপায়িত হতো। দীর্ঘকাল ধরে ধর্মীয় উত্সব ও মন্দির কেন্দ্রিক পরিবেশনা হওয়ায় কত্থক নৃত্যের কোনো সুসংহত রূপ গড়ে ওঠেনি। মোঘল আমলে দরবারী সংগীত ও নৃত্যের যুগ সূচিত হলেই কত্থক নৃত্যের একটি সুসংহত রূপ গড়ে ওঠে। কত্থক নৃত্যের সবচাইতে বেশি বিকাশ ঘটে ঊনবিংশ শতাব্দীতে লোখনৌ এর আসাফুদ্দৌলা ও ওয়াজিদ আলী শাহের দরবারকে কেন্দ্র করে। কত্থকের দ্বিতীয় ধারার বিকাশ ঘটে জয়পুর রাজ দরবারে। পরবর্তীকালে বারানসীতেও কত্থকের নৃত্যের বিস্তার ঘটে।

আলোচনা পর্ব শেষে শুরু হয় কত্থক পরিবেশনা। শুরুতেই মুনমুন আহমেদের পরিচালনায় ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কত্থকের শিক্ষার্থীরা পরিবেশনায় অংশ নেয়। শুরুতেই তারা পরিবেশন করেন ‘গুরুবন্দনা’। এর পর তিন তালে টুকরা, পারান্থ, তিহাই, লারি ও উঠান। এর পর ছিল মুনমুন আহমেদের একক পরিবেশনা।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং
ফজর৫:১১
যোহর১২:১৩
আসর৪:২০
মাগরিব৬:০০
এশা৭:১৩
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৫