ঢাকা বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯, ৬ চৈত্র ১৪২৫
২৯ °সে

ভালো ফলে দেশজুড়ে উচ্ছ্বাস

ভালো ফলে দেশজুড়ে উচ্ছ্বাস
জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর আনন্দবন্যা বয়ে যায় নগরীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল প্রাঙ্গণে —রেহেনা আক্তার

জেএসসি ও জেডিসি, পিইসি ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষার ফল গতকাল সোমবার একসঙ্গে প্রকাশিত হয়েছে। প্রায় অর্ধকোটিরও বেশি পরিবারে এখন উচ্ছ্বাস। জাতীয় নির্বাচনের প্রচার প্রচারণার মধ্যেও স্কুলে স্কুলে বইছে আনন্দের বন্যা। ভালো ফল করে নেচে গেয়ে উত্সব করছে শিক্ষার্থীরা। গতবারের চেয়ে এবার উভয় পরীক্ষায় পাসের হার বেড়েছে।

অষ্টম শ্রেণির জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় ৮৫ দশমিক ২৮ শতাংশ এবং জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষায় ৮৯ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছেন। আর জেএসসি ও জেডিসি মিলে পাসের হার দাঁড়িয়েছে ৮৫ দশমিক ৮৩ শতাংশ। গতবার এ হার ছিল ৮৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ। পাসের হার বেড়েছে ২ দশমিক ১৮ শতাংশ। এ বছর জেএসসি-জেডিসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৮ হাজার ৯৫ জন। যা গত বছর ছিল এক লাখ ৯১ হাজার ৬২৮ জন। অর্থাত্ এ বছর জিপিএ-৫ কমেছে ৯৫ হাজার ৭৩১ জন।

অন্যদিকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষায় এবার পাস করেছে ৯৭ দশমিক ৫৯ শতাংশ। আর ইবতেদায়িতে এ হার ৯৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ। দুই পরীক্ষা মিলিয়ে পাসের হার ৯৭ দশমিক ৬০ শতাংশ। গতবার এ হার ছিল ৯৪ দশমিক ০৬ শতাংশ। পাসের হার বেড়েছে ৩ শতাংশেরও বেশি। এছাড়া প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনীতে জিপিএ ৫ গতবারের চেয়ে বেড়েছে।

জেএসসি-জেডিসি, পাসের হার বেড়েছে কমেছে জিপিএ ৫

এবার জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষায় মোট ২৫ লাখ ৯৯ হাজার ১৬৯ জন অংশ নিয়ে পাস করেছে ২২ লাখ ৩০ হাজার ৮২৯ জন।

এরমধ্যে জেএসসিতে অংশ নেয় ২২ লাখ ১৬ হাজার ৯৬১ জন, পাস করেছে ১৮ লাখ ৯০ হাজার ৫১৮ জন। জেডিসিতে ৩ লাখ ৮২ হাজার ২০৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাস করেছে ৩ লাখ ৪০ হাজার ৩১১ জন।

এ বছর জেএসসি-জেডিসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৮ হাজার ৯৫ জন। যা গত বছর ছিল এক লাখ ৯১ হাজার ৬২৮ জন। অর্থাত্ এ বছর জিপিএ-৫ কমেছে ৯৫ হাজার ৭৩১ জন।

জিপিএ-৫ পাওয়ার সংখ্যা পাঁচ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। শেষ পাঁচ বছরের মধ্যে এবারই জিপিএ-৫ পাওয়ার সংখ্যা এক লাখের নিচে নেমে এসেছে। ২০১৪ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১ লাখ ৫৬ হাজার ২৩৫ জন শিক্ষার্থী।

ঢাকা বোর্ড :পাসের হার শতকরা ৮৩ দশমিক ১৯ ভাগ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২২ হাজার ৩৩৪ জন। রাজশাহী বোর্ড : পাসের হার ৯৪ দশমিক ৫৭ ভাগ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪ হাজার ৬৩৮ জন। কুমিল্লা বোর্ড : পাসের হার ৮৬ দশমিক ৯৯ ভাগ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ৭৪২ জন শিক্ষার্থী। যশোর বোর্ড : পাসের হার শতকরা ৮৪ দশমিক ৬১ভাগ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ হাজার ২৫৬ জন। চট্টগ্রাম বোর্ড : পাসের হার শতকরা ৮১ দশমিক ৫২ ভাগ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ হাজার ২৩১ জন। বরিশাল বোর্ড : মোট পাসের হার ৯৭ দশমিক ০৫ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ৯০৬ জন সিলেট বোর্ড : পাসের হার শতকরা ৭৯ দশমিক ৮২ ভাগ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৬৯৮ জন । দিনাজপুর বোর্ড : পাসের হার ৮১ দশমিক ৬৩ ভাগ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৩০৩ জন। মাদ্রাসা বোর্ড : পাসের হার ৮৯ দশমিক ০৪ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৯৮৭ জন।

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী

এবারের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মোট ২৬ লাখ ৫২ হাজার ৮৯৬ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে পাস করে ২৫ লাখ ৮৮ হাজার ৯০৪ জন । পাসের হার ৯৭ দশমিক ৫৯ শতাংশ। উত্তীর্ণদের মধ্যে ১১ লাখ ৮১ হাজার ১৯ জন ছাত্র এবং ১৪ লাখ ৭ হাজার ৮৮৫ জন ছাত্রী। গতবার প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে পাসের হার ছিল ৯৫ দশমিক ১৮ শতাংশ।

এবার জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩ লাখ ৬৮ হাজার ১৯৩ জন। এর মধ্যে ছাত্র ১ লাখ ৬১ হাজার ৪১১ জন এবং ছাত্রী ২ লাখ ৬ হাজার ৭৮২ জন। গতবার প্রাথমিকে জিপিএ-৫ পেয়েছিল দুই লাখ ৬২ হাজার ৬০৯ জন।

পাসের হার বিবেচনায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ৭ বিভাগের মধ্যে ঢাকা বিভাগ শীর্ষে রয়েছে। এই বিভাগের পাসের হার ৯৮ দশমিক ২৫ শতাংশ। ৬৪ জেলার মধ্যে জয়পুরহাট জেলা প্রথম স্থানে রয়েছে, এই জেলার পাশের হার ৯৯ দশমিক ৭৪ শতাংশ। ৫১০ উপজেলা/ থানার মধ্যে ১৬টি উপজেলায় শতভাগ পাস করেছে।

সারাদেশে ইংরেজি ভার্ষণে ১১ হাজার ৮৫০ জন ছাত্র-ছাত্রী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে, এরমধ্যে ১১ হাজার ৮০৪ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে। পাসের হার ৯৯ দশমিক ৬০ শতাংশ। এর ছাত্র ৬ হাজার ৬২৪ জন এবং ছাত্রী ৫ হাজার ১৭৯ জন।

ইত্তেফাক/আরকেজি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২০ মার্চ, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন