ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ৭ চৈত্র ১৪২৫
২৫ °সে

অনশন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা, অনড় প্রশাসন

অনশন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা, অনড় প্রশাসন
রোকেয়া হলের সামনে অনশনকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নুরুল হক নুর। ছবি: ফোকাস বাংলা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এবং হল সংসদে পুনর্নির্বাচনের দাবিতে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আমরণ অনশন তৃতীয় দিনে গড়িয়েছে। একই দাবিতে রোকেয়া হলের ফটকেও অনশন করছেন পাঁচ শিক্ষার্থী।

এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে চারজন অনশন শুরু করার পর বুধবার আরও দুজন যোগ দেন। অনশনে থাকা শিক্ষার্থীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কেউ তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। পুনরায় নির্বাচন দেওয়া না হলে তাদের এই অনশন চলবে।

অনশনকারীরা আরো দাবি করছেন, ভোটের দিন রোকেয়া হলে প্রাধ্যক্ষের ওপর হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে সাত প্রার্থীসহ ৪০ জনের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহার এবং আন্দোলনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশনে থাকা ছয় শিক্ষার্থী হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী তাওহীদ তানজিম, দর্শন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী অনিন্দ্য মণ্ডল, পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মাঈন উদ্দিন, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শোয়েব মাহমুদ, ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রনি হোসেন এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রাফিয়া তামান্না। এর মধ্যে তাওহীদ তানজিম ডাকসু নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। শোয়েব মাহমুদ, অনিন্দ্য মণ্ডল ও মাইন উদ্দিন হল সংসদের বিভিন্ন পদে প্রার্থী ছিলেন।

রোকেয়া হলের সামনে অনশনে শিক্ষার্থীরা। ছবি: ফোকাস বাংলা

গত ১১ মার্চ ডাকসু এবং হল সংসদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ডাকসুতে ভিপি ও একটি সম্পাদক পদে জয় পায় কোটা সংস্কার আন্দোলনের স্বতন্ত্র প্যানেল। আর অন্যগুলোতে বিজয়ী হয় ছাত্রলীগ।

এরপর থেকেই আবারো নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে বিভিন্ন প্যানেল। ছাত্রলীগ বাদে পাঁচটি প্যানেল বুধবার এ নিয়ে উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপিও দেয়। সেখানে ডাকসুর পুনঃতফসিলের জন্য শনিবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয় ভোট বর্জন করা প্যানেলগুলো।

তবে সেই দাবি নাকচ করে দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান। তিনি বলেছেন, এই নির্বাচন করতে বড় একটি টিম অনেক পরিশ্রম করেছে। তাদের সেই পরিশ্রমের ফলাফলকে অশ্রদ্ধা দেখানোর এখতিয়ার তার নেই।

এদিকে রোকেয়া হল অনশনে থাকা শিক্ষার্থীরা হলেন- ইসলামিক স্টাডিজের রাফিয়া সুলতানা, উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের সায়েদা আফরিন, একই বিভাগের জয়ন্তী রেজা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের শ্রবণা শফিক দীপ্তি ও ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের প্রমি খিশা। বুধবার দিবাগত রাতে ওই ছাত্রীদের হেনস্তা করা হয়েছে বলে যে অভিযোগ উঠে।

ডাকসুর নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক (জিএস) ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে মধ্যরাতে তাদের হেনস্তা করেন বলে অভিযোগ করা হয়। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন রাব্বানী। তিনি বলেন, হলের গেট খোলা রেখে ছাত্রীদের অবস্থানের কথা শুনে অন্য শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তিনি এখানে এসেছেন। এসে দেখেন, কয়েকজন মদ-গাঁজা খেয়ে এখানে আন্দোলন করছেন।

রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আমরণ অনশন। ছবি: ফোকাস বাংলা

এদিকে বেলা দেড়টার দিকে ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের অন্য নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে রোকেয়া হলের ছাত্রীদের অনশনে সংহতি জানাতে আসেন ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর। তিনি বলেন, যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারীর লাঞ্ছনা ও হেনস্তার অপসংস্কৃতি চালু করতে চায়, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়।

ছাত্রীদের হেনস্তার বিষয়ে রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ জিনাত হুদা সংবাদ বলেন, এ ঘটনার বিষয়ে আমি অবগত না। কোনো হাউস টিউটরও আমাকে অবগত করেননি।

ইত্তেফাক/জেডএইচ

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ মার্চ, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন