বিনোদন | The Daily Ittefaq

‘বড় ছেলে’ টেলিফিল্মের স্ক্রিপ্ট লিখতে গিয়ে চোখ ভিজে গিয়েছিলো

‘বড় ছেলে’ টেলিফিল্মের স্ক্রিপ্ট লিখতে গিয়ে চোখ ভিজে গিয়েছিলো
অনলাইন ডেস্ক১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং ১০:৪৫ মিঃ
‘বড় ছেলে’ টেলিফিল্মের স্ক্রিপ্ট লিখতে গিয়ে চোখ ভিজে গিয়েছিলো
 
তরুণ নাট্য নির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ান। কোরবানি ঈদে তার নির্মিত ‘বড় ছেলে’ ও ‘ব্যাচ ২৭ শেষ পর্ব’ টেলিছবি দুটো নিয়ে বেশ আলোচনায় এসেছে। নির্মাণের পাশাপাশি নাটকগুলো রচনাও করেছেন আরিয়ান।
 
নাটক নির্মাণের পর এবার চলচ্চিত্র নির্মাণের পরিকল্পনা করছেন তিনি। ঈদ নাটক ও বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে বিনোদন প্রতিদিনের সাথে কথা বললেন তিনি। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন নুরুল করিম
 
কেমন আছেন?
 
ভালো আছি।
 
এই ঈদে আপনার নির্মিত টেলিছবি ‘বড় ছেলে’ ও ‘ব্যাচ ২৭ শেষ পর্ব’ বেশ ভালো সাড়া ফেলেছে। এ প্রসঙ্গে কী বলবেন?
 
আমি চেষ্টা করেছি দর্শকদের কোন ধরনের নাটক পছন্দ সেই অনুযায়ী বানাতে। ‘বড় ছেলে’ এবং ‘ব্যাচ ২৭ লাস্ট পেজ’ নাটক দুটির গল্প অন্যরকম। কোনটার সাথে কোনটার মিল নেই। তবে ‘বড় ছেলে’ নাটকটির সাড়া অকল্পনীয়। দর্শকদের ভালোবাসায় বেশ আবেগঘন সময় কাটাচ্ছি।
 
‘বড় ছেলে’ নাটকটি নির্মাণে বিশেষ কোন প্রস্তুতি ছিলো?
 
‘বড় ছেলে’ নাটকটির স্ক্রিপ্ট বেশ সময় নিয়ে লিখেছি। অনেক কিছু চিন্তা ভাবনা করেই টেলিছবিটি লিখেছি। আমি আর কোনদিনই স্ক্রীপ্ট লিখার সময় কান্না করিনি, কিন্তু ‘বড় ছেলে’ টেলিফিল্মের স্ক্রিপ্ট লিখতে গিয়ে চোখ ভিজে গিয়েছিলো।
 
নাটক নির্মাণের আগে দর্শক গ্রহণযোগ্যতার বিষয়টি কিভাবে চিন্তা করেন?
 
আমরা বরাবরই নিজেদের জীবনের সাথে মিলে যাওয়া গল্পগুলোকেই বেশি গ্রহণ করি। সেই জায়গা থেকে আমার নাটকগুলোও সেই ভাবনা থেকেই নির্মাণ করা।
 
এই ঈদের নাটকগুলো প্রসঙ্গেই যদি বলি আমি স্ক্রিপ্ট লেখার সময় বুঝেছিলাম এটা দর্শক গ্রহণ করবে, তবে এতটা গ্রহণ করবে কল্পনাও আসেনি। কিন্তু শেষ দৃশ্যের শুটিং যখন হচ্ছিলো তখনই বুঝতে পারলাম যে এটা বেশ সাড়া ফেলবে। নাটকের শেষ মুহূর্তে অপূর্ব আর মেহজাবিন গ্লিসারিন ছাড়া কেঁদেছিলো। সাধারণত পরিচালক যখন কাট বলে, সবাই হাততালি দেয়। কিন্তু বড় ছেলের শুটিংয়ের সময় দেখলাম আমার ইউনিটের লোকজন থেকে শুরু করে যারা শুটিং দেখতে আসছিলো সবার চোখেই পানি। সবচেয়ে বলার মতো বিষয় হলো শুটিং শেষে মেহজাবিন গাড়ির ভিতরে পাঁচ মিনিট ধরে কেঁদেছিলো, কেউ তার কান্না থামাতে পারেনি। এই নাটকের মাধ্যমে মধ্যবিত্ত পরিবারের অবস্থানটি দেখাতে চেয়েছি। এর বেশি কিছু নয়।
বাজেট এবং গল্পের কারণে নাটকের মান ধীরে ধীরে কমছে। এমন একটি সময় থেকেই আপনার পরিচালক হিসেবে যাত্রা শুরু। আপনার অভিজ্ঞতাটা বলুন
 
এই সমস্যাটি অনেকদিন ধরেই চলছে। নতুন নির্মাতা হিসেবে আমিও এই সমস্যার বাইরে নই। কিন্তু আমার কথা হচ্ছে আমার প্রয়োজন মতো বাজেট না পেলে আমি বানাবো না। ‘বড় ছেলে’ নাটকটির বাজেট কম এবং  ‘ব্যাচ ২৭ শেষ পর্ব অনেক বড় বাজেটের টেলিছবি। দুটোই কিন্তু দর্শক গ্রহন করেছে।
 
বর্তমান ব্যস্ততা প্রসঙ্গে বলুন—
 
এখন সিনেমা নির্মাণের দিকে আগাচ্ছি। কিছুদিনের মধ্যেই হয়তো ঘোষনা দিবো। গল্প রেডি, আর্টিস্টদের সাথে কথা চলছে। সবকিছু ঠিক থাকলেই নতুন এই চ্যালেঞ্জটি নিয়ে এগুবো।
 
ইত্তেফাক/আনিসুর
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৮ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৪১
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫২
মাগরিব৫:৩৪
এশা৬:৪৫
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৯