বিনোদন | The Daily Ittefaq

আত্মহত্যা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক ভিডিওচিত্র ‘এন্টি সুইসাইড’

আত্মহত্যা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক ভিডিওচিত্র ‘এন্টি সুইসাইড’
অনলাইন ডেস্ক১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং ১২:৪৪ মিঃ
আত্মহত্যা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক ভিডিওচিত্র ‘এন্টি সুইসাইড’
 
গত ১৫ জুলাইয়ের ঘটনা, রাজধানীর রমনাতে গলায় ফাঁস দিয়ে এক শিশু আত্মহত্যা করে। মাত্র ১০ বছর বয়সী ওই শিশুর নাম ছিল নুর উদ্দিন, রমনার ইস্কাটন বিয়াম স্কুল গলির একটি বাসায় থাকত। মা নেহারা বেগমের বকুনী সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেঁছে নেয় ওই শিশু। শুধু নুর নয়, নুরের মতো অসংখ্য শিশু কিশোর তরুণরা শুধুই বোকামি আর অসচেতনতায় এই পথে ঝুঁকছে।
 
বর্তমানে দেশে আত্মহত্যার সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে। গত ১০ সেপ্টেম্বর ছিল বিশ্ব আত্মহত্যা প্রতিরোধ দিবস।এবারের প্রতিপাদ্য ‘একটি মিনিট সময় নিন : জীবন পরিবর্তন করুন’। ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের প্রতি আশপাশের মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করার জন্য তাগিদ দেয়া হয়েছে।
 
তবে এই সচেতনতায় এগিয়ে এলেন নির্মাতা সরাফ আহমেদ জীবন। ‘এন্টি সুইসাইড’ শিরোনামের একটি সচেতনতামূলক ভিডিওচিত্র নির্মাণ করেছেন তিনি। জীবনের সঙ্গে নির্মাণে আরও রয়েছেন নাহিদ হাসনাত। অ্যাডকমের উদ্যোগে আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজের স্পন্সরশীপে কারখানা প্রোডাকশানের নির্মাণে ভিডিও ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে ১০ সেপ্টেম্বর।
 
বিভিন্ন চরিত্রে এখানে অভিনয় করেছেন কল্প, সামিয়া ও রাফি। আর বিশেষ অতিথি চরিত্রে রয়েছেন অভিনয়শিল্পী সিয়াম আহমেদ, তামিম মৃধা ও রাবা খান। ভিডিওটি নির্মাণের বিষয়ে নির্মাতা জীবন বলেন, প্রায়ই মিডিয়ায় আমরা খবর দেখি অমুক জায়গা সুইসাইড করেছে, পরীক্ষায় খারাপ রেজাল্ট করায় বাবা-মায়ের বকুনিতে আত্মহত্যা কিংবা প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হয়ে আত্মহত্যা করেছে কিশোর। এই খবরগুলো খুব মর্মাহত করে। পরে অ্যাডকমের উদ্যোগে কাজটি করার সিদ্ধান্ত নিই আমরা।’ 
 
সরাফ আহমেদ জীবন বলেন, এন্টি সুইসাইডে সবার জন্য আমাদের একটায় ম্যাসেজ-সুইসাইড কোন সমস্যার সমাধান নয়। আমরা পরিষ্কারভাবে বলতে চায় সুইসাইডের সিদ্ধান্ত নেয়া শুধুই বোকামি, তরুণ সমাজ যাতে সচেতন হয় সে লক্ষ্যেই ভিডিওটি নির্মাণ করেছি আমরা।
 
ভিডিওতে তিনটি সেগমেন্টে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। প্রথমত তরুণ-তরুণীদের সম্পর্কগত ঝামেলায় সুইসাইড, দ্বিতীয়ত পরিবারে বাবা-মায়ের কাছ থেকে সময় না পাওয়া শিশুদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা এবং তৃতীয়ত টিনএজ বয়সী কিশোর-কিশোরীদের পরীক্ষার ফল খারাপ হলে তারা আত্মহত্যার মতো অনকাঙ্খিত সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বলে ভিডিওতে বক্তব্য তুলে ধরা হয়েছে। ইতোমধ্যে ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। তরুণরা জানিয়েছে তাদের ব্যক্তিগত অভিমত।  
ইত্তেফাক/আনিসুর
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৪ নভেম্বর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৫৯
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩০
সূর্যোদয় - ৬:১৮সূর্যাস্ত - ০৫:০৯