লাইফস্টাইল | The Daily Ittefaq

চিকিত্সার ১৫ বছর পরও হতে পারে স্তন ক্যান্সার

চিকিত্সার ১৫ বছর পরও হতে পারে স্তন ক্যান্সার
ইত্তেফাক ডেস্ক১২ নভেম্বর, ২০১৭ ইং ০০:৩১ মিঃ
চিকিত্সার ১৫ বছর পরও হতে পারে স্তন ক্যান্সার

সাধারণত ৫০ বছরের বেশি বয়সীদের মধ্যে ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। স্তন ক্যান্সারে যত জন আক্রান্ত হন তাদের ৮০ ভাগেরই বয়স ৫০ এর বেশি। সেই সঙ্গে যাদের পরিবারে কারোর স্তন ক্যান্সার রয়েছে তাদেরও এই ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তবে স্তন ক্যান্সার বিষয়ক নতুন এক গবেষণায় বলা হচ্ছে, চিকিত্সা নিয়ে সুস্থ হওয়ার ১৫ বছর পর আবারো ফিরে আসতে পারে স্তন ক্যান্সার। আর যেসব নারীর বড় আকারের টিউমার এবং ক্যান্সার লসিকাগ্রন্থিতে ছড়িয়ে গেছে তাদের ক্ষেত্রে তা পুনরায় ফিরে আসার আশঙ্কা সর্বোচ্চ ৪০ শতাংশ। গবেষকরা নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনে লিখেছেন, হরমোন থেরাপিসহ বিস্তৃত চিকিত্সার মাধ্যমে এই পুনরাবৃত্তির ঝুঁকি হ্রাস করা যেতে পারে। বিজ্ঞানীরা ২০ বছর ধরে ৬৩,০০০ নারীর ওপর গবেষণা চালিয়ে এই সিদ্ধান্ত জানান।

গবেষকরা জানান, ইস্ট্রোজেন নামক স্ত্রী হরমোনের কারণে প্রসারিত হয় যেটি ক্যান্সারকোষগুলোর বৃদ্ধি এবং বিভাজন ঘটাতে পারে। প্রত্যেক  রোগীকে সাধারণত ট্যামোক্সিফেন বা অ্যারোমাটিস নিরোধকের মাধ্যমে চিকিত্সা দেওয়া হয় যা ইস্ট্রোজেনের প্রভাবকে বাধা দেয় বা সেই হরমোনের সরবরাহকে বন্ধ করে দেয়।

একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক নারীর ক্ষেত্রে দেখা গেছে, পাঁচ বছর চিকিত্সার পর তাদের ক্যান্সার চলে গেলেও পরবর্তী ১৫ বছরে তা সারা শরীরে পুনরায় ছড়িয়ে যায়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ২০ বছর পরে ঘটেছে। গবেষণায় বলা হচ্ছে, যেসব নারীর বড় আকারের টিউমার এবং ক্যান্সার চার বা তার বেশি সংখ্যক লসিকাগ্রন্থিতে ছড়িয়ে গেছে তাদের ক্ষেত্রে ১৫ বছর পরে আবার ক্যান্সার ফিরে আসার সর্বোচ্চ আশঙ্কা থাকে।

ইউনিভার্সিটি অব অক্সফোর্ডের একজন প্রধান গবেষক ড. হংচাও প্যান বলেন, এটা অবাক হওয়ার মত যে স্তন ক্যান্সার এত দীর্ঘ সময় পর্যন্ত সুপ্ত থাকতে পারে এবং অনেক বছর পরে তা আবার ছড়িয়ে যায়। এই ঝুঁকিটি বছরের পর বছর জিইয়ে থাকে এবং মূল ক্যান্সারটির আকার এবং কতটা ছড়িয়েছে তার সঙ্গে গভীরভাবে সম্পর্কিত।

সামপ্রতিক গবেষণায় বলা হচ্ছে, হরমোন থেরাপি ১০ বছর বাড়ান হলে তা স্তন ক্যান্সারে পুনঃআবির্ভাব এবং মৃত্যু প্রতিরোধে কার্যকর হতে পারে। কিন্তু হরমোন চিকিত্সার কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে যেটি কিনা রোগীর জীবনমানকে প্রভাবিত করতে পারে।

ক্যান্সার রিসার্চ ইউকে এর সিনিয়র ক্লিনিকাল অ্যাডভাইজার অধ্যাপক আর্নি পুরুশোথাম, কোন ক্যান্সার আবার ফিরে আসতে সক্ষম তা আরো ভালোভাবে অনুমান করা অত্যাবশ্যক। আমাদের আরো জানা প্রয়োজন, পাঁচ বছরের পরিবর্তে নারীদের ১০ বছরের হরমোন থেরাপি দেওয়া হলে কী পার্থক্য হয়, এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কী এবং তা রোগীদের জীবনমানের ওপর কি ধরনের প্রভাব ফেলে।-বিবিসি

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৩ নভেম্বর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৫৯
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১৮সূর্যাস্ত - ০৫:১০