ঢাকা শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯, ৮ চৈত্র ১৪২৫
২৫ °সে

এমপিদের শপথ আজ

ঐক্যফ্রন্টের বিজয়ী ৭ জন আজ শপথ নিচ্ছেন না
এমপিদের শপথ আজ
ফাইল ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচিত সদস্যদের শপথ আজ বৃহস্পতিবার। সংসদ সচিবালয় থেকে গতকাল বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, সংসদ ভবনের পূর্ব ব্লকের ১ম লেভেলের (নিচতলায়) শপথ কক্ষে আজ সকাল ১১টায় নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের শপথ অনুষ্ঠান হবে। শপথ পাঠ করাবেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এমপিদের শপথ অনুষ্ঠানের ইতোমধ্যে যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সংসদ সচিবালয়।

৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচন শেষ হওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ২৯৮ জনকে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করে তাদের নাম-ঠিকানাসহ মঙ্গলবার গেজেট প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ফলাফলের গেজেটে তারিখ রয়েছে ১ জানুয়ারি ২০১৯। ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, এই গেজেট গতকাল সকালে সংসদ সচিবালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইসির পাঠানো গেজেট হাতে পাওয়ার পর এমপিদের শপথ পড়ানোর সময় নির্ধারণ করেছে সংসদ সচিবালয়। উল্লেখ্য, জাতীয় নির্বাচনের ফলাফলের গেজেট প্রকাশের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নবনির্বাচিত এমপিদের শপথ পড়ানোর সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এরপর ৩০ দিনের মধ্যে নতুন সংসদের প্রথম অধিবেশন ডাকারও সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা আছে। দশম সংসদের প্রথম অধিবেশন বসেছিল ২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি। সেই হিসেবে এবারও আগামী ২৯ জানুয়ারি একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন বসার সম্ভাবনা রয়েছে।

অন্য সংসদ সদস্যদের শপথ পাঠ করানোর আগে আজ আবারও এমপি নির্বাচিত হওয়া স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী নিজে নিজে একাদশ সংসদের সদস্য হিসেবে শপথ নেবেন। এবারও তিনি রংপুর-৬ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

স্পিকারের কার্যালয় ও সংসদ সচিবালয়ের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রেওয়াজ অনুযায়ী সংখ্যাগরিষ্ঠ দল আওয়ামী লীগের সদস্যরা প্রথমে শপথ নেবেন। এরপর ক্রমানুসারে শপথ নেবেন অন্যরা। শপথগ্রহণ শেষে নতুন সংসদ সদস্যরা সংসদ সচিবের কার্যালয়ের স্বাক্ষর খাতায় সই করবেন এবং একসঙ্গে তাদের ছবি তোলা হবে। এরপর সংসদ ভবনে সরকারি দলের সভাকক্ষে আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভা হবে। এই সভায় সংসদ নেতা নির্বাচনসহ আনুষঙ্গিক অন্যান্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

দেশের ৩০০টি সংসদীয় আসনের মধ্যে ২৯৯টিতে গত রবিবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হয়। গোলযোগের কারণে ব্রাহ্মণবড়িয়া-২ (আশুগঞ্জ-সরাইল) আসনটির ফলাফল স্থগিত থাকায় ২৯৮টি আসনের ফল ঘোষণা করে ইসি। আর ভোটগ্রহণের আগে গাইবান্ধা-৩ আসনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ড. টিআইএম ফজলে রাব্বি চৌধুরী মৃত্যুবরণ করায় ওই আসনে নির্বাচন স্থগিত করা হয়। এই আসনে ইসি নতুন করে তফসিল ঘোষণা করে ভোটগ্রহণ করবে।

গেজেট হওয়া ২৯৮টি আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগসহ মহাজোট পেয়েছে ২৮৮টি আসন। মহাজোটের মধ্যে আওয়ামী লীগসহ ১৪ দল এবং এইচএম এরশাদের জাতীয় পার্টি (জাপা) ও অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বিকল্পধারা রয়েছে। জাপা ২২টি ও বিকল্পধারা ২টি আসন পেয়েছে। নিরঙ্কুশ জয় পেয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। আর এবারের নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে ৭টি আসন; এরমধ্যে বিএনপি দলীয় প্রার্থীরা জিতেছেন ৫টি আসনে, আর ঐক্যফ্রন্টের শরিক গণফোরামের ২ জন প্রার্থী জয়ী হন। এছাড়া ৩ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী রবিবারের ভোটে বিজয়ী হয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ নির্বাচনী সহিংসতা: আহত আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু

২২টি আসন পাওয়া জাপা দলগতভাবে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকায় এবারো তাদের প্রধান বিরোধী দলের আসনে বসার কথা। তবে জাপা এখনো তাদের সিদ্ধান্ত জানায়নি। এ বিষয়ে গতকাল জাপার নবনির্বাচিত এবং দলের প্রেসিডিয়াম সদস্যদের যৌথসভা শেষে দলটির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের সাংবাদিকদের বলেন, মহাজোটের সঙ্গে আলোচনা করে আমরা সিদ্ধান্ত নেব-বিরোধী দলে যাব কি-না। আমরা এখনো মহাজোটের অংশ। মহাজোটের স্বার্থে যেটা করতে হবে, সেটাই করব। আজ এমপিদের শপথ গ্রহণের পর সংসদ ভবনে জাপার পার্লামেন্টারি পার্টির সদস্যরা বৈঠকে বসবেন। এই বৈঠকেই জাপা শুধুই সরকারে, না শুধুই বিরোধী দলে, নাকি বর্তমানের মতো বিরোধী দলের পাশাপাশি মন্ত্রিসভায়ও থাকবে-সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হতে পারে।

ঐক্যফ্রন্টের বিজয়ী ৭ জন আজ শপথ নিচ্ছেন না

এদিকে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিজয়ী সাতজন আজ শপথ নিচ্ছেন না। শপথ নেওয়া এবং সংসদে যাওয়া না যাওয়ার প্রশ্নে ঐক্যফ্রন্টের ভেতরে বিভক্ত মত দেখা দিয়েছে। সোমবার রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে সংবাদ ব্রিফিংয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, রবিবারের ভোটে বিএনপির নির্বাচিত পাঁচজন সংসদ সদস্য হিসেবে শপথও নেবেন না, সংসদেও যাবেন না। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমরা তো একাদশ নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছি। নতুন নির্বাচনের দাবি করেছি। ফলে সংসদে যোগ দেওয়ার প্রশ্নই আসে না।’

সার্বিক বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আজ এমপিদের শপথের দিনই নির্বাচিতদেরসহ দলের সকল প্রার্থীকে ঢাকায় ডেকেছে বিএনপি। এছাড়া ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন বাতিল করে পুনঃতফসিলের দাবিতে ২৯৯ আসনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদের আজ ইসিতে স্মারকলিপি দেওয়ার পূর্বঘোষিত কর্মসূচি রয়েছে।

রবিবারের ভোটে বিএনপির যে পাঁচজন নির্বাচিত হয়েছেন তারা হলেন-মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর (বগুড়া-৬), মোশাররফ হোসেন (বগুড়া-৪), মো. আমিনুল ইসলাম (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২), মো. হারুন উর রশিদ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩) এবং জাহিদুর রহমান জাহিদ (ঠাকুরগাঁও-৩)। এছাড়া ড. কামালের গণফোরামের পুরনো জোট জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর মৌলভীবাজার-২ আসনে ‘ধানের শীষ’ প্রতীকে এবং গণফোরামের মোকাব্বির খান দলীয় প্রতীক ‘উদীয়মান সূর্য’ মার্কায় সিলেট-২ আসনে জয়লাভ করেছেন। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল নিজসহ দলের জয়ী পাঁচজন শপথও নেবেন না এবং সংসদেও যাবেন না বললেও জোটের সুলতান মনসুর ও মোকাব্বিরের বিষয়ে তাত্ক্ষণিকভাবে কিছু বলেননি। অবশ্য মঙ্গলবার বিএনপি নেতারা বলেছেন, ঐক্যফ্রন্টের সাতজনের কেউই শপথ নেবেন না।

তবে সুলতান মোহাম্মদ মনসুর মঙ্গলবার ইত্তেফাককে বলেন, ‘আমি এখনো আমার নির্বাচনী এলাকায়। দুই-একদিনের মধ্যে ঢাকায় ফিরে আমাদের নেতা ড. কামাল হোসেনসহ ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে আমি শপথ গ্রহণ কিংবা সংসদে যাওয়া না যাওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব। তবে আমি এখনো এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি।’

সংবিধানের ৬৭(১) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, ভোটে জয়ী হয়ে যদি কেউ সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ না নেন তাহলে নতুন সংসদের প্রথম অধিবেশনের প্রথমদিন থেকে ৯০ দিন অতিবাহিত হওয়ার পর তার আসনটি শূন্য হবে। অবশ্য সংশ্লিষ্ট বিজয়ী ব্যক্তি স্পিকারকে অবহিত করে শপথ গ্রহণে কিংবা অধিবেশনে যোগদানে বিরত থাকলে সেক্ষেত্রে স্পিকার সিদ্ধান্ত নেবেন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ মার্চ, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন