বাংলাদেশ | The Daily Ittefaq

রাষ্ট্রনীতি ও ধর্ম বিশ্বাসের বিরোধ নেই: মসিউর রহমান

রাষ্ট্রনীতি ও ধর্ম বিশ্বাসের বিরোধ নেই: মসিউর রহমান
বিশেষ প্রতিনিধি১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ইং ২১:৫১ মিঃ
রাষ্ট্রনীতি ও ধর্ম বিশ্বাসের বিরোধ নেই: মসিউর রহমান
ফাইল ছবি
প্রধানমন্ত্রীর অর্থনীতি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান বলেছেন, ‘আমার ধর্ম আমি পালন করছি, রাষ্ট্র আলাদা অন্য ক্যাটাগরির একটা জিনিস। রাষ্ট্রের প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে, রাষ্ট্রকেও আমি ভালবাসি, রাষ্ট্রকে আমি রক্ষা করব। কিন্তু রাষ্ট্রনীতি এবং আমার ধর্ম বিশ্বাস এই দুটোর ভেতরে কোনো দ্বন্দ্ব-সংঘর্ষ নেই। 
 
শুক্রবার ঢাকার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ঢাকাস্থ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সমিতির ‘সপ্তম চাঁপাই উৎসবের’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। 
 
ড. মসিউর রহমান বলেন, পতাকা তোলার সময় সময় আমি লক্ষ্য করছিলাম, একজন একটু বয়স্ক লোক, ধর্ম বিশ্বাসী একজন বয়স্ক লোকের যে আচরণ, দাড়ি আছে পাঞ্জাবি পড়েছেন। আরেকজন ভদ্রলোক, অতটা বয়স দেখা যায় না, মাখায় টুপি, বোধহয় নামাজ পড়তে যাবেন বলে সেভাবে প্রস্তুতি নিয়ে এসেছেন। জাতীয় সংগীত গাওয়ার সময় দেখলাম তারা দুইজনই সুর মেলাচ্ছেন। আমার একটু কৌতুহল হল। সুর মেলাচ্ছেন, আবার মাথায় টুপি আছে, দাড়ি আছে। আমরা তো সাধারণভাবে মনে করি ধর্ম এবং ধর্ম সহিষ্ণুতা, অসাম্প্রদায়িকতা একসাথে থাকতে পারে না।’ মসিউর বলেন, এই দৃশ্যপট বলছি এজন্য যে আমাদের সংবিধানে যে অসাম্প্রদায়িকতার কথা আছে, এটাকে অনেকে মিথ্যা বা অনেকে ভুল ব্যাখ্যা করেন। এটা ধর্মহীনতা নয়, এটা ধর্মের প্রতি সহিষ্ণুতা। তিনি বলেন, বাংলাদেশের অসম্প্রদায়িকতার ‘মূল লক্ষ্য’ হল ধর্মীয় সহিষ্ণুতা।
 
পতাকা তোলার সময় দেখা ওই ঘটনা প্রসঙ্গে  মসিউর রহমান আরো বলেন, ‘এই দুজন লোককে দেখে আমার মনে হল  যে, আমরা হয়ত মঞ্চে এক রকম কথা বলি বা দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে কথা বলি। কিন্তু বাংলাদেশের একজন মানুষ, যে দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়, সরকারের সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়, সে তার নিজের জীবন-জীবিকা অর্জন করছেন, তার মনে কী আছে? আমার মনে হল, তার মনে যে কথা আর বঙ্গবন্ধু যেটা বলেছেন সেটা এক। আমাদের সংবিধানের যে নীতি- অসম্প্রদায়িকতা, এটা হল ধর্ম সহিষ্ণুতার, অপরের প্রতি সহিষ্ণুতার এবং সকলের ধর্ম পালনের অধিকারের। তার সঙ্গে তার নাগরিকত্বের অধিকার, নাগরিকত্বের দায়িত্ববোধের সংঘর্ষ নাই।’ 
 
মসিউর রহমান বলেন, এ বিষয়টি সবাইকে বুঝতে হবে এবং প্রচার করতে হবে। যারা এর বিরুদ্ধে গিয়ে নাশকতার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছেন, তারা আসলে ধর্মের জন্য নাশকতা করছেন না। তারা ‘অন্য কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে’ নাশকতা করেন, ধর্মকে ‘মিথ্যাভাবে ব্যবহার করেন’। আসলে ওরাই ধর্মবিরোধী, তাদের বিরুদ্ধে আমাদের সবাইকে একসাথে দাঁড়াতে হবে।
 
চাঁপাইনবাবগঞ্জে সরকারি চাকরি করার সময়ের বেশ কয়েকটি ঘটনার স্মৃতি অনুষ্ঠানে স্মরণ করেন মসিউর রহমান। আয়োজকদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তিনি প্রতিশ্রুতি দেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকায় আন্তঃনগর ট্রেন চালুর বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে তিনি কথা বলবেন। এছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমের সম্ভাবনা নিয়ে কৃষিমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করবেন বলেও জানান তিনি।
 
ইত্তেফাক/মাহমুদুল ইসলাম
 
 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৪ মার্চ, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৪৩
যোহর১২:০৬
আসর৪:২৯
মাগরিব৬:১৪
এশা৭:২৭
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৬:০৯