জাতীয় | The Daily Ittefaq

পার্বত্য সীমান্তে ৩১৭ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ হবে

পার্বত্য সীমান্তে ৩১৭ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ হবে
একনেকে ১৬ প্রকল্প অনুমোদন
ইত্তেফাক রিপোর্ট২১ মার্চ, ২০১৮ ইং ০০:২৫ মিঃ
পার্বত্য সীমান্তে ৩১৭ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ হবে

রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান পার্বত্য জেলায় সীমান্ত সড়ক নির্মাণে ১ হাজার ৬৯৯ কোটি ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ের একটি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। বান্দরবান জেলার নাইক্ষংছড়ি উপজেলা, রাঙ্গামাটি জেলার জুরাইছড়ি, বড়কল ও রাজস্থলি উপজেলা, কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলা এবং খাগড়াছড়ি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলা জুড়ে প্রথম পর্যায়ে ৩১৭ কিলোমিটার দীর্ঘ ৪টি সড়ক নির্মাণ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গতকাল শেরেবাংলানগরস্থ এনইসি মিলনায়তনে একনেক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জানানো হয়েছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও ভারতের সাথে প্রায় ৩৩০ কি.মি. এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম ও মিয়ানমারের সাথে প্রায় ২১০ কি.মি.সহ সর্বমোট ৫৪০ কি.মি. সীমান্ত রয়েছে। এসব এলাকায় দুষ্কৃতিকারীরা অবাধে চোরাচালন, অবৈধ অস্ত্র ও মাদকের ব্যবসাসহ মানব পাচারের মত ধ্বংসাত্মক কাজ করে যাচ্ছে। তাই সীমান্ত এলাকায় সরকারের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ আনতে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে এ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।               সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের প্রকল্পগুলোর বিষয়ে অবহিত করেন। সভায় মোট ৯ হাজার ৬৮০ কোটি টাকা ব্যয়ের ১৬টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৪টি সংশোধিত প্রকল্প। সভায় জানানো হয়েছে, সীমান্তে চারটি সড়কের মধ্যে উখিয়া-আশারতলি-ফুলতলি সড়ক ৪০ কি.মি., সাজেক-শিলদাহ-বেতলিং সড়ক ৫২ কি.মি., সাজেক-দোকানঘাট-থেগামুখ সড়ক ৯৫ কি.মি. এবং থেগামুখ-লইতংপাড়া-থাচ্চি-দুমদুমিয়া-রাজস্থলি সড়কটির দূরত্ব হবে ১৩০ কি.মি.। পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, উল্লিখিত সড়কগুলো নির্মাণের মাধ্যমে এই অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এবং পর্যটন শিল্পের বিকাশ সাধনে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

সভায় পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দরের কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো/সুবধাদির উন্নয়ন প্রকল্পের ব্যয় প্রায় তিনগুণ বাড়িয়ে ৩ হাজার ৩৫০ কোটি টাকায় গতকাল সংশোধনী অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সভায় অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হলো, ৫৫৮ কোটি ৪৪ লাখ টাকা ব্যয়ে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ (ঢাকা জোন) প্রকল্প, ৮০ কোটি ৬ লাখ টাকা ব্যয়ে, ভবেরচর-গজারিয়া-মুন্সীগঞ্জ জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প, ৫৪৭ কোটি ২৮ লাখ টাকা ব্যয়ে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের অবকাঠামো নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সভায় ২৪৯ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীনে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা কার্যালয়ের ২০ তলা ভিত বিশিষ্ট ২টি বেইজমেন্টসহ ১০তলা (সংশোধিত ২০ তলা) প্রধান কার্যালয় নির্মাণ কাজ (১ম সংশোধিত) প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ২১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে নোয়াখালী সদরে সরকারি কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের জন্য আবাসিক ভবন নির্মাণ প্রকল্প, ৯১ কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশ ডাক অধিদপ্তরের সদর দপ্তর নির্মাণ (১ম সংশোধিত) প্রকল্প, ৪৩২ কোটি ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অধীনে ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলাধীন তেতুঁলিয়া নদীর ভাঙ্গন হতে বকসী লঞ্চঘাট হতে বাবুরহাট লঞ্চঘাট পর্যন্ত প্রতিরক্ষা ও ড্রেজিং এবং কুকরী-মুকরী দ্বীপ বন্যা নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পসহ আরো কয়েকটি প্রকল্প।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩৩
যোহর১১:৫১
আসর৪:১২
মাগরিব৫:৫৫
এশা৭:০৮
সূর্যোদয় - ৫:৪৮সূর্যাস্ত - ০৫:৫০