জাতীয় | The Daily Ittefaq

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন দিয়ে কোটা বাতিল করতে পারবে

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন দিয়ে কোটা বাতিল করতে পারবে
শ্যামল সরকার১২ এপ্রিল, ২০১৮ ইং ০৪:৩৫ মিঃ
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন দিয়ে কোটা বাতিল করতে পারবে
সরকারি চাকরিতে ক্ষুদ্র-নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী ও প্রতিবন্ধীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থায় চাকরিতে বিশেষ বিধান কীভাবে করা হবে সে বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে গঠিত কমিটি সুপারিশ প্রদান করবে। তবে ওই কমিটি এখনো গঠিত হয়নি জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম গতকাল বুধবার ইত্তেফাককে বলেন, কমিটিতে আলোচনা  করে সংবিধানের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে  ক্ষু-নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী ও প্রতিবন্ধীদের চাকরিতে কোটা সংরক্ষণের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।         
 
কোটা পদ্ধতি বাতিলের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা কি প্রক্রিয়ায় বাস্তবায়ন হবে-এই প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সার্কুলার দিয়ে কোটা সম্পর্কিত পূর্বের বিধান বাতিল ঘোষণা করতে হবে। তবে এ বিষয়ে রাষ্ট্রপতির সম্মতির প্রয়োজন হতে পারে বলে মনে করেন তিনি।
 
জানতে চাইলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোজাম্মেল হক খান ইত্তেফাককে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তার কার্যালয় থেকে লিখিত নির্দেশনা আসলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাব যাবে প্রধানমন্ত্রীর কাছে। প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাব অনুমোদন করার পর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় কোটা বাতিলের বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করবে। তবে এটি শুধুমাত্র বিসিএস পরীক্ষার ক্ষেত্রে কার্যকর হবে না কি সকল নিয়োগের ক্ষেত্রে কার্যকর করা হবে সেটি পরিষ্কার নয়। সচিব কমিটির সুপারিশ প্রকাশের পর তা জানা যাবে।
 
রাষ্ট্র চাইলে সংবিধানের আলোকে অনগ্রসর শ্রেণির মানুষের জন্য সরকারি চাকরিতে কোটা সংরক্ষণে বিশেষ বিধান করতে পারবে । সংবিধানের ২৯ অনুচ্ছেদে এ বিষয়ে সুস্পষ্ট মত রয়েছে। তবে মুক্তিযোদ্ধা, নারী, জেলা ইত্যাদি কোটা বিষয়ে সংবিধানে সুস্পষ্ট উল্লেখ নেই।
 
প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি চাকরিতে ক্ষুদ্র-নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী ও প্রতিবন্ধীদের বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি বহাল রেখে বাকিগুলো বাতিল করা হতে পারে। যদিও এখনো প্রতিবন্ধীদের কোনো কোটার কোনো শতাংশ উল্লেখ নেই। এবার হয়তো সেটি নির্ধারণ করে দেওয়া হতে পারে। ক্ষুদ্র-নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর জন্য ৫ শতাংশ কোটা এখন নির্ধারিত আছে। বিদ্যমান ব্যবস্থায় মেধা থেকেই এক শতাংশ প্রতিবন্ধী কোটা পূরণ করা হয়।
 
সার্বিক বিষয়টি মন্ত্রিসভার আগামী বৈঠকে বিবিধ প্রসঙ্গে আলোচিত হতে পারে বলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জানিয়েছেন।
 
ইত্তেফাক/রেজা
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫১
আসর৪:১২
মাগরিব৫:৫৬
এশা৭:০৯
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫১