জাতীয় | The Daily Ittefaq

দীর্ঘ হচ্ছে বন্দুকযুদ্ধে নিহতের তালিকা, গতরাতেও ৯

দীর্ঘ হচ্ছে বন্দুকযুদ্ধে নিহতের তালিকা, গতরাতেও ৯
অনলাইন ডেস্ক২৫ মে, ২০১৮ ইং ০৯:১০ মিঃ
দীর্ঘ হচ্ছে বন্দুকযুদ্ধে নিহতের তালিকা, গতরাতেও ৯
 
প্রতিরাতেই দীর্ঘ হচ্ছে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে নিহতের তালিকা। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে বৃহস্পতিবার রাতেও কমপক্ষে নয়জন নিহত হয়েছেন। এরমধ্যে নেত্রকোনায় দুইজন এবং ঢাকা, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, সাতক্ষীরা, গাইবান্ধা, কক্সবাজার ও ঝিনাইদহে একজন করে নিহত হয়েছেন। এ সময় বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য ও অস্ত্র উদ্ধারের কথা জানিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।
 
গত ৪ মে থেকে সারাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পুলিশ ও র‌্যাবের সঙ্গে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ৬৪ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
 
ইত্তেফাকে নিজস্ব প্রতিবেদক জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে কামরুল নামে এক শীর্ষ ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত হয়েছেন। র‌্যাবের দাবি, তিনি তেজগাঁও রেললাইন বস্তি এবং মহাখালী সাততলা বস্তি এলাকা নিয়ন্ত্রণ করতেন। তার বিরুদ্ধে ১৫টির অধিক মাদক ও অস্ত্র মামলা রয়েছে। বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করে র‌্যাব। এ ঘটনায় তাদেরও দুই সদস্য আহত হন।
 
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি জানান, শহরের পু‌বো‌হিত পাড়া রেলও‌য়ে ক‌লোনীর ভাঙ্গা ওয়াল এলাকার রেনু বেগমের বাড়ির দ‌ক্ষিণ প‌শ্চিম কোণে পুকুর পা‌ড়ে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আলালসহ কয়েকজন মাদকদ্রব্য ভাগাভাগি করছেন; এমন তথ্যের ভিত্তিতে ওসি ডিবির নেতৃত্বে একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছালে ‘মাদক ব্যবসায়ীরা’ গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছুঁড়লে পিছু হটে তারা। এ সময় ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ গুরুতর অবস্থায় রাজনকে উদ্ধার করে পুলিশ। হাসপাতালে নেয়া হলে দায়িত্বরত চিকিত্সক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। রাজ‌নের বিরু‌দ্ধে মাদকসহ অন্যান্য আইনে ৮/৯ টি মামলা আছে।
 
নেত্রকোনা প্রতিনিধি জানান, সদর উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের মনাং গ্রামে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুইজন ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত একটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশের এএসআই জাফরসহ তিন সদস্য আহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৩ হাজার পিস ইয়াবা টেবলেট, ৭০৫ গ্রাম হিরোইন এবং দুইটি পাইপ গান উদ্ধার করেছে। তবে ওই দুইজনের বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।
 
ঝিনাইদহের ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি বিমল সাহা জানান, কালীগঞ্জ শহরের আড়পাড়া নামক স্থানে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শামীম সরদার (৪৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি তিনি মাদকব্যবসায়ী। এ সময় ৪ পুলিশ সদস্য আহত হন এবং ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি, ৪৮০ পিস ইয়াবা ও ১৭ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শামীম আড়পাড়া এলাকার মমিন সরদারের ছেলে।  আহত পুলিশ সদস্যরা হচ্ছেন, এস আই অমিত কুমার দাস, এ এস আই শামীম হোসেন, কনস্টেবল  নাজিম উদ্দিন ও রতন। তাদের কালীগঞ্জ উপজেলা  স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
 
কুমিল্লা প্রতিনিধি জানান, থানা ও ডিবি পুলিশের মাদকবিরোধী যৌথ অভিযান চলাকালে মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে পুলিশের বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ হয়ে কামাল হোসেন ওরফে ফেন্সি কামাল (৫১) নামে তালিকাভূক্ত এক ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নের মহিষমারা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত কামাল হোসেন জেলার আদর্শ সদর উপজেলার রাজমঙ্গলপুর গ্রামের হিরন মিয়ার পুত্র।
 
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানান, কলারোয়ায় মাদক ভাগাভাগি নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইউনুস আলী দালাল (৪৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি ওয়ান শ্যুটার গান, ২ রাউন্ড গুলি ও ৭০ বোতল ভারতীয় ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। শুক্রবার ভোররাতে উপজেলার সোনাবাড়িয়া ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত ইউনুস আলী দালাল উপজেলার দক্ষিণ ভাদিয়ালি গ্রামের আব্দুল্লাহ দালালের ছেলে।
 
টেকনাফ (কক্সবাজার) সংবাদদাতা জানান, টেকনাফের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী এক ইউপি সদস্য বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। নিহত আখতার কামাল (৪০) সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার। তিনি উপজেলার মুন্ডার ডেইল গ্রামের মৃত নজির আহমদ মেম্বারের পুত্র ও জেলা বিএনপি নেতা সুলতান আহমদের শ্যালক।
 
পুলিশ জানায়, জুমাবার ভোর রাতে হিমছড়ি দরিয়ানগর এলাকায় গোলাগুলির সংবাদ পেয়ে পুলিশের টহল দল ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই বাকি দুষ্কৃতিকারীরা পালিয়ে যায়। পরে মেরিন ড্রাইভের পাশে পরিত্যক্ত একটি লাশ দেখতে পায় পুলিশ।
 
গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, ফুলছড়িতে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জুয়েল মিয়া (৪৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোর রাতে উপজেলার পুলবন্দি ফলিয়া ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। জুয়েল মিয়া সদর উপজেলার ব্রিজ রোড মিস্ত্রি পাড়া এলাকার মৃত নছিম উদ্দিনের ছেলে।
 
স্থানীয়রা জানান, জুয়েল মিয়া তার এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত। তার বিরুদ্ধে আনুমানিক ৪/৫ টি মাদক মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।
 
ইত্তেফাক/এএম
 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩৩
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৩
মাগরিব৫:৫৭
এশা৭:১০
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫২