জাতীয় | The Daily Ittefaq

নতুন প্রজন্মকে দেশ সেবার উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে : আনোয়ার হোসেন মঞ্জু

নতুন প্রজন্মকে দেশ সেবার উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে : আনোয়ার হোসেন মঞ্জু
নতুন প্রজন্মকে দেশ সেবার উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে : আনোয়ার হোসেন মঞ্জু
জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান ও পানি সম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেছেন, শিক্ষা বিস্তারে অবকাঠামো সুবিধা নিশ্চিতকরণসহ আনুসাঙ্গিক ব্যবস্থা গ্রহণ যেমন সরকারের দায়িত্ব তেমনি এই সুযোগকে ব্যবহার করে নতুন প্রজন্মকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। সামাজিক নেতৃত্ব, শিক্ষক ও অভিভাবকদের সহযোগিতায় ছাত্র-ছাত্রীদের নিজেদেরকে আগামী দিনের জন্য দেশ সেবার উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে। পাশাপাশি জনগণ ও জনপ্রতিনিধিদের মধ্যকার সম্পর্ক যাতে সৌহার্দ্যপূর্ণ হয় তার প্রচেষ্টা থাকা আবশ্যক। মানুষের ভাল থাকা  অনেকাংশে নির্ভর করে চেয়ারম্যান-মেম্বরদের সদাচারণের উপর। যদি তাদের মধ্যে দৌরাত্মপূূর্ণ মনোভাব থাকে তাহলে মানুষের দুর্ভোগ বাড়ে।  
 
মন্ত্রী গতকাল সোমবার পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া ও কাউখালীর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সড়ক, নদী ভাঙ্গনরোধে রক্ষাপ্রদ বাঁধ, সেতু ইত্যাদি নির্মাণ কাজ উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত কয়েকটি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আরও বলেন, নুতন প্রজন্ম আমাদের এই অবহেলিত অঞ্চলের অতীত ইতিহাস জানে না। ৩৪ বছর আগে যখন আমরা প্রথম ভান্ডারিয়াসহ দক্ষিণাঞ্চলের পশ্চাদপদ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের কাজে নিয়োজিত হই তখন এখানকার যোগাযোগ-শিক্ষা-স্বাস্থ্য-বিদ্যুত্ ইত্যাদি বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নের মাত্রা ছিল খুবই নগন্য। ঢাকার মানুষ বিশ্বাসই করতে পারতেন না নদী-খালের এই দেশে নৌকার কোন বিকল্প যানবাহন বা রাস্তা-ঘাট তৈরী করে গাড়ী চলতে পারে। আজ যে পরিবর্তন এ সব ক্ষেত্রে হয়েছে তা সম্ভব হয়েছে এলাকার মানুষের ঐক্য, উন্নয়ন আকাঙ্খা তথা অব্যহত ভাগ্য পরিবর্তনের চেষ্টায় ব্যপৃত থাকার ফলে। এ পরিবর্তনের ধারায় নতুন স্বপ্ন, নতুন আশা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।
 
আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেন, দক্ষিণাঞ্চলে উন্নয়ন ক্ষেত্রের এই অগ্রগতি সাধিত হয়েছে মূলতঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারগুলোর ক্ষমতায় থাকা কালেই। তাই আগামীতেও যাতে শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আসে তার জন্য এ এলাকার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। যাতে উন্নয়নের এই ধারা আরও গতি অর্জন করতে পারে তার জন্য প্রচেষ্টা থাকা আবশ্যক। তিনি বলেন, আল্লাহ তার বান্দাদের জন্য যে রহমত নাজিল করেন তা উন্নয়নের নানা পথে ফুটে উঠে। আর আল্লাহর এই ইচ্ছা কারও কারও মাধ্যমে বাস্তবায়িত হয় বলে আমরা ৩৪ বছর ধরে মানুষের খেদমত করার সুযোগ পাচ্ছি। আমরা যখন এলাকায় প্রথম আসি তখন থেকে আজ পর্যন্ত রাজনৈতিক দলমত নির্বিশেষে জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, রাজনীতিবিদ, এলাকার মুরব্বী ও প্রশাসনের সম্মিলিত সহযোগিতা লাভ করে আসছি। এর মধ্যে ১৭ বছর মন্ত্রী হিসাবে সরকারে থেকে প্রাপ্ত ক্ষমতা সদ্ব্যবহার করে এলাকাবাসীর জন্য কাজ করতে পারছি। আমরা মনে  করি এলাকার জন্য যেমন অনেক কাজ আমাদের দ্বারা সম্পন্ন হয়েছে তেমনি আরও অনেক কাজ বাকি আছে। বঙ্গবন্ধু’র আমলে দেশে পর্যাপ্ত সম্পদ ছিল না। ক্রমান্বয় তা বাড়তে বাড়তে এই সরকারের সময় এই সম্পদ প্রভূত আকারে রূপ নিয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো ক্ষেত্রে গুনগত ও পরিমানগত ব্যাপক উন্নয়ন, রাস্তা-ঘাট, বিদ্যুত্, বেড়িবাঁধ ইত্যাদি নির্মাণে অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। বেকারত্ব কমে যুবকদের কর্মসংস্থান বেড়েছে। সরকার যে বরাদ্দ দেয় তা পূর্ণ সদ্ব্যবহার হয় না। সম্পদ ব্যবহারের ক্ষেত্রে অপচয়ের মাত্রা রোধ করা গেলে কাজ বেশি হতো, উন্নয়ন আরও বাড়তো। তাই কাইজ্যা-ঝগড়া-বিবাদ না করে এলাকাবাসীকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে উন্নয়নের স্বার্থে।  
 
সোমবার বিকালে ভান্ডারিয়া উপজেলার ভিটাবাড়িয়া নূরজাহান হাবিব আদর্শ বালিকা বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি খান এনায়েত করিমের সভাপতিত্বে এক সমাবেশে আনোয়ার হোসেন মঞ্জু প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।
 
এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভান্ডারিয়ার ইউএনও শাহীন আক্তার সুমী, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জাহিদুল হক, ভিটাবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান খান এনামুল কবির পান্না, কাজি ওয়াহেদুজ্জামান বাচ্চু, জেপি নেতা ইউসুফ আলী আকন প্রমুখ। এরপর উত্তর ভিটাবাড়িয়া নূরজাহান মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে মন্ত্রীর সাথে ছিলেন ভান্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা জেপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক আতিকুল ইসলাম তালুকদার উজ্জল, ধাওয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা জেপি’র সদস্য সচিব সিদ্দিকুর রহমান টুলু প্রমুখ।
 
আনোয়ার হোসেন মঞ্জু গতকাল দুপুরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় ভান্ডারিয়া উপজেলার ভিটাবাড়িয়া ইউনিয়নের ভিটাবাড়িয়া নূরজাহান হাবিব আদর্শ বালিকা মাধ্যামিক বিদ্যালয়ের চার তালা ভিত বিশিষ্ট একতালা একডেমিক ভবন নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন শেষে দোয়া ও মোনাজাত অংশ নেন। এরপর এলজিইডি’র  ব্যবস্থাপনায় উপজেলার ভিটাবাড়িয়া ইউপি অফিস হতে কাপালিরহাট ভায়া কাজিরউলা হাট পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন শেষে দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন মন্ত্রী। পরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় ভান্ডারিয়া উপজেলার একই ইউনিয়নের উত্তর ভিটাবাড়িয়া নূরজাহান মেমোরিয়াল মাধ্যামিক বিদ্যালয়ের চারতলা একডেমিক ভবন নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে দোয়া ও মোনাজাত অংশ নেন।
 
মন্ত্রী গতকাল বিকালে কাউখালী উপজেলায় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় শিয়ালকাঠি ইউনিয়নে জোলাগাতি এমএ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের চারতলা একাডেমিক ভবন নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন। এরপর উপজেলার চিড়াপাড়া ইউনিয়নের পারসাতুরিয়া দাখিল মাদ্রাসার বিদ্যমান একাডেমিক ভবনের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ কাজের উদ্বোধন উপলক্ষে দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন। এখানে মন্ত্রী উপস্থিত স্বতঃস্ফুর্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। এ সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ খান খোকন উপস্থিত ছিলেন।
 
এরপর আনোয়ার হোসেন মঞ্জু উপজেলার কাউখালী ইউনিয়নের কাউখালী কেন্দ্রীয় আলিম দাখিল মাদ্রাসার চারতালা একাডেমিক ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন উপলক্ষে দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন।
 
এরপর উপজেলা পরিষদ চত্বরে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে আয়োজিত ফলজ বৃক্ষমেলা উদ্বোধন করেন। এ সময় কৃষি উন্নয়ন অধিদপ্তরের পিরোজপুরের উপ-পরিচালক আবু হেনা মোহাম্মদ জাফর, কাউখালী উপজেলা চেয়ারম্যান আহসান কবির, কাউখালীর ইউএনও শাহীন আক্তার সুমী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মিঠু, কাউখালী ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুর রশীদ মিল্টন, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আলী আজিম শরীফ, উপজেলা জেপি’র সভাপতি মাহবুবুর রহমান খান, যুব সংহতির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম নসু, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুনীল কুন্ড প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। পরে তিনি অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের থেকে প্রাপ্ত নগদ অর্থের চেক বিতরণ করেন। 
 
রাতে মন্ত্রী এলজিইডি’র ব্যবস্থাপনায় কাউখালী গালর্স হাইস্কুল-লঞ্চ ঘাট হয়ে সিনেমা হল সড়ক-কাউখালী উপজেলা ডাকবাংলা মোড়-কাউখালী-স্বরূপকাঠি সওজ সড়ক-শ্রীগুরু আশ্রম গেট ভায়া উজিয়ালখান উদয়ন ক্লাব পর্যন্ত সড়কের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এরপর তিনি বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে কাউখালী সদর ইউনিয়নের খাদ্য গুদামের সামনের সন্ধ্যা নদীর ভাঙ্গনরোধে রক্ষাপ্রদ বাঁধ নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন করেন। পরে মন্ত্রী ত্রাণ অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় কাউখালী সদর ইউনিয়নের চরবাশুরী বেড়িবাঁধ সংলগ্ন খালের উপর সেতু নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। 
 
শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় রাতে তিনি উপজেলার সদর ইউনিয়নের কাঠালিয়া পিজিএস বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কারিগরি স্কুল এন্ড কলেজের বিদ্যমান একাডেমিক ভবনের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ কাজের উদ্বোধন করেন।
 
এরপর তিনি এলজিইডি’র ব্যবস্থাপনায় একই ইউনিয়নের জয়পুর জিসি হতে শাহীন মেম্বারের বাড়ী পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। রাতে মন্ত্রী গোশনতারা গ্রামে খালের পাড়ে বন বিভাগের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপন করেন। এসকল কর্মসূচি শেষে পৃথক পৃথকভাবে মন্ত্রী দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন।
 
ইত্তেফাক/ইউবি
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২২ অক্টোবর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৪৪
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫০
মাগরিব৫:৩০
এশা৬:৪৩
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৫