জাতীয় | The Daily Ittefaq

উচ্চ শিক্ষায় দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

উচ্চ শিক্ষায় দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী
বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার১৭ আগষ্ট, ২০১৮ ইং ২০:৪২ মিঃ
উচ্চ শিক্ষায় দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী
উন্নত দেশ গড়ে তুলতে হলে উচ্চ শিক্ষায় দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হবে বলে মন্তব্য করেছন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, উন্নত দেশ গড়ার জন্য দেশের মানুষ ও নতুন প্রজন্মকে যোগ্য করে গড়ে তুলতে হবে। প্রচলিত শিক্ষা ও শিক্ষা পদ্ধতির গুণগত পরিবর্তন করতে না পারলে সে লক্ষ্য অর্জন করা সম্ভব হবে না। 
 
শুক্রবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের অ্যালামনাই ফ্লোরে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ঢাকা  ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন (ডুয়া) এই আলোচনা সভার আয়োজন করে। 
 
আলোচনা সভায় ডুয়ার সভাপতি এ.কে. আজাদের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, ঢাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক মাকসুদ কামাল, অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী সদস্য সুভাষ চন্দ্র সিংহ রায় প্রমুখ। 
 
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, উন্নত দেশ গড়ার জন্য যুগের সাথে সম্পর্কিত আধুনিক ও বিশ্বমানের শিক্ষা গড়ে তুলতে হবে। ছেলে ও মেয়েদের শিক্ষায় সমতা অর্জন করতে হবে। বর্তমান সরকার এসব লক্ষ অর্জনে নানামুখী কর্মসূচি গ্রহণ করে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় গুরুত্ব দিয়ে যাচ্ছে। মাদ্রাসা শিক্ষায় মৌলিক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। নতুন প্রজন্মকে দক্ষ করে গড়ে তুলতে ও নতুন নতুন জ্ঞান সৃষ্টিতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আমাদের ভুলত্রুটি আছে তবে তা ধরিয়ে দিলে আমরা তা পরিবর্তনের চেষ্টা করছি। 
 
নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, বাংলার মানুষের মুক্তিই ছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনের মূল লক্ষ্য ও আদর্শ। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালির জাতির মাঝে বেঁচে থাকবেন চিরকাল। জাতির জনকের আদর্শ নতুন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। 
 
অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ বলেন, বঙ্গবন্ধু ক্ষুধা-দারিদ্রমুক্ত, নিপীড়ন-শোষণমুক্ত সোনার বাংলা গড়তে চেয়েছিলেন। কিন্তু যারা তার আদর্শের শত্রু ছিল তারা ৭৫ এর ১৫ আগস্ট তাকে স্ব-পরিবারে হত্যা করে। 
 
সভাপতির বক্তব্যে এ.কে. আজাদ বলেন, আমাদের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে। বঙ্গবন্ধু তরুণ বয়সেই নেতৃত্বের গুণাবলি অর্জন করেছিলেন। তিনি সারা জীবন মানুষের জন্য সংগ্রাম করেছেন, মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য লড়েছেন। তিনি বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে তার অসমাপ্ত আত্মজীবনী ও কারাগারের রোজনামচা বই দুটি পড়ার জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানান।
 
ইত্তেফাক/জেডএইচ
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩১
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৫
মাগরিব৫:৫৯
এশা৭:১২
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৪