জাতীয় | The Daily Ittefaq

আনুপাতিক হারে কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপনে প্রকল্প গ্রহণের সুপারিশ

আনুপাতিক হারে কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপনে প্রকল্প গ্রহণের সুপারিশ
অনলাইন ডেস্ক২৮ আগষ্ট, ২০১৮ ইং ১৯:০৩ মিঃ
আনুপাতিক হারে কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপনে প্রকল্প গ্রহণের সুপারিশ
সরকারি প্রতিশ্রুতি কমিটি বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে দেশের প্রত্যেক উপজেলায় আনুপাতিক হারে কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপনে প্রকল্প গ্রহণের সুপারিশ করেছে।
 
দশম জাতীয় সংসদের সরকারি প্রতিশ্রুতি কমিটির সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে আজ মঙ্গলবার এই সুপারিশ করা হয়। কমিটির সভাপতি মো. আব্দুস শহীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে কমিটির সদস্য আলহাজ এডভোকেট মো. রহমত আলী, মো. আব্দুল মজিদ খান এবং মীর মোস্তাক আহমেদ রবি অংশগ্রহণ করেন।
 
বৈঠকে জানানো হয়, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের আওতায় ২০১৮-১৯ অর্থবছরে মোট ৭১টি প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। এ ৭১টি প্রকল্পে মোট বরাদ্দ পাঁচ হাজার সাতশ’ ৩৫ কোট ৮৫ লাখ টাকা।
 
২০১৮-১৯ অর্থবছরের জুলাই-২০১৮ মাস পর্যন্ত মোট বরাদ্দকৃত অর্থের মধ্যে ব্যয় হয়েছে মাত্র মোট ১৩ কোটি ১৪ লাখ টাকা অর্থাৎ জুলাই’১৮ পর্যন্ত আর্থিক অগ্রগতি দশমিক ২৩ শতাংশ।
 
অপরদিকে, জুলাই, ২০১৮ মাস পর্যন্ত জাতীয়ভাবে এডিপি বাস্তবায়নের গড় অগ্রগতি শতকরা দশমিক ৫৭ ভাগ।
জাতীয় অগ্রগতির তুলনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আর্থিক অগ্রগতি দশমিক ৩৪ শতাংশ কম।
 
বেঠকে জানানো হয়, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের আওতায় দশটি প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন আছে। এ দশটি প্রকল্পের মোট বরাদ্দ সাতশ’ ৭৩ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জুলাই-২০১৮ পর্যন্ত কোনো অর্থব্যয় হয়নি।
 
দেশের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সব ছাত্রীকে উপবৃত্তির আওতায় আনার লক্ষ্যে সেকেন্ডারি এডুকেশন ষ্টাইপেন্ড প্রজেক্টের মাধ্যমে ১০ শতাংশ ছাত্র এবং ৩০ শতাংশ ছাত্রীকে উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে উল্লেখ করা হয়, সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের আওতায়ও একই হারে উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে।
 
স্কুল কলেজের নতুন ভবন নির্মাণে প্রকল্প গ্রহণের আগে অবশ্যই সঠিক ও সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা গ্রহণ করে প্রকল্প পাশ করার জন্যও পরামর্শ দেওয়া হয়। ভবিষ্যতে নতুন প্রকল্প যাতে গ্রহণ করতে না হয় এবং প্রকল্প ব্যয় বৃদ্ধি না পায় সেজন্যই এ পরামর্শ দেয়া হয়েছে।
 
স্কুল কলেজের অবকাঠামোগত উন্নয়ন কাজের দিকে আরো বেশি গুরুত্ব প্রদান এবং অবকাঠোমো উন্নয়নে যে সব প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে তা অতিদ্রুত শুরু করার সুপারিশ করা হয়। উচ্চশিক্ষা এবং গবেষণা খাতে সরকারের আর্থিক বরাদ্দ বৃদ্ধি পাওয়ায় গবেষণা কাজে ছাত্র/ছাত্রীদেরকে আকৃষ্ট করতে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণে বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনকে ভুমিকা পালনের পরামর্শ দেওয়া হয়।
 
মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিবসহ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বাসস
 
ইত্তেফাক/কেকে
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩৪
যোহর১১:৫১
আসর৪:১১
মাগরিব৫:৫৪
এশা৭:০৭
সূর্যোদয় - ৫:৪৮সূর্যাস্ত - ০৫:৪৯