জাতীয় | The Daily Ittefaq

নেতৃত্ব নিয়ে ঐক্যপ্রক্রিয়ায় জটিলতা

নেতৃত্ব নিয়ে ঐক্যপ্রক্রিয়ায় জটিলতা
বিএনপির স্থায়ী কমিটিতে আলোচনা
ইত্তেফাক রিপোর্ট২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ০৩:৫৪ মিঃ
নেতৃত্ব নিয়ে ঐক্যপ্রক্রিয়ায় জটিলতা
বৃহত্তর ঐক্যের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হলেও একক না যৌথ নেতৃত্বে চলবে তা নিয়ে জটিলতা দেখা দিয়েছে। নেতৃত্ব কে দিবে তা নিয়ে চলছে সংকট। বিএনপির ভেতরেও রয়েছে এনিয়ে মতবিরোধ। কোন কোন নেতা চাচ্ছেন না যে, ড.কামাল হোসেন বা ডা.বদরুদ্দোজা চৌধুরী নেতৃত্ব দিক, নেতৃত্ব থাকুক বিএনপির হাতে। গতকাল রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈধকে এনিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানা যায়।
 
জানা গেছে, বি. চৌধুরী চান তিনি নেতৃত্ব দিবেন। ড.কামাল ও তার সমর্থকরা চান তিনি নেতৃত্ব দিবেন। বিএনপির নেতারা চান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নেতৃত্ব দিবেন। এই নেতৃত্ব নিয়ে ঐক্যপ্রক্রিয়ার শুরুতে যে মতপার্থক্য ছিল, তা আরও বেড়েছে। ২২ সেপ্টেম্বর ঐক্য প্রক্রিয়ার দলগুলোকে একমঞ্চে দেখা গেলেও নেতা নির্বাচন নিয়ে মতদ্বৈধ থেকেই গেছে।
 
সূত্র জানিয়েছে, শনিবার মহানগর নাট্যমঞ্চে সমাবেশের পর ঐক্য প্রক্রিয়ার অন্যতম নেতা গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে যান সমমনা দলগুলোর নেতারা। সেখানে বিকল্পধারা সভাপতি অধ্যাপক ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরীরকে আহ্বায়ক এবং ড. কামাল হোসেন ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে যুগ্ম আহ্বায়ক করার প্রস্তাব দেন তারা। কিন্তু বিরোধিতা থাকার কারণে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ড. কামালের নেতৃত্বেই জাতীয় ঐক্য চালানোর পক্ষে অনেকে। বিএনপি নেতা একক নেতৃত্বের বিষয়ে ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে আস্থায় নিতে পারছেন না। কারণ বিএনপির কাছে খবর আছে, তার ছেলে মাহি বি. চৌধুরীর সঙ্গে ক্ষমতাসীন দলের উচ্চপর্যায়ের ব্যক্তিদের ঘনিষ্ঠতা রয়েছে, তাদের সঙ্গে তার ব্যবসাও রয়েছে। এছাড়া মাহি বি. চৌধুরীর নানা কথাবার্তায়ও সন্দেহ আছে তাদের। এ অবস্থায় ড. কামাল হোসেনের ওপরই বিএনপির তুলনামুলক বেশি আস্থা। তবে কিছু নেতা সমস্যা সমাধানে ড. কামাল, বি. চৌধুরী, ফখরুলের যৌথ নেতৃত্ব চাচ্ছেন।
 
যদিও শনিবার নবগঠিত ঐক্য প্রক্রিয়ায় ড. কামাল হোসেনকে মূল নেতা হিসেবে ঘোষণা করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফখরুল বলেন, এই ঐক্য প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ড. কামাল হোসেন দিশেহারা জাতিকে পথ দেখাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেন। কিন্তু তা মানতে নারাজ বিএনপির কোন কোন নেতা। কারো একক নেতৃত্বে নয়, যার যার অবস্থান থেকে যুগপত্ আন্দোলনের কথা বলছেন তারা।
 
এ প্রসঙ্গে স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী গতকাল রবিবার গণমাধ্যমকে বলেন, এখন কারোর একক নেতৃত্বে কিছু হবে এমনটা এখনো হয়নি যার যার অবস্থান থেকে সবাই সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। এখানে একতা থাকলেই যথেষ্ট। নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান বলেন, আন্দোলন যৌথ নেতৃত্বেও হতে পারে। স্টিয়ারিং কমিটির মাধ্যমে সবার সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আন্দোলন কীভাবে হবে একমঞ্চে না যুগপত্, এ বিষয়েও সবার সঙ্গে আলোচনা হতে হবে। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে বৃহত্তর ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতারা তিন বিভাগীয় শহর রাজশাহী, সিলেট ও ময়মনসিংহে জনসভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এদিকে ড. কামাল হোসেন গতকাল ইডেন কমপ্লেক্সে গণফোরাম নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। তিনি সেখানে বলেন, জাতীয় ঐক্য জেলা, উপজেলা, গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত বিস্তৃত করতে হবে।
 
ইত্তেফাক/আরকেজি
 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৯
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪