রাজনীতি | The Daily Ittefaq

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নিতে ঐক্যের বিকল্প নেই : মোহাম্মদ নাসিম

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নিতে ঐক্যের বিকল্প নেই : মোহাম্মদ নাসিম
বিশেষ প্রতিনিধি১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ইং ০১:৪৬ মিঃ
মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নিতে ঐক্যের বিকল্প নেই : মোহাম্মদ নাসিম

আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিতে ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। চোখের মণির মতো ১৪ দলীয় ঐক্যকে রক্ষা করে আগামী নির্বাচন ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবিলা করতে হবে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের লালনকারীদের বর্জন করতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে জাসদ কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটি আয়োজিত কাজী আরেফ আহমেদের স্মরণ সভায় তিনি এ কথা বলেন। কাজী আরেফের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, সন্ত্রাসবিরোধী আন্দোলনে সাহসী ভূমিকা পালন করতে গিয়েই তিনি শহীদ হয়েছিলেন।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে আন্দোলনে কাজী আরেফ আহমেদ ছিলেন অগ্রণী। তিনি বলেন, রাজনৈতিকভাবে জঙ্গিবাদ-সাম্প্রদায়িকতা মোকাবিলার পাশাপাশি পাঠ্যসূচি থেকে শুরু করে শিক্ষা সংস্কৃতির সকল ক্ষেত্রে সাম্প্রদায়িকতা মোকাবিলার কাজে আরো মনোযোগ দিতে হবে।

জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, জঙ্গি ও জঙ্গিসঙ্গীর কাঁটা উপড়ে ফেলেই দেশ নির্বাচনের পথে এগিয়ে যাবে। গণতন্ত্র-শান্তি-উন্নয়নের ধারা এগিয়ে যাবে, জঙ্গি আর জঙ্গিসঙ্গী এক চুলও ছাড় পাবে না। তিনি বলেন, বিএনপি জঙ্গিবাদের ডিমে তা দিয়ে বাচ্চা ফোটানোর যন্ত্র। বেগম জিয়া বিএনপিকে দিয়ে             জঙ্গিবাদের বাচ্চা ফোটাচ্ছেন। বিএনপিকে জঙ্গি উত্পাদন-পুনরুত্পাদনের কারখানায় পরিণত করেছে।

কাজী আরেফ আহমেদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে হাসানুল হক ইনু বলেন, পঁচাত্তরের রাজনৈতিক বিপর্যয়ের পর মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ-বিপক্ষ শক্তির দ্বন্দ্ব্বই রাজনীতির প্রধান দ্বন্দ্ব হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিল, তা তিনি সঠিকভাবে উপলব্ধি করে গণতান্ত্রিক সংগ্রামের তত্ত্ব বিনির্মাণ করেছিলেন।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান শওকত, আফরোজা হক রীনা, ফজলুর রহমান বাবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরুল আখতার, সহ-সভাপতি সফি উদ্দিন মোল্লা, শহীদুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু, নইমুল আহসান জুয়েল, কাজী আরেফ আহমেদের ছোট ভাই কাজী মাসুদ আহমেদ, জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও কাজী আরেফ আহমেদের ভাতিজী কাজী সালমা সুলতানা, ছাত্রলীগ সভাপতি মুহাম্মদ সামছুল ইসলাস সুমন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এদিকে কাজী আরেফের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাসদ সকাল ৮টায় মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে আরেফের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন ও কবরস্থান কমপ্লেক্সে ঢাকা মহানগর পশ্চিম জাসদের উদ্যোগে পথসভার আয়োজন করে। মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থান প্রাঙ্গণে আয়োজিত স্মরণ সভায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, যুদ্ধাপরাধীরা ক্ষমা না চাওয়ায় আমরা বিপদে আছি। কারণ যে কোনো সময় তারা মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে। জাসদ ঢাকা মহানগর পশ্চিমের সভাপতি মাইনুর রহমানের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, কাজী আরেফ ফাউন্ডেশনের সভাপতি কাজী আরেফের ছোট ভাই কাজী মাসুদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সমন্বয়ক মীর হোসেন আকতার, উত্তরের সভাপতি শফিউদ্দিন মোল্লা প্রমুখ।

ইত্তফোক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৩ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৯
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪