রাজনীতি | The Daily Ittefaq

কাদেরকে হয়তো ‘রাজনীতি’ শেখাতে পারিনি: এমাজউদ্দিন

কাদেরকে হয়তো ‘রাজনীতি’ শেখাতে পারিনি: এমাজউদ্দিন
ইত্তেফাক রিপোর্ট২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং ২৩:৫১ মিঃ
কাদেরকে হয়তো ‘রাজনীতি’ শেখাতে পারিনি: এমাজউদ্দিন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যাল‌য়ের সা‌বেক ভি‌সি, বিএনপিপন্থি বুদ্ধিজীবী অধ্যাপক এমাজউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, আমার এককালীন ছাত্র আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি জেনারেল ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন- ঘরের মধ্যে থেকে রাজনীতি করেন অথবা অফিসে বসে রাজনীতি করেন। অফিসে বসে যে রাজনীতি হয় না, ঘরের মধ্যে থেকে যে রাজনীতি হয় না- এখন এই তরুণকে আমি কেমন করে শেখাব? শেখাতে পারিনি হয়ত, এ আমারই ব্যর্থতা। সে হয়তো জানে না রাজনীতি সব জায়গাতে হয় না। সে আমার ছাত্র ছিলো। আমি হয়তো তাকে রাজনীতি শেখাতে পারিনি। তাই এ মুহূর্তে তার কথা শুনে থাকাই ভালো।

গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনায় এ কথা বলেন এমাজউদ্দিন।

‘খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ও সংকটে আগামী জাতীয় নির্বাচন’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করে স্বাধীনতা অধিকার আন্দোলন। সংগঠনের সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির সভাপতিত্বে আলোচনায় বক্তব্য দেন এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম, এলডিপির যুগ্ম সম্পাদক শাহাদাত হোসেন সেলিম ও বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতউল্লাহ্ প্রমুখ।

এমাজউদ্দিন বলেন, প্রধামমন্ত্রী যতই বলুক কাউকে ভোটে আনার দায়িত্ব সরকারের নয়। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরপেক্ষতা ও সবার অংশগ্রহণের পরিবেশ প্রধানমন্ত্রীকেই তৈরি করতে হবে। আর এটা না করে নির্বাচন ব্যবস্থায় যাওয়া যাবে না।

কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বলেন, খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে হলে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে- খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে বিএনপি ও ২০ দল নির্বাচনে অংশ নেবে কিনা? কারণ এখন ঐক্যবদ্ধ হতে না পারলে আন্দোলন সফল হবে না। কারণ বর্তমান সরকার সহজে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেবে না।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানের কোনো সম্পৃক্ততা নেই বলেও মন্তব্য করে তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এলডিপি সভাপতি আরও বলেন, তৎকালীন সেনাসমর্থিত সরকারের সময় অনেক রাজনৈতিক নেতার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বর্তমান সরকারের অনেক নেতার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে; কিন্তু রাজনৈতিক বিবেচনায় তাদের মামলাগুলো পরিহার করা হয়েছে। আর খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের মামলাগুলো চালু রেখে তাদের হয়রানি করা হচ্ছে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে নির্জন কারাগারে পাঠিয়ে দেশের মানুষকে বেইজ্জতি করেছে সরকার। তাকে যেখানে রাখা হয়েছে সেটি তার জন্য নয়। তার সঙ্গে যে অন্যায় করা হয়েছে এর জবাব দেশের মানুষ একদিন দিবে।

তিনি আরও বলেন, দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে বর্তমান সরকারের অনেক মন্ত্রী-এমপি সপদে বহাল আছেন, তাদের কারাগারে যেতে হয়নি। কিন্তু খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে নির্জন কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৪
মাগরিব৫:৫৮
এশা৭:১১
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৩