রাজনীতি | The Daily Ittefaq

বুলবুলের মনোনয়ন চূড়ান্ত, সিলেটে আরিফুল বরিশালে সরোয়ারের সম্ভাবনা

তিন সিটির নির্বাচনে বিএনপি
বুলবুলের মনোনয়ন চূড়ান্ত, সিলেটে আরিফুল বরিশালে সরোয়ারের সম্ভাবনা
আনোয়ার আলদীন২২ জুন, ২০১৮ ইং ০১:২৫ মিঃ
বুলবুলের মনোনয়ন চূড়ান্ত, সিলেটে আরিফুল বরিশালে সরোয়ারের সম্ভাবনা
বিএনপি দলীয় বর্তমান দুই মেয়র; রাজশাহীর বুলবুল এবং সিলেটের আরিফুল
রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি থেকে মেয়রপদে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিয়েছে দলের মনোনয়ন বোর্ড। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫ টার পর থেকে রাত পর্যন্ত বিএনপির চেয়ারপারসনের গুলাশান কার্যালয়ে মনোনয়ন-প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়া হয়। কারা চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছেন সে বিষয়ে দলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে কিছু জানানো হয়নি।
 
তবে দলের স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য ইত্তেফাককে জানান, তিন সিটির মোট ১৭ জন মনোনয়ন প্রত্যাশীর সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয়েছে। তাদের মধ্যে রাজশাহীর মেয়র ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে। তার প্রার্থীতা চূড়ান্ত করা হয়েছে।
 
সিলেটে বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এবং বরিশালের বর্তমান মেয়র আহসান হাবিব কামালের বিরুদ্ধে স্থানীয় নেতাদের আপত্তি রয়েছে। অবশ্য বরিশালে কামালের পরিবর্তে কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও সাবেক মেয়র মুজিবর রহমান সরোয়ারকে ও সিলেটে আরিফুল হক চৌধুরীকে মনোনয়ন দেয়ার সুপারিশ করে মনোনয়ন বোর্ড। তবে কামাল ও আরিফুলের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিবেন দলের হাইকমান্ড। 
 
আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, সাক্ষাৎকারে দলের পক্ষে থেকে আমাকে বলা হয়েছে, সেখানে অন্য কাউকে প্রার্থী করা হলে আমার অবস্থান কী হবে? আমি বলেছি, দল যাকে মনোনয়ন দেবে, আমি তার পক্ষে কাজ করবো।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাকেও নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলেছেন। আমি নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছি।
 
রাজশাহীর মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, আমাকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে। আমার সিটি থেকে আর কেউ মনোনয়নও সংগ্রহ করেননি। একমাত্র আমিই মনোনয়ন সংগ্রহ করেছি। আমি প্রস্তুতি নিচ্ছি। এদিকে বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু জানান, বুলবুলের ব‍্যাপারে সিদ্ধান্ত আছে। রাজশাহীতে তার জনপ্রিয়তা ব‍্যাপক।
 
মুজিবর রহমান সরোয়ার বলেন, বরিশালের নেতা-কর্মীরা আমার জন্য ফরম ক্রয় করেছে। মহাসচিব আমাকে ডেকেছেন, আমি সাক্ষাৎকার দিয়েছি। দল চাইলে নির্বাচন করব। আমি মেয়র প্রার্থী হতে রাজি ছিলাম না। আমি প্রস্তুতি নিচ্ছি।
 
বরিশালের মেয়র পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ বলেন, সাক্ষা‍ৎকার শেষে কাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে তা জানতে পারিনি। দলের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে যাকে দল মনোনয়ন দেবে তার সঙ্গে কাজ করবো।
 
সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে মনোনয়ন-প্রত্যাশী মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি ও প্যানেল মেয়র রেজাউল হাসান কয়েস লোদী বলেন, মনোনয়ন বোর্ড কোনও সিদ্ধন্ত দেয়নি। আমরা সিলেটের সব মনোনয়ন-প্রত্যাশী বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন না দিতে দলের নীতি নির্ধারকদের অনুরোধ করেছি। কারণ তিনি এখন আর বিএনপির নেতা নেই। দলের কোনও কর্মসূচিতে তাকে পাওয়া যায়নি। তাই তার বাইরে দল যাকে মনোনয়ন দেবে, আমরা সবাই তার পক্ষ হয়ে নির্বাচনে কাজ করবো বলে এসেছি।
 
বিএনপির মনোনয়ন বোর্ডে উপস্থিত ছিলন—দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টা মওদুদ আহমেদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মাহবুবুর রহমান, ড. মঈন খান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।
 
বরিশালের জন্য সাক্ষাৎকার দেন মজিবর রহমান সরোয়ার,বর্তমান মেয়র আহসান হাবিব কামাল, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি এবাদুল হক চান, মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জিয়া উদ্দিন সিকদার, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম শাহীন, কেন্দ্রীয় বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরিন, কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আফরোজা খানম নাসরিন, সাবেক ছাত্রনেতা আলী হায়দার বাবুল, দক্ষিণ জেলা যুবদলের সভাপতি অ্যাডভোকেট পারভেজ আকন বিপ্লব।
 
সিলেটে জন্য সাক্ষাৎকার দেন বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সিলেট মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী, সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, সহ-সভাপতি ও প্যানেল মেয়র রেজাউল হাসান কয়েস লোদী ও মহানগর নেতা ছালাহউদ্দিন রিমন।
 
উল্লেখ্য, নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৩০ জুলাই রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট গ্রহণ হবে। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৮ জুন। প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা যাবে ৯ জুলাই।
 
ইত্তেফাক/কেআই 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২০ জুলাই, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৫৭
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫০
এশা৮:১২
সূর্যোদয় - ৫:২২সূর্যাস্ত - ০৬:৪৫