রাজনীতি | The Daily Ittefaq

বিএনপির নির্বাচনে আসার পথে বাধা সৃষ্টি করছে আওয়ামী লীগ: ফখরুল

বিএনপির নির্বাচনে আসার পথে বাধা সৃষ্টি করছে আওয়ামী লীগ: ফখরুল
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৯ আগষ্ট, ২০১৮ ইং ১৯:১৩ মিঃ
বিএনপির নির্বাচনে আসার পথে বাধা সৃষ্টি করছে আওয়ামী লীগ: ফখরুল
ফাইল ছবি
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ প্রকৃতপক্ষে চায় না বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। সেজন্য তারা বিভিন্ন রকম কথাবার্তা বলে সমস্যা তৈরি করে বিএনপিকে নির্বাচনে আসার পথে বাধা সৃষ্টি করছে। তিনি বলেন, খুব স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই, সব বাধা অতিক্রম করে খালেদা জিয়াকে এবং গণতন্ত্রকে মুক্ত করে নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ আমরা।
 
রবিবার শেরেবাংলা নগর দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে বিএনপির অঙ্গ সংগঠন জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের নিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।
 
মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ আরেকটি চক্রান্ত করছে। সেই চক্রান্তের মধ্য দিয়ে দেশে আরেকটি বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে গণতন্ত্র পুনরায় ফিরিয়ে আনার পথ রুদ্ধ করতে চায় তারা। আমি আগেও বলেছি, ১/১১ সরকারের সুবিধাভোগী হচ্ছে আওয়ামী লীগ। তারা ক্ষমতায় এসে ১/১১-এর কুশীলবদের ক্ষমা করে দিয়েছে। সুতরাং আওয়ামী লীগই এ ধরনের চক্রান্ত করে। এখন তারাই আরেকটি চক্রান্ত করছে যাতে দেশে গণতন্ত্র ফিরে না আসে। ১/১১-এর মধ্যে বিএনপিকে টেনে আনা মানেই হচ্ছে এখানে আওয়ামী লীগের কোনও কু-মতলব আছে। বিএনপির এক-এগারো করার প্রয়োজন কী?- এমন প্রশ্ন রেখে ফখরুল বলেন, এক-এগারোর সাথে বিএনপির তো কোনো সম্পর্ক নাই। বিএনপি তো এখন ড্রাইভিং সিটে নাই। আছে তারা (সরকার)। এক-এগারো করার অভিজ্ঞতা তাদের, এক-এগারোর সুবিধাভোগীও তারা। তারা এর মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে এবং তারা ওই অবৈধ সরকারকে সমর্থন করেছে শুধু নয়, তাদের সমস্ত কর্মকাণ্ডকে বৈধতা প্রদান করেছে।
 
বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা বরাবরই বলছি সংলাপ ছাড়া কোনও সমস্যার সমাধান করা সম্ভব নয়। আওয়ামী লীগ মুখে এ বিষয়ে দুই-একটি কথা বলে। কিন্তু বাস্তবে তার উল্টোটা করেন যেন বিএনপি না আসতে পারে। 
 
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া সারা জীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছে। এই সরকার তাকে কারাগারে আটকে রেখেছে। আজকে তাকে মুক্ত করার শপথ গ্রহণ করেছে স্বেচ্ছাসেবক দল। আজকে আমাদের অত্যন্ত জোরালো আহ্বান, কোটা সংস্কার আন্দোলন ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন করার কারণ যেসব নিরীহ যেসব শিক্ষার্থীকে অন্যায়ভাবে বন্দি করে রাখা হয়েছে তাদের ঈদের আগে মুক্তি দেওয়া হোক। ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রাপথে ব্যাপক ভোগান্তি ও যানজটের কথা তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন,সরকার উন্নয়নের কথা বলছে। উন্নয়ন কী হচ্ছে? এটা তো আপনাদের টেলিভিশনের পর্দায়। ১৮/২০/২৪ ঘণ্টা লাগছে একটা জায়গায় যেতে। কোনো উন্নয়ন নাই। আছে দুর্ভোগ আর ভোগান্তি। 
 
এ সময় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, শামসুজ্জামান দুদু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফিজুর রহমান, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসিন আলী, সাবেক দফতর সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাচ্চু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
 
ইত্তেফাক/এমআই
 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩১
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৫
মাগরিব৫:৫৯
এশা৭:১২
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৪