নারী আসনে মনোনয়নপত্র জমা ৪৯ প্রার্থীর

প্রকাশ : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:২১ | অনলাইন সংস্করণ

  ইত্তেফাক রিপোর্ট

সংরক্ষিত নারী আসনে ৪৯জন মনোনয়নপত্র জমা। ছবি: সংগৃহীত

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে ৪৯জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ৪৩জন, সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি-জাপা ৪জন, ওয়ার্কার্স পার্টি একজন ও স্বতন্ত্র একজন প্রার্থী হয়েছেন। তবে বিএনপির সংসদ সদস্যরা শপথ না নেয়ায় সংখ্যানুপাতে প্রাপ্ত একমাত্র আসনটি স্থগিত রয়েছে। এ আসনে কেউ মনোনয়নপত্র দাখিল করতে আসেননি। এ কারণে জাতীয় সংসদের ৫০টি সংরক্ষিত আসন থাকলেও একজন কম প্রার্থী রয়েছেন। সোমবার মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষদিনের মনোনয়নপত্র দাখিলের পর প্রার্থীদের মধ্যে উচ্ছ্বাস দেখা গেছে। 

নিজেদের প্রতিক্রিয়া জানাতে কয়েকজন প্রার্থী দেশের উন্নয়ন ও নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করার কথা জানান। শেষদিনে ৪৯টি আসনের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বী অন্য কেউ মনোনয়ন দাখিল না করায় মনোনয়ন দাখিলকারীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। 

মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় শেষ হওয়ার পর সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল কাশেম জানিয়েছেন, আজ মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে। অতিরিক্ত প্রার্থী না থাকায় আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের পরদিন চূড়ান্ত প্রার্থীদের সংসদ সদস্য ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করা হবে। তিনি বলেন, এরপর নবনির্বাচিতদের শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজনে স্পিকারের কাছে গেজেটের কপি পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

সোমবার সাড়ে তিনটার দিকে আওয়ামী লীগের ৪৩জন সংরক্ষিত নারী সদস্য প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র রিটার্নিং কর্মকর্তার হাতে তুলে দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, নারী আসনের মনোনয়নের ক্ষেত্রে আমার ত্যাগী এবং তৃণমূলকে প্রাধান্য দিয়েছি। সব সেক্টর ও কর্নারের প্রতিনিধিকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নারী আসন বাড়ানো নয়, কমানোর চিন্তা করছি। এমনিতেই ২৫ বছরের জন্য সংরক্ষিত নারী আসন সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত আছে। নারী ক্ষমতায়ন অনেকদূর এগিয়ে যাবে। অনেক আপগ্রেড হবে।

আরও পড়ুন: এবারও বেড়েছে হজযাত্রার খরচ

প্রার্থী বাছাইয়ে দলের কার্যক্রম তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, প্রার্থী বাছাইয়ে আমরা অনেক সময় নিয়েছি। আমাদের সভাপতি শেখ হাসিনা সংরক্ষিত নারী আসনের বিষয়ে দীর্ঘদিন ধরে দেখাশোনা করে আসছেন। জাতীয় সংসদে স্থান পাননি এমন অনেককে সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। দে আর অল ব্রিলিয়ান্ট, পোলাইট, কমিটেড এবং ডেডিকেটেড। তিনি বলেন, তারা আমাদের দলের প্রতি কমিটেড, দেশ ও মুক্তিযুদ্ধের প্রতিও তারা কমিটেড, আন্দোলন সংগ্রামে তাদের যে ত্যাগ ও ভূমিকা সেটা আমরা গুরুত্ব দিয়েছি, অগ্রাধিকার দিয়েছি। 

ইত্তেফাক/এমআই