তাদের দেখার অপেক্ষায়...
১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
তাদের দেখার অপেক্ষায়...
জয়া আহসান ও চঞ্চল চৌধুরী—দুজনই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পী। দুজনই চলচ্চিত্রে নিজেদের অভিনয় দিয়ে দর্শকদের মন জয় করেছেন। এবারই প্রথম দুজন হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত অনম বিশ্বাস পরিচালিত ‘দেবী’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। বিস্তারিত জানাচ্ছেন অভি মঈনুদ্দীন

জয়া আহসান প্রযোজিত ‘দেবী’ চলচ্চিত্রটি মুক্তির ঘোষণা দিয়েও পিছিয়ে পড়ায় চলচ্চিত্রটি দেখতে আগ্রহী দর্শকরা হতাশ হয়েছেন। কিন্তু সেই কষ্ট ভুলে দর্শক আবারও অপেক্ষা শুরু করেছেন। কারণ আগামী অক্টোবরে ‘দেবী’ পর্দায় আসছে। এই চলচ্চিত্রে ‘মিসির আলী’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী এবং ‘রানু’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়া আহসান। চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘আমার প্রত্যাশা একটাই, আর তা হলো চলচ্চিত্রটি দেখতে যেন দর্শক হলে যান। দর্শকরা যেন ইউটিউবে প্রচারের অপেক্ষায় না থাকেন। কারণ দর্শক হলে গেলে একজন প্রযোজক নতুন চলচ্চিত্র নির্মাণের ক্ষেত্রে উত্সাহ পাবেন।’

আমাদের এখানে এই সময়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা খুব কঠিন। বাজেট ও আনুষাঙ্গিক সবকিছু মিলিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ এখন খুবই কঠিন। তাই জয়া আহসান যেহেতু অনেক কষ্ট করে তার প্রযোজনায় ‘দেবী’ নির্মাণ করেছেন, আসুন তাকে উত্সাহ দিতে চলচ্চিত্রটি মুক্তির পর দলে দলে হলে গিয়ে তা দেবী দেখি। হুমায়ূন আহমেদের গল্পের চরিত্রগুলো পর্দায় কতটা ভালো লাগবে সেটাও দর্শকদের দেখা উচিত। ‘অনম বিশ্বাস অনেক আন্তরিকতা নিয়ে চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করেছেন। আমার বিশ্বাস দেবী দর্শকদের ভালো লাগবে। হুমায়ূন আহমেদের গল্পে তো একটা জাদু আছেই। কিন্তু তার অভিনীত চরিত্রগুলো সিনেমার পর্দায় কতটা জাদু দেখাতে পারে, তা দেখার জন্য হলেও যেন দর্শক হলে যান।’ জয়া আহসান আরও বলেন, ‘আমি নিজেও দর্শকদের সঙ্গে হলে বসে ‘দেবী’ দেখার অপেক্ষায় আছি। বইয়ের পাতা থেকে দেবীকে এবার দেখবেন রুপালি পর্দায়। যেহেতু প্রযোজক হিসেবে এটা আমার প্রথম চলচ্চিত্র। আমি চেষ্টা করেছি দর্শককে মনের মতো একটি চলচ্চিত্র উপহার দিতে। ‘রানু’ চরিত্রে আমি আমার সর্বোচ্চ আন্তরিকতা নিয়ে অভিনয় করেছি। এখন দর্শক তা কীভাবে নেবেন, সেটার জন্যই এখন অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। তবে একটি কথা না বললেই নয়, মিসির আলী চরিত্রে চঞ্চল অসাধারণ অভিনয় করেছেন। আমি তার অভিনয়ে মুগ্ধ। দর্শকরাও নিশ্চয়ই মুগ্ধ হবেন। ‘দেবী’ এখন শুধু একটি চলচ্চিত্র নয়, এটি আমার কাছে একটি সম্পদ। আমার শুভাকাঙ্ক্ষীদের জন্য আমার উপহার। আর এই উপহার শুভ দিনে শুভ ক্ষণেই দর্শকদের হাতে তুলে দিতে চাই আমি। হুমায়ূন আহমেদ এবং তার সৃষ্ট মিসির আলি, রানু, আনিস, নীলু, আহমেদ সাবেত চরিত্রগুলো বড় পর্দায় দেখার জন্য আমি নিজেই মুখিয়ে আছি। আমি নিশ্চিত দর্শকও অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। আপনাদের এই আগ্রহের প্রতি সম্মান রেখেই চলচ্চিত্রটি মুক্তি দিবো অক্টোবরে।’ জয়া আহসান জানান, শিগগিরই সেন্সর ছাড়পত্রের জন্য ‘দেবী’ জমা দেওয়া হবে। একেবারেই শেষ মুহূর্তের কাজ চলছে চলচ্চিত্রটির। সেন্সর ছাড়পত্র পেলেই অক্টোবরেই চলচ্চিত্রটির দেখা পাবেন দর্শক। সৃজিত মুখার্জি পরিচালিত জয়া অভিনীত ‘এক যে ছিল রাজা’ আসছে দুর্গাপূজায় কলকাতায় মুক্তি ১২ অক্টোবর পাবে। এতে তার সহশিল্পী হিসেবে আছেন অপর্ণা সেন, অঞ্জন দত্ত, যীশু সেনগুপ্ত। জয়া আহসান এরইমধ্যে প্রায় শেষ করেছেন বাংলাদেশের চলচ্চিত্র নূরুল আলম আতিকের ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’, ‘পেয়ারার সুবাস’ ও মাহমুদ দিদারের ‘বিউটি সার্কাস’। ২০১১ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে নাসির উদ্দিন ইউসুফ পরিচালিত ‘গেরিলা’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য জয়া আহসান প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। একই বছরে তিনি ‘৪০তম বাচসাস ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার লাভ করেন একই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য। এরপর তিনি রেদওয়ান রনির ‘চোরাবালি’ এবং অনিমেষ আইচের ‘জিরো ডিগ্রি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য আবারও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন।

ছবি মোহসীন আহমেদ কাওছার

 

 

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:২৮
যোহর১১:৫৫
আসর৪:২১
মাগরিব৬:০৮
এশা৭:২১
সূর্যোদয় - ৫:৪৪সূর্যাস্ত - ০৬:০৩
পড়ুন