দুলাভাই জিন্দাবাদ
১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
দুলাভাই জিন্দাবাদ
 

সম্প্রতি দেশটিভিতে নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘দুলাভাই জিন্দাবাদ’-এর প্রচার শুরু হয়েছে। মানস পালের নাট্যরূপে এটি পরিচালনা করেছেন শাহীন সরকার। এতে অভিনয় করেছেন আল মনসুর, ফজলুর রহমান বাবু, নিলয় আলমগীর, আ খ ম হাসান, আমিন আজাদ, তারিক স্বপন, শফিক খান দিলু, মুনিরা মিঠু, শশী, নিসা, অহনা, ঐশি, তন্দ্রা, শেলী আহসান, অধরা জাহান, ফিরোজ মিল্টন, ছোট শামিম, অহনা প্রমুখ। এর গল্পে দেখা যাবে, একটা ছেলের আশায় হুমায়ুন সওদাগরের পরপর পাঁচ মেয়ে হয়। স্ত্রী হাসনা হেনা রোগ ভুগে মারা যাওয়ায় সংসার আর বড় হয়নি। বড় মেয়ে শেফালিকে বিয়ে দিয়ে কুদ্দুস নামের পাশের গ্রামের এক সহজ সরল ছেলেকে তিনি ঘরজামাই রাখেন। তার কাজ শ্বশুরের সম্পদ রক্ষা করা এবং শালিদের দিকে খেয়াল রাখা যেন তারা গোল্লায় না যায়। খুব রসিক এবং প্রাণখোলা মানুষ সে। সারাক্ষণ হই-হুল্লোড় করে থাকতে পছন্দ করে। চার-চারটি শালি থাকায় গ্রামের যুবকদের কাছে তার খুব কদর। সবাই সুযোগে খোঁজে কী করে দুলাভাইয়ের মন জয় করে তার একটি শালিকে পটানো যায়। এরমধ্যে হঠাত্ একদিন তার মেজো শালি এক ছেলের হাত ধরে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। পরের দুই শালিও কম যায় না। তারা ভালোবাসে কালাম ও ফরিদকে। কালাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করে গ্রামের বেকার যুবকদের উন্নয়নে কাজ করছে এবং ফরিদ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার পাশাপাশি একটি কোচিং সেন্টার চালায়। দুজন দুজনকে সহ্য করতে পারে না। একসময় কালাম ও ফরিদ তাদের ভালোবাসার মানুষকে পরিবারের অমতে বিয়ে করে এবং কুদ্দুসের বদান্যতায় অনেক জল ঘোলা হওয়ার পর হুমায়ুন সওদাগরের বাড়িতে তাদেরও ঠাঁই হয়। হুমায়ূন সওদাগরের মেজো মেয়েও স্বামীসহ বাবার বাড়িতে এসে ওঠে। কুদ্দুসের বদান্যতায় তাকেও বিতাড়িত হতে হয় না। কিন্তু কথায় বলে অধিক সন্ন্যাসীতে গাজন নষ্ট। হুমায়ূন সওদাগরের বাড়িতে স্বার্থের দ্বন্দ্ব শুরু হয়। যে নিঃসন্তান মানুষটা তার শালিদের নিজের বোনের চোখে দেখে এবং মঙ্গল কামনা করে, সেই মানুষটার কাছ থেকেই শ্বশুরের দেওয়া ক্ষমতা কেড়ে নেওয়ার জন্য সবাই উঠে পড়ে লাগে। নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘দুলাভাই জিন্দাবাদ’ প্রচারিত হচ্ছে রবি ও সোমবার রাত ১০টা ২০ মিনিটে।

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:২৮
যোহর১১:৫৫
আসর৪:২১
মাগরিব৬:০৮
এশা৭:২১
সূর্যোদয় - ৫:৪৪সূর্যাস্ত - ০৬:০৩
পড়ুন