পৌরসভা ও সরকারি দপ্তরে পল্লী বিদ্যুতের পাওনা ১৮ কোটি টাকা
১৮ জানুয়ারী, ২০১৭ ইং
g পাবনা প্রতিনিধি ও চাটমোহর সংবাদদাতা

পাবনা জেলার বিভিন্ন পৌরসভা ও সরকারি দপ্তরের কাছে ১৮ কোটি টাকা বিদ্যুত্ বিল বকেয়া রয়েছে। পাবনা পৌরসভার কাছে বিদ্যুত্ বিভাগের বকেয়া পাওনা প্রায় সোয়া ১৬ কোটি টাকা। জেলার অপর ৭টি পৌরসভার কাছে পাওনা প্রায় ৩৪ লাখ টাকা। এ ছাড়া সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের বকেয়া বিদ্যুত্ বিলের পরিমাণ প্রায় ৭০ লাখ টাকা।

পাবনা বিদ্যুত্ বিভাগের বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জিয়াউল ইসলাম এবং বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন জানান, পাবনা পৌরসভার কাছে বিদ্যুত্ বিল বাবদ পাওনার পরিমাণ ১৬ কোটি ২৮ লাখ ৩১ হাজার ৫’শ ৪০ টাকা।

জেলা প্রশাসক রেখা রাণী বালো বকেয়া বিদ্যুত্ বিল পরিশোধের জন্য পৌরসভার মেয়র এবং সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরসমূহের প্রধানদের দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলেছেন। তিনি কিস্তিতে হলেও বকেয়া বিল পরিশোধ করার ওপর তাগাদা দেন।

পাবনা পল্লী বিদ্যুত্ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার রফিকুল ইসলাম জানান, সাঁথিয়া পৌরসভার কাছে বকেয়া পাওনার পরিমাণ ১১ লাখ ৫৯ হাজার ৭’শ ৯৫ টাকা। বেড়া পৌরসভার বকেয়া দুই লাখ ৫৪ হাজার ৩’শ ৬০ টাকা এবং সুজানগর পৌরসভার বিদ্যুত্ বিল বকেয়া ৫৪ হাজার ৪’শ ৩২ টাকা।

সাঁথিয়া, বেড়া ও সুজানগর উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন অফিস যেমন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীন ইউনিয়ন পরিষদ, ডাকবাংলো, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল, উপজেলা প্রকৌশলসমূহের কাছে বকেয়া বিদ্যুত্ বিলের পরিমাণ ১৭ লাখ ৯৭ হাজার ৯’শ ৫১ টাকা। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন থানা (পুলিশ স্টেশন ও পুলিশ ফাঁড়ি) ও ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কাছে বিদ্যুত্ বিল বকেয়ার পরিমাণ দুই লাখ ৭৬ হাজার ৩শ ৮০ টাকা।

পল্লী বিদ্যুত্ সমিতি-১ এর আওতাভুক্ত ফরিদপুর পৌরসভার কাছে পাওনা বিদ্যুত্ বিল আট লাখ ২৮ হাজার ৫৩ টাকা। ভাঙ্গুড়া পৌরসভার কাছে পাওনার পরিমাণ পাঁচ লাখ ১৮ হাজার ৭’শ ৩৫ টাকা। চাটমোহর পৌরসভার বকেয়া পাঁচ লাখ ৩৫ হাজার ৮’শ ৫৬ টাকা এবং আটঘরিয়া পৌরসভার কাছে বকেয়া ৪২ হাজার ৪’শ ৪৪ টাকা।

এ ছাড়াও চাটমোহর, ভাঙ্গুড়া, ফরিদপুর ও আটঘরিয়া উপজেলাসমূহের স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের কাছে বকেয়া ২৪ লাখ ৩১ হাজার ৫’শ ৫১ টাকা এবং থানা বা পুলিশ স্টেশনসমূহের কাছে পাওনার পরিমাণ দুই লাখ ২৬ হাজার ৬শ’ ৬০ টাকা।

পাবনা পল্লী বিদ্যুত্ সমিতি-১ এর জিএম প্রকৌশলী জুলফিকার হায়দার পিইঞ্জ জানান, বিদ্যুত্ বিল বকেয়া থাকায় বিদ্যুত্ বিতরণ ব্যবস্থাপনা কাজ ব্যাহত হচ্ছে।

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৮ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং
ফজর৫:২৩
যোহর১২:০৯
আসর৩:৫৯
মাগরিব৫:৩৮
এশা৬:৫৪
সূর্যোদয় - ৬:৪২সূর্যাস্ত - ০৫:৩৩
পড়ুন