সম্ভ্রম হারিয়ে বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে জুলেখা বেগম
লালপুর (নাটোর) সংবাদদাতা২২ এপ্রিল, ২০১৭ ইং
এক লম্পটের বিয়ের প্রলোভনে পড়ে সম্ভ্রম হারিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন নাটোরের লালপুর উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের জুলেখা বেগম (৩০)।

জানা গেছে, বড়াইগ্রাম উপজেলার ধানাইদহ গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে বিপ্লব হোসেন (৩৫) জুলেখাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রায় তিন বছর ধরে মাঝে মধ্যেই নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে রাত কাটায়। গত বুধবার রাতে বিপ্লব তার স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে জুলেখাকে নিয়ে রাত্রি যাপন করে। বিষয়টি জানতে পেরে স্থানীয়রা বৃহস্পতিবার সকালে বিপ্লবের বাড়ি থেকে জুলেখাকে ধরে মারধর করে। এ সময় বিপ্লব পালিয়ে যায়। এ সময় জুলেখা আহতবস্থায় বিয়ের দাবিতে বিপ্লবের বাড়িতে অনশন শুরু করে। রাত ১০টার দিকে লালপুরের কদিমচিলান ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম রেজা তাকে উদ্ধার করে বড়াইগ্রাম থানায় থানায় নিয়ে গেলে পুলিশ তাকে হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেয়। কিন্তু বড়াইগ্রাম হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিত্সক তাকে ভর্তি না নিয়ে প্রাথমিক চিকিত্সা দিয়ে ফিরিয়ে দেন। পরে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসার আশ্বাস দিয়ে চেয়ারম্যান তাকে তার নিজ বাড়িতে পৌঁছে দেন।

জুলেখা বেগম জানান, আমি কোন মুখ নিয়ে বাড়ি ফিরে যাব। আমাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তিন বছর শারীরিক সম্পর্ক করেছে। এখন আমার মৃত্যু ছাড়া কোন উপায় নেই।

স্থানীয় ইউপি সদস্য রেজাউল করিম জানান, তিনি ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে বিপ্লবের বাড়ি গিয়ে জুলেখাকে মার ধরের হাত থেকে রক্ষা করেছি।

কদিমচিলান ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম রেজা জানান, বিষটি স্থানীয়ভাবে দেখা হচ্ছে।

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহরিয়ার খান জানান, বিষয়টি শুনেছি। কিন্তু কেউ লিখিত কোন অভিযোগ করেনি।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২২ এপ্রিল, ২০১৮ ইং
ফজর৪:১৩
যোহর১১:৫৮
আসর৪:৩১
মাগরিব৬:২৬
এশা৭:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৩২সূর্যাস্ত - ০৬:২১
পড়ুন