নওগাঁয় যানজট নিরসনে পুলিশের অভিযান
১৯ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
নওগাঁয় যানজট নিরসনে পুলিশের অভিযান
ইজিবাইক শ্রমিকদের মানববন্ধন

g নওগাঁ প্রতিনিধি

জেলায় যানজট নিরসনে পুলিশের অভিযান শুরু হয়েছে। এতে জেলার যানবাহন মালিক ও চালকদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এ দিকে রাস্তায় যানজট নিরসনে অপরিকল্পিতভাবে পৌর এলাকায় অটোচার্জার ইজিবাইক আটকে হতদরিদ্র শ্রমিকের দুর্বিপাকের প্রতিবাদে বুধবার দুপুরে শহরের মুক্তির মোড়ে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ অটোরিকশা শ্রমিক লীগ নওগাঁ শাখা। বিষয়টি সমাধানের জন্য পরে পুলিশ সুপারের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে।

সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক ও সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি মাসুম চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ সময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ অটোরিকশা শ্রমিক লীগ জেলা শাখার সাবেক সহ-সভাপতি ও আহ্বায়ক কমিটির সদস্য রামিম দেওয়ান, সদস্য মাসুদ রানা মনিম, পৌর অটোরিকশা শ্রমিক লীগের সভাপতি ফেরদৌস আলী, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম টুটুল, সহ-সভাপতি পারভেজ রানা মিলন প্রমুখ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, জীবিকার তাগিদে গ্রামের মানুষ শহরমুখী হচ্ছে। গত চার বছরে শহরের মানুষ বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় চারগুণ। কিন্তু বাড়েনি রাস্তার প্রশস্ততা। অপরকিল্পিতভাবে শহরের ব্যাটারি চালিত অটোচার্জার (ইজিবাইক), ভ্যান, রিকশা ও সিএনজি বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে শহরের যানজটের পরিমাণও বৃদ্ধি পেয়েছ। যানজটে ভোগান্তি এবং যানবাহনের শব্দে অতিষ্ঠ শহরবাসী।

শহরের যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং এবং লাইসেন্সবিহীন গাড়ি অবৈধভাবে চলাচলে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এ সমস্যা দূরীকরণে গত ১০ দিন ধরে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে কাজ করছেন নওগাঁ ট্রাফিক পুলিশ। এ ১০ দিনে প্রায় ৩শটি ব্যাটারি চালিত অটোচার্জার (ইজিবাইক), ভ্যান ও রিকশা আটক করা হয়েছে। এ সব গাড়ি নওগাঁ পুলিশ লাইন্স মাঠে রাখা হয়েছে।

এ দিকে মাইকিং করে পূর্ব কোনো ঘোষণা ছাড়াই গাড়িগুলো আটক করায় শ্রমিকদের মধ্যে এক ধরনের আতঙ্ক শুরু হয়েছে। নতুন করে ইজিবাইকগুলো লাইসেন্স ও নবায়ন করতে শ্রমিকরা ছুটছেন নওগাঁ পৌরসভা যানবাহন অফিসে। আবার আটক গাড়িগুলো পুলিশ নির্দিষ্ট সময় পর ছেড়ে না দেওয়ায় হয়রানির শিকার হচ্ছেন গাড়ির মালিকরা।

পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন বলেন, মাইকিং করার প্রয়োজন হয়নি এ জন্য যে, যারা এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট তাদের সবাইকে কয়েকবার ম্যাসেজ দেওয়া হয়েছে। আটককৃত গাড়ি শাস্তির পর ছেড়ে দেওয়ার কথা থাকলেও গাড়ির মালিকদের হয়রানি করা হয় এবং টাকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, পুলিশের বিরুদ্ধে এরকম কোনো অভিযোগ আমার কাছে নেই। অনেক মানুষ আছেন যারা যোগাযোগ করে। এটা তাদের ব্যক্তিগত বিষয়।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৪২
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫২
মাগরিব৫:৩৩
এশা৬:৪৪
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৮
পড়ুন