কীটনাশক প্রয়োগ করেও কাজ না হওয়ায় দিশেহারা কৃষক
১৪ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং
কীটনাশক প্রয়োগ করেও কাজ না হওয়ায় দিশেহারা কৃষক
বদরগঞ্জে আলু ক্ষেতে পচন রোগ

g আশরাফুল আলম আপন, বদরগঞ্জ (রংপুর) সংবাদদাতা

বদরগঞ্জে আলু ক্ষেতে পচন রোগ (লেটব্লাইট) দেখা দিয়েছে। এতে কৃষকেরা বিভিন্ন কোম্পানির কীটনাশক প্রয়োগ করেও প্রতিকার পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে আলু ক্ষেত নিয়ে তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এবার উপজেলায় দুই হাজার ৭২০ হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছে। গত শুক্রবার উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়ন, কালুপাড়া ও মধুপুর ইউনিয়ন ঘুরে দেখা গেছে, গত কয়েকদিনের শৈত্যপ্রবাহ, ঘনকুয়াশা ও মেঘলা আবহাওয়ার কারণে আলু ক্ষেতে লেটব্লাইট রোগের ছড়াছড়ি।

গোপীনাথপুর ইউনিয়নের বালাডাঙ্গার হাট গ্রামের কৃষক মোকছেদুল হক ১৮ শতক এবং আফজাল হোসেন ৬০ শতক জমিতে দেশি জাতের পাঠোনী আলু আবাদ করেছেন। তাদের আলুর গাছ পচে যাচ্ছে।

মোকছেদুল হক অভিযোগ করে বলেন, কৃষি অফিসের পরামর্শ অনুযায়ী ২০ দিনে পাঁচবার স্প্রে করেছি। কিন্তু কাজ হয়নি। এ কারণে গত ১০ দিন ধরে আর স্প্রে করছি না।

আফজাল হোসেন বলেন, কেবল গাছের শিকরে আলু ধরছে। সেই সময়ে আলুর গাছে পচন রোগ দেখা দিয়েছে। গত কয়েকদিনে পাঁচ হাজার টাকা খরচ করে কয়েকবার স্প্রে দিয়েছি। কিন্তু ফল পাচ্ছি না। ওই গ্রামের একরামুল হকের ৬০ শতক জমির আলুর গাছে পচন ধরে গাছ শুকিয়ে গেছে।

কালুপাড়া ইউনিয়নের মোকরেরপাড়া গ্রামের স্কুল শিক্ষক আজাজুল হক বলেন, ‘১৫০ শতক জমিতে দেশিজাতের পাঠোনী ও কুপরী আলু আবাদ করেছি। ক্ষেত জুড়ে পচন রোগ দেখা দিয়েছে। পাঁচবার কীটনাশক প্রয়োগ করেও আলুর গাছ ধরে রাখতে পারছি না।’

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহবুবর রহমান বলেন, ‘টানা বৈরী আবহাওয়ার কারণে কিছু দেশি জাতের আলু ক্ষেতে লেটব্লাইট দেখা দিয়েছে। মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা কৃষকদের কীটনাশক প্রয়োগে সঠিক পরামর্শ দিচ্ছেন। এ কারণে দ্রুত রোগ নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে।’

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৪ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং
ফজর৫:২৩
যোহর১২:০৮
আসর৩:৫৭
মাগরিব৫:৩৫
এশা৬:৫২
সূর্যোদয় - ৬:৪২সূর্যাস্ত - ০৫:৩০
পড়ুন