কারমাইকেল কলেজ অধ্যক্ষের অপসারণে আল্টিমেটাম
১১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং

g রংপুর প্রতিনিধি 

ক্ষমতার অপব্যবহার, অনিয়ম-দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা, শিক্ষকদের সঙ্গে অশোভনমূলক আচরণ করাসহ নবগঠিত শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদককে লাঞ্ছিতের প্রতিবাদে রংপুর কারমাইকেল কলেজ অধ্যক্ষের অপসারণের দাবিতে কালো ব্যাজ ধারণের মধ্য দিয়ে শনিবার থেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছেন শিক্ষকরা। এ সময় প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয়া হয়। আন্দোলনকারী শিক্ষকরা জানিয়েছেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আব্দুল লতিফ মিয়াকে অপসারণ করা না হলে রবিবার থেকে লাগাতার ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করা হবে। এদিকে একই দাবিতে কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

নবগঠিত শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আখতারুজ্জামান চৌধুরীকে লাঞ্ছিতের প্রতিবাদে অধ্যক্ষ ড. আব্দুল লতিফ মিয়ার অপসারণের দাবিতে কলেজ শিক্ষকরা কালো ব্যাজ ধারণ এবং অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি ঘোষণা করে শনিবার সকালে কলেজের প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে সেখানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষক পরিষদ নেতা  উপাধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক, দিলীপ কুমার রায়, সফিয়ার রহমান প্রমুখ। বক্তারা বলেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অধ্যক্ষকে অপসারণ করা না হলে রবিবার থেকে লাগাতার ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করা হবে।

কলেজ শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সমপাদক অধ্যাপক আখতারুজ্জামান চৌধুরী অভিযোগ করে বলেন, অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আব্দুল লতিফ মিয়ার সীমাহীন দুর্নীতি আর ক্ষমতার অপব্যবহারের প্রতিবাদ করায় শিক্ষকদের সঙ্গে চরম অশোভন আচরণ করেন তিনি। কথায় কথায় শিক্ষকদের গালাগাল এমনকি বদলি করারও হুমকি দেন। এমন অবস্থায় তাকে অপসারণ না করা পর্যন্ত শিক্ষকরা কর্মবিরতি চালিয়ে যাবেন।

এ ব্যাপারে রংপুর কারমাইকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আব্দুল লতিফ মিয়া বলেন, শিক্ষকরা প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা। কোনো সরকারি কর্মকর্তা কর্মবিরতি পালন করতে পারেন না।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং
ফজর৫:১৭
যোহর১২:১৩
আসর৪:১৫
মাগরিব৫:৫৫
এশা৭:০৮
সূর্যোদয় - ৬:৩৪সূর্যাস্ত - ০৫:৫০
পড়ুন