পাবনা জেলার শত ভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার
১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং
g পাবনা প্রতিনিধি ও চাটমোহর সংবাদদাতা

পাবনার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নির্মিত হয়েছে শহীদ মিনার। সেই সঙ্গে দেশের প্রথম জেলা হিসেবে শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণের গৌরব অর্জন করেছে পাবনা জেলা। নবনির্মিত সেসব শহীদ মিনারে ২য় বারের মতো চলছে একুশ উদযাপনের প্রস্তুতি। রাষ্ট্রক্ষমতায় মৌলবাদীদের উত্থান ও জঙ্গি হামলা পরবর্তী সমাজ বাস্তবতায় ভুলতে বসা সে দৃশ্যের সাথে নতুন প্রজন্মকে পরিচিত করতে এবার জেলায় একুশ আসছে ভিন্ন মাত্রা নিয়ে।

নতুন প্রজন্মকে একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করতে পাবনা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মাত্র এক বছরেই জেলার ১৭০১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নির্মিত হয়েছে শহীদ মিনার। কোনো বিশেষ বরাদ্দ ছাড়াই স্থানীয়দের স্বতঃস্ফূর্ত অর্থায়নে নির্মিত এসব শহীদ মিনার নিয়ে দারুণ খুশি শিক্ষার্থীরা। স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা সবখানেই চলছে মাতৃভাষা দিবস পালনের প্রস্তুতি।

পাবনাবাসীর স্বতঃস্ফূর্ত সহযোগিতায় ২০১৬ সালে পাবনার শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নির্মিত হয়েছে শহীদ মিনার। দেশের প্রথম জেলা হিসেবে শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণে গর্বিত উদ্যোক্তারাও। জঙ্গিবাদ মোকাবিলা ও নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে এ উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলেই মনে করছেন তারা।

পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল বলেন, জাতির জনককে নৃশংসভাবে হত্যার পর পাবনায় একুশ উদযাপনে পদে পদে বাধা দিয়েছে স্বাধীনতা বিরোধীরা। ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস বিকৃত করার চেষ্টা হয়েছে। শহীদদের নিয়ে ব্যঙ্গ বিদ্রূপ করা হয়েছে।

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মো. কামরুজ্জামান বলেন, পাবনার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শতভাগ শহীদ মিনার নির্মাণ একটি বিস্ময়কর ব্যাপার। শহীদ মিনার আগামী প্রজন্মকে শেখাবে মাথা উঁচু করে বাঁচতে। দেশমাতৃকার যেকোনো বিপদে করবে তারা বুক চিতিয়ে দাঁড়াবে সে চেতনাবোধ থেকে।

পাবনা জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘এটা অত্যন্ত আনন্দের বিষয়। পাবনা জেলায় শতভাগ শহীদ মিনার নির্মাণে আমরা গর্ববোধ করছি। আমি আশা করি মহান একুশে ফেব্রুয়ারি সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী শহীদ মিনারে যথাযথভাবে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।’

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং
ফজর৫:১৩
যোহর১২:১৩
আসর৪:২০
মাগরিব৫:৫৯
এশা৭:১২
সূর্যোদয় - ৬:২৯সূর্যাস্ত - ০৫:৫৪
পড়ুন