ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ৭ চৈত্র ১৪২৫
২৩ °সে

বরিশাল-৪ (হিজলা-মেহেন্দিগঞ্জ)

ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়নে তৃণমূল বিএনপিতে হতাশ দীর্ঘদিনের ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ

ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়নে তৃণমূল বিএনপিতে হতাশ  দীর্ঘদিনের ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ
বরিশাল:বরিশাল-৪ আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী পঙ্কজ নাথ গণসংযোগকালে ভোটারদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন —ইত্তেফাক

শাহীন হাফিজ, বরিশাল অফিস, মেহেন্দিগঞ্জ সংবাদদাতা

বরিশাল-৪ (হিজলা-মেহেন্দিগঞ্জ) মেহেন্দিগঞ্জ আসনে সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে আওয়ামী লীগের প্রার্থী। এ আসনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি মেজবা উদ্দিন ফরহাদ শেষ মুহূর্তে মনোনয়ন না পাওয়ায় তৃণমূল নেতা-কর্মীরা হতাশ। জেলার সব কটি আসনেই বিএনপির নেতা-কর্মীরা প্রার্থীদের পক্ষে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করলেও বরিশাল-৪ আসনে দেখা মিলছে না তৃণমূল নেতা-কর্মীদের। এ আসনে বিএনপির প্রার্থীকে বাদ দিয়ে শেষ মুহূর্তে নাগরিক ঐক্যের প্রার্থী হিসেবে ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় জেএম নুরুর রহমান জাহাঙ্গীরকে। তিনি এক সময়ে বিএনপির রাজনীতির সাথে যুক্ত থাকলেও গত ১০ বছরে এ আসনের সাথে সংশ্লিষ্ট দুই উপজেলায় কোনো পরিচিতি নেই। ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়ন দেওয়ার পর এখানকার সাবেক এমপি ও উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি মেজবা উদ্দিন ফরহাদ দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে বার বার সভা করে ধানের শীষের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার তাগিদ দিলেও নেতা-কর্মীরা তা মানছে না। প্রচার-প্রচারণায় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের পাশে না পাওয়ায় ঐক্যফ্রন্টের নতুন মুখের প্রার্থী জেএম নুরুর রহমান জাহাঙ্গীরের মাঠে অবস্থান নাজুক। তার নির্বাচনী এলাকায় পোস্টার কিংবা লিফলেটের পর্যন্ত দেখা মিলছে না। অথচ বিগত ২০০৮ সালের নির্বাচনে এ আসনে নির্বাচিত হয়েছিলেন উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি মেজবা উদ্দিন ফরহাদ। মেজবা এমপির পাশাপাশি নির্বাচনী এলাকার সাথে সংশ্লিষ্ট উত্তর জেলা বিএনপির সর্বোচ্চ পদে থেকে দলকে গুছিয়েই রেখেছিলেন।

মেজবা উদ্দিন ফরহাদ বলেন, দলের সিদ্ধান্ত তিনি মেনে নিয়ে নেতা-কর্মীদের ধানের শীষের প্রার্থীকে নিয়ে বার বার সভা করেছেন। প্রার্থী নুরুর রহমান জাহাঙ্গীরকে তিনি সর্বাত্মক সহযোগিতা করে যাচ্ছেন তবে নতুন মুখের প্রার্থী হওয়ায় কিছুটা অসুবিধায় পড়তে হচ্ছে।

হিজলা উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল আলম রাজু বলেন, জেলা (উত্তর) বিএনপির সভাপতি মেজবাউদ্দিন ফরহাদ বহু বছর ধরে দলীয় নেতা-কর্মীদের আগলে রেখেছেন। মেজবাউদ্দিন ফরহাদ নির্দেশনা দিলেও নতুন মুখের নূরুর রহমান জাহাঙ্গীরকে তৃণমূল নেতাদের অনেকেই পাচ্ছেন না। তিনি বলেন প্রার্থী মাঠে নামলে এবং দলের নেতা-কর্মীদের সাথে যোগাযোগ করলে এ সমস্যা থাকবে না।

অপরদিকে বিএনপি’র বিপরীত অবস্থা আওয়ামী লীগে। সেখানকার বর্তমান এমপি স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ নাথ’র সাথে উপজেলা আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। পঙ্কজ নাথ পুনরায় দলের মনোনয়ন পেয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ নিরসন করতে সক্ষম হওয়ায় তার নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের পাশাপাশি আওয়ামী লীগকেও পাচ্ছেন। মনোনয়ন পেয়েই পঙ্কজ নাথ দলের কোন্দল নিরসনে এখানকার আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সংসদ সদস্য আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ’র শরণাপন্ন হন। আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ হিজলা ও মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের নিয়ে টানা বৈঠক করে দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার নির্দেশনা দেন। আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ’র নির্দেশনা মেনে নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধের নিষ্পত্তি ঘটিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক এমপি ও বরিশাল জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মইদুল ইসলাম মেহিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিসে দলের প্রার্থীকে নিয়ে জরুরি সভা করেন। ঐ সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি অতীতের ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে সকলকে দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার আহ্বান জানান। প্রচার-প্রচারণার গত কয়েকদিনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী প্রচার-প্রচারণায় এগিয়ে থাকলেও বিএনপির প্রার্থীর দেখা মিলছে না তেমন একটা।

মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মইদুল ইসলাম বলেন, তিনি এ আসন থেকে দুই বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। এ এলাকার সন্তান হওয়ায় সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে ভোট চাচ্ছেন। তিনি বলেন দলের মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করতে উপজেলা আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ মার্চ, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন