দিনাজপুরে মাছের ঘাটতি মেটাতে ব্যাপক উদ্যোগ
দিনাজপুরে মাছের ঘাটতি মেটাতে ব্যাপক উদ্যোগ
খরাপীড়িত অঞ্চল দিনাজপুরে মাছের ঘাটতি মেটাতে ব্যাপক উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ জেলায় মোট ৩১ লাখ ৯ হাজার ৬২৮ জন মানুষের জন্য মাথাপিছু বার্ষিক ২০ কেজি হিসাবে মাছের মোট চাহিদা ৬২ হাজার ১৯২ মে. টন। উত্পাদিত হয় ৩৬ হাজার ১১০.৭৬ মে. টন। অর্থাত্ মাছের ঘাটতি ২৬ হাজার ৮১.২৪ মে. টন।

জেলা মত্স্য কর্মকর্তা দিনাজপুর মো. হাসান ফেরদৌস সরকার জানান, মাছের ঘাটতি পূরণে তথা আর্থিক দিক থেকে অনগ্রসর এই অঞ্চলের জনগণের দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে মাছের উত্পাদন বৃদ্ধির জন্য মত্স্য অধিদপ্তর বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করেছে। দিনাজপুরে চলমান এসব প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে, সমন্বিত মত্স্য উন্নয়ন প্রকল্প (২য় পর্যায়), মত্স্য স্থাপনা পুনর্বাসন ও উন্নয়ন প্রকল্প, জেলেদের নিবন্ধন ও পরিচয়পত্র প্রদান, স্বাদু পানির চিংড়ি চাষ প্রকল্প (২য় পর্যায়), উন্মুক্ত জলাশয়ে বিল নার্সারী স্থাপন ও পোনা মাছ অবমুক্তকরণ প্রকল্প, ব্রুড ব্যাংক স্থাপন প্রকল্প, বড় পুকুরিয়া কয়লা খনি প্রকল্পের কয়লা উত্তোলনের ফলে সৃষ্ট জলাশয়ে মাছ উত্পাদন ও প্রজননের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ প্রভৃতি।

দিনাজপুরের জনগণের দারিদ্র্য বিমোচনের জন্য সর্বমোট ১১৮৪টি কম্পোনেন্ট হাতে নেয়া হয়েছে। বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৯৪ হাজার টাকা। সুফলভোগীর সংখ্যা ৬ হাজার ৭১১। এর মধ্যে রয়েছে ৩১ লাখ ২৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ২০টি মত্স্য অভয়াশ্রম স্থাপন। যাতে ৪শ’ জন উপকার প্রাপ্ত হবে। পোনা মাছ অবমুক্ত করা হয়েছে ১০টি জলাশয়ে। সাড়ে ১১ লাখ টাকা ব্যয়ে সম্পন্ন এ প্রকল্প হতে এক হাজার ব্যক্তি উপকৃত হবে। জাল বিনিময় হয়েছে ১৪৬ জনের ক্ষেত্রে। ব্যয় হয়েছে ৪৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা। ৭ লাখ ৮১ হাজার তিনশ’ টাকা ব্যয়ে ধাপে ধাপে ৮৭৫ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। ৪৮ লাখ ৫৮ হাজার ৭শ’ টাকা ব্যয়ে তিনটি স্পিলওয়ে নির্মাণের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এতে ৩ হাজার ব্যক্তি উপকৃত হবে। ২ লাখ ৩৯ হাজার ৭শ’ ৪০ টাকা ব্যয়ে ৪৫টি জলাশয় সংস্কার করা হয়েছে। এতে উপকৃত হবে ৬ হাজার ৭শ’ ১৭ জন। এ ছাড়া বিকল্প আয়বর্ধক কর্মসূচি হিসাবে সাড়ে ৯ লাখ টাকা ব্যয়ে সাইকেল পাতিল বিতরণ, সাড়ে ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে রিকশা ভ্যান বিতরণ এবং সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা ব্যয়ে ছাগল বিতরণ করা হয়েছে। এতে যথাক্রমে ১২৫ জন, ৬৫০ জন এবং ৭৫ জন উপকৃত হয়েছে।

বিভিন্ন জলাশয়ে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে মাছের আবাদ করা গেলে এ জেলায় মাছের উত্পাদন বাড়বে বহুলাংশে। এ লক্ষ্যে মাছ চাষিদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৮ এপ্রিল, ২০১৭ ইং
ফজর৪:১৭
যোহর১১:৫৮
আসর৪:৩১
মাগরিব৬:২৪
এশা৭:৪০
সূর্যোদয় - ৫:৩৬সূর্যাস্ত - ০৬:১৯
পড়ুন