তিন কর্মকর্তা-কর্মচারী দিয়ে চলে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণের কাজ
২১ এপ্রিল, ২০১৭ ইং
গৌরনদী (বরিশাল) সংবাদদাতা

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের বরিশালের পাঁচ উপজেলার হেড কোয়ার্টার গৌরনদী সার্কেল অফিসে কর্মকর্তা-কর্মচারী আছেন মাত্র তিনজন। আর এই তিন কর্মকর্তা-কর্মচারী দিয়েই দীর্ঘদিন যাবত্ চলছে গৌরনদী, আগৈলঝাড়া, উজিরপুর, মুলাদী ও হিজলা উপজেলার মাদক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম।

ওই তিন কর্মকর্তা-কর্মচারীর না আছে গাড়ি, না আছে অস্ত্র। ইউনিফর্ম পর্যন্ত নেই। এমনকি মামলার জন্য অর্থ বরাদ্দ নেই। গৌরনদী মাদকের স্বর্গরাজ্য হওয়া সত্যেও নানা সমস্যার কারণে ঝিমিয়ে পড়েছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের গৌরনদী সার্কেলের কার্যক্রম। গত তিন মাসে মাত্র ২০ গ্রাম গাঁজাসহ দুই বিক্রেতাকে আটক করতে পেরেছেন ওই অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তবে তারা কোনো ইয়াবা ব্যবসায়ীর ধারে কাছেও যেতে সাহস পান না। গত বছর গৌরনদীর সাওড়া এলাকায় তিন মাদক বিক্রেতাকে আটক করতে গিয়ে মাদক বিক্রেতা ও তাদের সহযোগিদের হামলায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসের ওই তিন কর্মকর্তা-কর্মচারী আহত হন। এ কারণে পুলিশের সহায়তা ছাড়া তারা মাদক বিরোধী কার্যক্রম চালাতে সাহস পান না।

এখানে কর্মরত ইন্সপেক্টর মো. ফরহাদ হোসেন জানান, এখানে ছয়জন কর্মকর্তা-কর্মচারী থাকার কথা থাকলেও আছেন মাত্র তিনজন। এরপরও মাদক মামলার সাক্ষী দিতে প্রায়ই আমাদের দেশের বিভিন্ন স্থানে যেতে হচ্ছে। থানা পুলিশের সহায়তা নিয়েই মাদক কার্যক্রম চালাতে হচ্ছে। মামলার খরচ চালাতে হয় নিজের পকেটের টাকায়।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২১ এপ্রিল, ২০১৭ ইং
ফজর৪:১৪
যোহর১১:৫৮
আসর৪:৩১
মাগরিব৬:২৫
এশা৭:৪১
সূর্যোদয় - ৫:৩৩সূর্যাস্ত - ০৬:২০
পড়ুন