পদোন্নতিপ্রাপ্ত সেই প্রধান শিক্ষকদের সুবিধাজনক স্থানে পোস্টিং
দৈনিক ইত্তেফাকে সংবাদ প্রকাশের পর অবশেষে মির্জাপুরে শূন্যপদে প্রধান শিক্ষক পদে চলতি দায়িত্বে (পোস্টিং) পাচ্ছেন। মোটা অঙ্কের ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগে জেলা শিক্ষা অফিসারের (ডিপিও) বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান আশ্বাস দিয়েছেন। পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর জেলা শিক্ষা অফিসার পূর্বের নির্দেশ পরিবর্তন করে নতুন করে নিয়োগের আদেশ দিয়েছেন। গতকাল রবিবার ৬০ জন প্রধান শিক্ষক তাদের নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগদান করেন। এ উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রাথমিক শিক্ষা অফিস এসব শিক্ষকদের বরণ করে নেওয়ার জন্য এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। অনুষ্ঠানে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত সাদমীন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আলমগীর হোসেন, বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ শিক্ষক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আব্দুল আজিজ জানান, সরকারি নিয়ম অনুসরণ করেই শিক্ষকদের যোগদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। বিভিন্ন কারণে মন্ত্রী, এমপি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহোদয়দের সব সুপারিশ রক্ষা করা সম্ভব হয়নি।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা শিক্ষা উন্নয়ন কমিটির সভাপতি মীর এনায়েত হোসেন মন্টু এবং মির্জাপুর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আলমগীর হোসেন বলেন, এমপি মহোদয়, শিক্ষক নেতৃবৃন্দ এবং পদোন্নতিপ্রাপ্ত শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনা করেই নতুনভাবে সকল শিক্ষককে পোস্টিং দেওয়া হচ্ছে।

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৬ জুলাই, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৫৫
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:২০সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
পড়ুন