ঢাকা শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২৭ °সে

ভোলা-৪ (চরফ্যাশন-মনপুরা) আসন

মাঠে আওয়ামী লীগ, নির্দেশের অপেক্ষায় বিএনপি

চারটি দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী ৯ জন
মাঠে আওয়ামী লীগ, নির্দেশের অপেক্ষায় বিএনপি

চরফ্যাশন এবং বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা মনপুরা নিয়ে ভোলা-৪ আসন গঠিত। ১টি পৌরসভা, ৫টি থানা এবং ২৫টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এ আসন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও ইসলামী আন্দোলনের ৯ জন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম জানা যাচ্ছে। এবারো তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সিদ্ধান্তে এ আসনে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব। তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশী। তবে জ্যাকব ছাড়াও এ আসনে আওয়ামী লীগের আরো তিনজন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম জানা যাচ্ছে। তারা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটের সদস্য, শিক্ষক, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আ ক ম জামাল উদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক নেতা মো. মফিজুল ইসলাম ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপকমিটির সদস্য আবু শাকের তানিন খান।

অপর দিকে, বিএনপির তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সিদ্ধান্তে সাবেক এমপি ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম এ আসনে বিএনপির একক প্রার্থী। তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশী। তবে নাজিম উদ্দিন আলম ছাড়াও বিএনপির আরেকজন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম জানা যাচ্ছে। তিনি হলেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য, কেন্দ্রীয় যুব দলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন।

এ আসনটিতে ইসলামী আন্দোলনের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও ইসলামী আইনজীবী পরিষদের জাতীয় নির্বাহী কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাওলানা মো. মহিবুল্লাহ ।

এ আসনে জাতীয় পার্টির (জাপা) মনোনয়ন প্রত্যাশী- ভোলা জেলা জাতীয় পার্টির (জাপা) সভাপতি কেয়ায়েত উল্যা নজিব এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম মিজানুর রহমান।

নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন এ আসনের বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। ভোটের লড়াইয়ে নামার আগে মাঠপর্যায়ের সংগঠনগুলোকে পুনর্গঠন করে সর্বাত্মক প্রস্ততি সেরে নিচ্ছে প্রধান এই দু’টি দল ।

ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী আবদুল্লা আল ইসলাম জ্যাকব বিভিন্ন এলাকায় সভা, সমাবেশ, পথসভা ও নির্বাচন কমিটি গঠনসহ ভোটের অধিকাংশ প্রস্তুতি সম্পন্ন করে ফেলেছেন। বসে নেই বিএনপিও। তারাও নির্বাচনের সব প্রস্ততি সম্পন্ন করে রেখেছেন ঘরোয়া পরিবেশের মাধ্যম। মামলা ও হামলার ভয়ে প্রকাশ্যে রূপ না নিলেও দলীয় সংকেত পেলে তা প্রকাশ্যে রূপ নিবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বিএনপি নেতারা। দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ক্ষমতায় থাকাকালীন উপমন্ত্রী জ্যাকব চরফ্যাশন-মনপুরায় ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। চরফ্যাশনে ৩টি নতুন থানা, ৭টি নুতন ইউনিয়ন, চরফ্যাশন ও মনপুরায় ৩টি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র চালু এবং জেলা সদর থেকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ডিভিশন-২ কার্যালয়, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, যুগ্ম জেলা জজ আদালত ও ৭ ধারা আদালত উপজেলা সদরে স্থানান্তর এবং সর্বশেষ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত স্থাপন হয়েছে জ্যাকব’র প্রচেষ্টায়। প্রশাসনিক এসব বিকেন্দ্রীকরণের মাধ্যমে দ্বীপজেলা ভোলার সাগরকূলের সর্ববৃহত্ উপজেলা চরফ্যাশনকে জেলা করার দৌড়ে অনেকদূর এগিয়ে নিয়েছেন তিনি। চরফ্যাশন হাসপাতালকে ১০০ শয্যায় এবং মনপুরা হাসপাতালকে ৫০ শয্যায় উন্নীতের ব্যবস্থাকরণ, বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চর কুকরিতে আধুনিক গেস্ট হাউজ, সুইমিংপুল, হ্যালিপেড ও চরফ্যাশনে আন্তর্জাতিক মানের বাসটার্মিনাল নির্মাণ এবং লঞ্চ সার্ভিস চালু, মনপুরা উপজেলা অডিটোরিয়াম, খাদ্যগুদাম, ফায়ার সার্ভিস , সাবরেজিস্ট্রার অফিস, সহকারী সিনিয়র জজ আদালত স্থাপন ছাড়াও উপজেলা দু’টির রাস্তাঘাট, পুল কালভার্ট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ মাদ্রাসার ভবন নির্মাণ করেছেন তিনি। তার এ সকল দৃশ্যমান উন্নয়ন মানুষকে মুগ্ধ করছে।

আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব বলেন, পৃথিবীর মধ্যে বড় আদালত হচ্ছে মানুষের বিবেক। আমারকৃত উন্নয়ন বিবেচনায় এলাকার জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে পুনরায় নির্বাচিত করলে চরফ্যাশনকে জেলা করার চেষ্টাসহ দুই উপজেলার অসমাপ্ত কাজসমূহ সমাপ্ত করে উপজেলা দুটিকে মডেল উপজেলায় রূপান্তরিত করবো।

জামাল উদ্দিন বলেন, মনোনয়ন পেলে শিক্ষকতা ছেড়ে নির্বাচন করবো। বিগত বছরগুলোতে সেই লক্ষ্যে চরফ্যাশন-মনপুরায় কাজ করেছি। তবে অন্য কেউ মনোনয়ন পেলে তার পক্ষে কাজ করবো।

তানিন বলেন, শুধু মনোনয়ন পাওয়ার জন্য মনোনয়ন ফরম কিনিনি। গণতান্ত্রিক চর্চা ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের কাছে জবাবদিহিতা সৃষ্টির জন্য মনোনয়ন ফরম কিনেছি।

চরফ্যাশন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম ভিপি বলেন, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সিদ্ধান্তে এ আসনে আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী। এ অঞ্চলে তার বিকল্প কেউ নেই। তিনি এ অঞ্চলের মানুষের জন্য যে উন্নয়ন করেছেন তা এর আগে কেউ করতে পারেনি আর পারবেও না। তার এ সকল উন্নয়নের কারণে নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবেন।

মনপুরা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেলিনা আকতার চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী। একক প্রার্থী, দুবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপি। তিনি চরফ্যাশন ও মনপুরায় রেকর্ড সংখ্যক উন্নয়ন করেছেন।

চরফ্যাশন উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক অধ্যাপক মনির উদ্দিন চাষী বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উপজেলা থেকে ইউনিয়ন পর্যন্ত আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সব কমিটি প্রস্তুত করা আছে। প্রার্থিতা নিয়ে দলের মধ্যে কোনো দ্বিধাদ্বন্দ্ব না থাকায় গোটা আওয়ামী লীগ পরিবার এখন আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপির নেতৃত্বে নির্বাচনী তত্পরতায় ব্যস্ত।

মনোনয়ন প্রত্যাশী চরফ্যাশন উপজেলা বিএনপির সভাপতি নাজিম উদ্দিন আলম বলেন, ভোলা-৪ আসনে বিএনপি’র প্রার্থী হিসেবে আমার মনোনয়ন অনেকটা চূড়ান্ত হয়ে আছে। আমি এ আসন থেকে পরপর তিন বার এমপি নির্বাচিত হয়েছি। এখানের মানুষ আমাকে অনেক ভালোবাসে, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে আমার বিজয় নিশ্চিত।

নুরুল ইসলাম নয়ন বলেন, এ আসনের তৃণমূল নেতা-কর্মীও সমর্থকদের কাছে আমিই পছন্দের প্রার্থী। দল মনোনয়ন দিলে আমি নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত আছি।

চরফ্যাশন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন আলমগীর মালতিয়া বলেন, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সিদ্ধান্তে এ আসনে নাজিম উদ্দিন আলম বিএনপির একক প্রার্থী। তার নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা চরফ্যাশন ও মনপুরার সকল কমিটিকে সুসংগঠিত করেছি। নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে বিএনপি’র প্রার্থী বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবে।

মনপুরা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মোঃ মহিউদ্দিন আহম্মদ বলেন, সাবেক এমপি নাজিম উদ্দিন আলমের নেতৃত্বে মনপুরা উপজেলা বিএনপি সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী। বিএনপির একক প্রার্থী হিসেবে নাজিমউদ্দিন আলম মনোনয়ন পাবেন। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে বিএনপি বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবে।

ইসলামী আন্দোলনের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও ইসলামী আইনজীবী পরিষদের জাতীয় নির্বাহী কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাওলানা মোঃ মহিবুল্লাহ। মাওলানা মোঃ মহিবুল্লাহ বলেন, আমার পক্ষে কাজ করার জন্য কেন্দ্র থেকে নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে নেতাকর্মীরা নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন।

ইসলামী আন্দোলন চরফ্যাশন শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মোঃ ইউছুফ চরমোনাই’র পীর মাওলানা মুফতি সৈয়দ মোঃ রেজাউল করিমের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, মাওলানা মোঃ মহিবুল্লাহ আমাদের একক প্রার্থী। অবাধ, সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আমাদের প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত।

এ আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন— ভোলা জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি কেয়ায়েত উল্যা নজিব এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক এম মিজানুর রহমান। তাদের দুই জনেরই অভিন্ন বক্তব্য, দল যদি মনোনয়ন দেয় তারা নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত আছেন এবং দল যাকে মনোনয়ন দেবে তার পক্ষে কাজ করবেন তারা। তবে জোটগত নির্বাচন হলে উন্নয়নের স্বার্থে তারা জোটের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবেন।

জাতীয় পার্টি (জাপা) চরফ্যাশন উপজেলা শাখার আহ্বায়ক আব্দুল খালেক মালতিয়া বলেন, ভোলা-৪ আসনে এখনো আমাদের প্রার্থী চূড়ান্ত হয়নি। কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে যাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে আমরা তার পক্ষে কাজ করবো।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
আর্কাইভ
 
বেটা
ভার্সন