সংলাপের প্রয়োজন কী?
নির্বাচন নিয়ে কোনো জটিলতা আছে বলে জনগণ মনে করে না --------ওবায়দুল কাদের
১৪ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং

g বিশেষ প্রতিনিধি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী নির্বাচন নিয়ে কোন জটিলতা আছে বলে জনগণ মনে করে না। নিবন্ধিত প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা অধিকার। এক্ষেত্রে বিএনপি কিংবা কারো সঙ্গে বসাবসি বা সংলাপ করার কী প্রয়োজন? বিএনপি সংলাপে বসবে কেন? সরকারের দয়াদাক্ষিণ্যের ওপর নির্বাচন করবে তারা? গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, ‘সংলাপ প্রয়োজন হলে হবে। কিন্তু এখন নির্বাচনের ব্যাপারে সংলাপের প্রয়োজনীয়তা দেখছি না। নির্বাচনের জন্য সংবিধানে যে পথ রয়েছে, সেই অনুযায়ী নির্বাচন হবে। সেই পথ নিয়ে সংলাপ করতে হবে কেন?’

ওবায়দুল কাদের বলেন, জাতির উদ্দেশে দেওয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষণে জনগণ নয়, বিএনপিই হতাশ। আগামী জাতীয় নির্বাচনে হেরে যাওয়ার ভয়ে বিএনপি নেতারা এখন আবোল তাবোল বকছেন। মিথ্যাচারের পুরনো ভাঙা রেকর্ড আবারো বাজাচ্ছেন তারা। এখন তারা (বিএনপি নেতা) হতাশার বালুচরে হাবুডুবু খাচ্ছেন। সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার ভাষণে বলেছেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। নির্বাচনের সময় নির্বাচনকালীন সরকার থাকবে, এটা সংবিধানেই আছে। ওই ক্যাবিনেটের কাজ ও আকার কমে আসে। তারা সরকারের রুটিন কাজ পালন করবে। নির্বাচন কমিশন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলো ইসির অধীনে চলে যায়। নির্বাচন কমিশনের যে যে সহযোগিতা দরকার, নির্বাচনকালীন সরকার তাই করবে।’ জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া এ ভাষণ যারা শুনেছেন তারা একবাক্যে প্রশংসা করেছেন ও সমর্থন দিয়েছেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জাতির উদ্দেশের এই ভাষণ পরবর্তী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নয়। পরবর্তী প্রজন্মের কথা মাথায় রেখে জাতির উদ্দেশে এই ভাষণ দিয়েছেন তিনি। তার এই ভাষণ ইতিবাচক, গঠনমূলক ও রাষ্ট্রনায়কসুলভ ভাষণ।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৪ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং
ফজর৫:২৩
যোহর১২:০৮
আসর৩:৫৭
মাগরিব৫:৩৫
এশা৬:৫২
সূর্যোদয় - ৬:৪২সূর্যাস্ত - ০৫:৩০
পড়ুন