ঈদের সাজে
২২ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
ঈদের সাজে
 

ঈদ আমাদের অন্যতম ধর্মীয় উত্সব। বছরে দু’বার বিশ্বের সব মুসলমান ঈদ আনন্দ উদযাপন করে। ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা। আর মাত্র ক’দিন পরই ঈদুল আজহা অর্থাত্ কোরবানির ঈদ। ঈদ মানেই খুশি আনন্দ। 

শরতের প্রচণ্ড গরমেই আমরা কোরবানির ঈদ উদযাপন করব তাই সাজ-সজ্জা ও পোশাকে থাকতে হবে শালীনতা ও স্বস্তির বিষয়। গরমে সাধারণত হালকা-সতেজ সাজটাই আমরা প্রত্যাশা করে থাকি। কিন্তু এর মাঝেও সাজে থাকে ব্যক্তির চিন্তা-ভালোবাসা, পরিবেশ, সামাজিক অবস্থানের প্রভাব। পোশাকের ধরন, প্রয়োজন, গায়ের রং সবকিছু বিবেচনা করেই সাজসজ্জা করতে হয়। কেননা সাজে নিজের ভালোলাগার পাশাপাশি সবার চোখে গ্রহণযোগ্য হয়ে ওঠা অত্যন্ত জরুরি।

মে ক আ প

ঈদের দিন পরিচ্ছন্ন শাওয়ার নেওয়ার পর মুখের ত্বকে হালকা ময়েশ্চার ফাউন্ডেশন দেওয়া যেতে পারে স্কিনটোনের সাথে ম্যাচ করে। ঈদের দিন আত্মীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব একে অপরের বাসায় যান ঈদ শুভেচ্ছা ও কোরবানির মাংস বিতরণের জন্য। তাই পরিপাটি ফ্রেশ লুক নিয়েই পুরো দিনটা কাটিয়ে দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে। তাই যত্ন সহকারে করুন বেজ মেকআপ। আপনার ঈদ পোশাক যদি জমকালো হয় তাহলে হালকা সাজও ডিমান্ড করবে ত্বকের গ্লসি ন্যাচারাল গর্জিয়াস লুক। সেক্ষেত্রে মিনারেল মেকআপটাই করুন। যা আপনার ব্যবহার করাও সহজ হবে এবং গর্জিয়াস মনে তো হবেই পাশাপাশি ন্যাচারাল লুকটাও বজায় থাকবে। মনে রাখবেন মেকআপের ভিত্তিই কিন্তু বেজ মেকআপ।

 

চো খে র সা জ

যাদের চোখে কাজল দেওয়ার অভ্যাস আছে, তারা পছন্দমতো কাজল এঁকে নিন চোখে। সকালে বা দিনের সাজে আইশ্যাডো ব্যবহার করতে চাইলে ব্রাউন শেডটাই ভালো হবে। হালকা এবং ন্যাচারাল লুকটাই রাখুন। লাইনার দেওয়ার ধরন কিন্তু অনেকটাই আপনার পারসোনালিটিকে রি-প্রেজেন্ট করে তাই বুঝে নিখুঁতভাবে ব্যবহার করুন আই-লাইনার। চোখের ধরন বুঝে লোয়ার ল্যাশ-লিডে দিতে পারেন হাফলিড লাইনার। ব্রাউন, ব্রোঞ্জ, কপার, ব্ল্যাক, টেরাকোটা, কোরাল শ্যাডের ব্যবহার করতে পারেন। চোখের কর্নারে শিমারিং শ্যাড। লোয়ার ও আপার ল্যাশে ঘন করে ২-৩ কোট মাশকারার প্রলেপ এবং লোয়ার লিডের ভেতর দিকে সাদা কাজলের ব্যবহার করুন। যা হালকা মেকআপেও আকর্ষণীয় লুক এনে দেয়। যা ফ্যাশনে ট্রেন্ডি আই মেকআপ এবং তা আপনার ঈদ সাজকে করবে ন্যাচারাল কিন্তু গর্জিয়াস।

 

ঠোঁ টে র  সা জ

যেহেতু ঈদ প্রচণ্ড গরমের মধ্যে তাই ম্যাট বা ক্রিম বেজ লিপকালার-ই ভালো হবে। গ্লসি, শিমারিং লিপস্টিক এড়িয়ে চলাই ভালো হবে। লিপস্টিক দেওয়ার আগে লিপপেন্সিল দিয়ে ঠোঁটের শেপ এঁকে নিন। তারপর ব্রাশের সাহায্যে লিপ কালার লাগান। বর্তমানে অরেঞ্জ, পার্লিপিঙ্ক, হটপিঙ্ক ট্রেন্ডি লিপ কালার। এ ছাড়া ডার্ক বা কালারফুল করতে চাইলে রেড, পারপেল, চকলেট, মেরুন দেওয়া যেতে পারে তবে অবশ্যই ঈদের সাজ পোশাকের সাথে কতটুকু মানাবে তা বুঝেই ব্যবহার করুন।

 

ব্লা শ - অ ন

ঈদের সাজে ব্লাশ-অনের ব্যবহারটা হওয়া চাই খুবই হালকাভাবে। হালকা স্মুথ আভার মতো।

 

চু লে র  সা জ

সাজসজ্জায় চুলের সাজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চুলের সাজের ক্ষেত্রে বোঝা প্রয়োজন আপনার সাজ-পোশাকের সাথে কীভাবে চুল বাঁধলে মানাবে এবং চুলের লেন্থ ভলিউম এসবও গুরুত্বপূর্ণ। ঈদের দিন বিউটি সেলুনগুলো বন্ধ থাকে তাই ঈদের দিনের বিশেষ স্টাইলটি নিজেকেই নিতে হয়। বর্তমানে ট্রেন্ডি মেসিবান, ফিশটেল যা বিভিন্ন স্টাইলে করা যায় এবং মোটামুটি সব ধরনের পোশাকের সাথেই মানিয়ে যায়। এ ছাড়া আয়রন, ব্লোড্রাই করে চুল ছাড়াও রাখতে পারে। কেননা সিম্পল ছেড়ে রাখা চুল যুগ যুগ ধরে পুরো বিশ্বে গ্রহণযোগ্যতা পেয়ে আসছে। প্রয়োজন বুঝে করতে পারেন চুল সাজাতে হেয়ার এক্সেসরিজের ব্যবহার। তবে যে স্টাইলই করুন না কেন অবশ্যই চুল আগে ভালোভাবে শ্যাম্পু দিয়ে পরিষ্কার করুন এবং কন্ডিশনিং করুন।

ঈদ আনন্দের দিন, আর আনন্দ-উত্সব মানেই সাজসজ্জা। তাই সাজতে তো হবেই কিন্তু ঈদের সাজ অবশ্যই হওয়া চাই আবহাওয়া, পরিবেশ পরিস্থিতি ও ধর্মীয় চেতনাকে ধারণ করে।

তানজিমা শারমিন মিউনী

মিউনী’স ব্রাইডাল

ম ডে ল

রিবা ও মাশিয়াত

 

ছ বি

ইয়াং কেধী

ম ডে ল

 জেসমিন জুই ও

শাবস্তী

 

ছ বি

রঙ বাংলাদেশ

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২২ আগষ্ট, ২০১৮ ইং
ফজর৪:১৮
যোহর১২:০২
আসর৪:৩৫
মাগরিব৬:৩০
এশা৭:৪৫
সূর্যোদয় - ৫:৩৬সূর্যাস্ত - ০৬:২৫
পড়ুন