গুপ্তহত্যাকারীরা রেহাই পাবে না :খালেদা জিয়া
ইত্তেফাক রিপোর্ট২১ জুন, ২০১৭ ইং
গুপ্তহত্যাকারীরা রেহাই পাবে না :খালেদা জিয়া
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, বিএনপি নেতাকর্মীদের গুম-খুনের সঙ্গে র্যাব-পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের ক্যাডাররা জড়িত। গুপ্তহত্যাকারীরা কেউ কোনো দিনই রেহাই পাবে না। কান্নাজড়িত কণ্ঠে বেগম খালেদা জিয়া বলেন, স্বজন হারানোর ব্যথা আমি বুঝি। আপনারা দেখেছেন আমার সন্তান হারিয়েছি।

রাজধানীর হোটেল লেকশোরে গতকাল মঙ্গলবার বিগত আন্দোলনে খুন-গুমের শিকার হওয়া বিএনপির নেতাকর্মীদের  স্বজনদের নিয়ে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে খালেদা জিয়া এ সব কথা বলেন। খালেদা জিয়া গুম ও খুনের শিকার বিএনপি নেতাকর্মীর স্বজনদের হাতে ঈদ উপহার তুলে দেন। প্রায় ৫৫টি পারিবারের সদস্যদের হাতে ঈদ উপহার ও আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়।

খালেদা জিয়া বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ভেবেছে ভালো নেতাকর্মীদের শেষ করে দিতে পারলেই বিএনপি দুর্বল ও ধ্বংস হয়ে যাবে। আমরা চেষ্টা করছি, আমাদের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে- যাতে গুম-খুনের শিকার ব্যক্তিরা একদিন ফিরে আসে। এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রীর পরিবারের প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, একটি পরিবারকে বিদায় করে দিতে পারলেই গুমের শিকাররা ফিরে আসবে। সেই ব্যবস্থা সবাই মিলে করতে হবে। খালেদা জিয়া বলেন, যারা গুম হয়েছে তারা শুধু আপনাদের ছেলে নয়, আমাদেরও সন্তানের মতো।

খালেদা জিয়া নিজে কাঁদলেন, সবাইকে কাঁদালেন

খালেদা জিয়া টেবিলে টেবিলে ঘুরে আমন্ত্রিত পরিবারগুলোর সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। গুম-খুন হওয়া পরিবারের সদস্যরাও খালেদা জিয়াকে কাছে পেয়ে স্বজনদের ফিরে পাওয়ার আকুতি জানান।

এ সময় খালেদা জিয়া তাদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেন- ছাত্রদল, যুবদল, বিএনপির যারা গত কয়েক বছর ধরে নিখোঁজ রয়েছে তারা কীভাবে আছেন, তা আমরা কিছুই জানি না। আবার তারা ফিরে এসে আপনাদের মা, বাবা, ভাই-বোন, স্ত্রী, ছেলে-মেয়েদের আদর করবে ঠিক একইভাবে আমাদের দলে ফিরে নেতাকর্মীদের সঙ্গে মিলেমিশে আমাদের আপন হয়ে থাকবে। এর পরই ভারি হয়ে আসে বিএনপি চেয়ারপারসনের কণ্ঠ। অঝোরে কাঁদতে থাকেন তিনি। এ সময় উপস্থিত দলের নেতাকর্মী ও নিখোঁজ পরিবারের সদস্যরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই নিখোঁজ স্বজনদের কয়েকজন বক্তব্য দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন। বক্তব্য দেন- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিগত আন্দোলনের সময় প্রায় তিন মাস গুম থাকা ছাত্রদল নেতা আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, নিহত ছাত্রদল নেতা নূরুজ্জামান জনির স্ত্রী মনিয়া পারভিন প্রমুখ। খালেদা জিয়ার সঙ্গে মূল মঞ্চে ইফতার করেন- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, নিখোঁজ বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলীর স্ত্রী চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসীনা রুশদি লোনা প্রমুখ।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২১ জুন, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১২:০০
আসর৪:৪০
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৬
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
পড়ুন