সব দল অংশ নিলে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে :সিইসি
বিভিন্ন দাতা সংস্থার সঙ্গে বৈঠক
ইত্তেফাক রিপোর্ট২১ জুন, ২০১৭ ইং
প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা বলেছেন, নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অধীনে অতীতে অনেক ভালো নির্বাচনের ইতিহাস রয়েছে। নির্বাচন কমিশন যথেষ্ট শক্তিশালী। এই কমিশনের জন্য যেসব আইন আছে, তা দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন করা সম্ভব। সব রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করলে নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনের সম্মেলন কক্ষে বিভিন্ন দাতা সংস্থার সঙ্গে বৈঠক শেষে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে সিইসি এসব কথা বলেন। জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী রবার্ট ডি ওয়ার্ট কিনসের নেতৃত্বে প্রায় ২০ জন প্রতিনিধি প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক করেন। বৈঠকে বেশকিছু দেশের রাষ্ট্রদূতও উপস্থিত ছিলেন।

কেএম নূরুল হুদা বলেন, নির্বাচনের জন্য আমরা কারিগরি সহযোগিতা চাই। এছাড়াও নির্বাচনের আগে ভোটার, প্রার্থী ও ইসি; কার কি দায়িত্ব তা নিয়ে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হবে। এক্ষেত্রে তারা প্রচারণা উপকরণ প্রস্তুতিতে সহায়তা করবে। স্মার্টকার্ড বিতরণের ক্ষেত্রে চোখের আইরিশ ও দশ আঙ্গুলের ছাপ দেওয়ার মেশিন কিনতে আর্থিক সহায়তা চাই। তবে এগুলো ছাড়াই স্মার্টকার্ড দেওয়া সম্ভব। তাই আমরা প্রকল্পটা আরো বাড়াতে চাই। যদিও নির্বাচনের সঙ্গে স্মার্টকার্ডের সম্পর্ক নেই। তবুও আমরা সংসদ নির্বাচনের আগে সবার হাতে স্মার্টকার্ড তুলে দিতে চাই।

সিইসি বলেন, আমাদের এখানে সংসদীয় আসনের সীমানা নির্ধারণ হয় জনসংখ্যার ঘনত্বের ভিত্তিতে। কিন্তু এ প্রক্রিয়ায় যদি ভবিষ্যতে সীমানা নির্ধারণ করতে হয়, তাহলে ঢাকাসহ বড় শহরগুলোর আসন বেড়ে যাবে, গ্রামাঞ্চলে কমে যাবে। এতে বৈষম্য তৈরি হতে পারে। তাই এসব সমস্যার সমাধানে ভবিষ্যতে জনসংখ্যা নয়, বরং ভোটের সংখ্যার ভিত্তিতে সীমানা নির্ধারণের চিন্তা করছে নির্বাচন কমিশন। তবে এ ক্ষেত্রে কিছু আইনগত সমস্যা আছে। সেটা সমাধান করার চেষ্টা করা হবে। জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী রবার্ট ডি ওয়ার্ট কিনস বলেন, আমরা নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ করার জন্য সকল ধরনের কারিগরি সহায়তা করতে চাই।

নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এটা আমাদের বিষয় না। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সবার অংশগ্রহণ প্রয়োজন। সিইসির সঙ্গে বৈঠকে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) সাহাদাত হোসেন চৌধুরী, ইসি সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন। ভারত ও চীনের প্রতিনিধি বৈঠকে অনুপস্থিত ছিলেন।

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২১ জুন, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১২:০০
আসর৪:৪০
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৬
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
পড়ুন